অবশেষে গৌরীপুরের সেই রুবেল গ্রেফতার

প্রকাশ : ২৫ এপ্রিল ২০১৯, ২১:৪৫ | অনলাইন সংস্করণ

  গৌরীপুর (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি

মেডিকেল অফিসারকে উত্ত্যক্তকারী রুবেল খানকে গ্রেফতার

ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলা হাসপাতালে এক নারী মেডিকেল অফিসারকে উত্ত্যক্তকারী রুবেল খানকে (২৫) গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বুধবার রাতে নেত্রকোনা জেলার পাল্লা বাসস্ট্যান্ড এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

বৃহস্পতিবার গ্রেফতারকৃত রুবেলকে নিয়ে আসা হয় গৌরীপুর থানায়।

অভিযুক্ত রুবেল উপজেলার বোকাইনগর ইউনিয়নের গড়পাড়া গ্রামের আবুল হোসেনের পুত্র।

এ দিকে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অফিসার ডা. মুহাম্মদ রবিউল ইসলাম জানান, নারী মেডিকেল অফিসার তাৎক্ষণিক লিখিত অভিযোগ দেয়নি। দিলে তখনই আইনগত ব্যবস্থা নেয় যেত। তারপরেও এ ঘটনা যেন পুনরায় না ঘটে তার জন্য সংশ্লিষ্ট চেয়ারম্যানকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছিল।

এ ঘটনার প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার হাসপাতালে কর্মরত ডাক্তার ও কর্মচারীরা প্রতিবাদ সমাবেশ করেন। যৌন হয়রানিকারীর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানানো হয়েছে।

জানা গেছে, ১০ দিন ধরে রুবেল খান রোগী সেজে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গিয়ে এক নারী চিকিৎসককে যৌন হয়রানি করত। গত ২২ এপ্রিল সোমবার দুপুরে ওই চিকিৎসক স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে  দায়িত্ব পালন শেষে রিকশাযোগে গৌরীপুর বাসস্ট্যান্ড যাওয়ার পথে বখাটে রুবেল তাকে যৌন হয়রানি করেন।

ওই চিকিৎসক বাসস্ট্যান্ডে গিয়ে ময়মনসিংহগামী বাসে উঠলে রুবেল পিছু নিয়ে ফাঁকা বাসের ভেতর গিয়ে ওই চিকিৎসককে উত্ত্যক্ত করে। একপর্যায়ে ওই চিকিৎসক আত্মরক্ষায় বাস থেকে নেমে সোজা ইউএনও ফারহানা করিমের বাসায় চলে যান। পরে ওই দিন রাতেই তিনি বাদী হয়ে রুবেলের বিরুদ্ধে গৌরীপুর থানায় মামলা দায়ের করেন।

এদিকে মামলা দায়েরের পর পুলিশ গ্রেফতারের অভিযানে বের হলে রুবেল আত্মগোপনে চলে যায়। বুধবার রাত ৩টায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গৌরীপুর থানার এসআই বিপ্লব মহন্ত ও রুহুল আমিনের নেতৃত্বে গৌরীপুর থানার পুলিশের একটি টিম রুবেলকে নেত্রকোনা জেলার পাল্লা বাসস্ট্যান্ড এলাকা থেকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

গৌরীপুর থানার ওসি আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, যৌন হয়রানির ঘটনায় রুবেলকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই বিপ্লব মহন্ত জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ডাক্তারকে উত্ত্যক্ত করার কথা স্বীকার করেছে। এ পর্যন্ত রুবেল দেড় শতাধিক প্রেমের ঘটনার কথাও উল্লেখ করেছে। রুবেলের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী মেয়েদের নিয়মিত উত্ত্যক্তকারী সে।