ফনির প্রভাবে সাগর উত্তাল, নিরাপদে ছুটছে মানুষ

  পটুয়াখালী (বরিশাল) প্রতিনিধি ০৩ মে ২০১৯, ১৯:২৩ | অনলাইন সংস্করণ

ফনির প্রভাবে সাগর উত্তাল, নিরাপদে ছুটছে মানুষ
প্রতীকী ছবি

বঙ্গোপসাগর সংলগ্ন উপকূলীয় এলাকাগুলোতে ঘূর্ণিঝড় ফনির প্রভাব পড়তে শুরু করেছে। শুক্রবার দুপুর থেকে বঙ্গোপসাগর অতিরিক্ত মাত্রায় উত্তাল হয়ে উঠেছে। দমকা বাতাস ও বৃষ্টিপাত শুরু হয়েছে।

এদিকে বিধ্বস্ত বেড়িবাঁধ দিয়ে জোয়ারের পানি প্রবেশ করে সদর উপজেলার মাটিভাঙ্গা, ভাজনা ফুলতলা এবং মির্জাগঞ্জ উপজেলার মেহেন্দিয়াবাদ, চরখালী ও গোলখালী গ্রামসহ অন্তত ১০টি গ্রাম প্লাবিত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। তবে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সর্তকবার্তা চলমান রয়েছে।

এদিকে শুক্রবার রাঙ্গাবালী উপজেলার চরকাশেম দ্বীপে ঝুঁকিতে বসবাসরত দুই শতাধিক পরিবারকে নিরাপদে সরিয়ে নিয়েছে উপজেলা প্রশাসন।

এছাড়াও রাঙ্গাবালী উপজেলা চালিতাবুনিয়ার বিধ্বস্ত বেড়িবাঁধ দিয়ে জোয়ারে পানি প্রবেশ করে তিন শতাধিক ঘরবাড়ি প্লাবিত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। তবে সন্ধ্যা পৌঁনে ৭টার দিকে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

পটুয়াখালী আবহাওয়া অধিদফতর জানায়, পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে ঘূর্ণিঝড়টি ৪৪৫ কিলোমিটার দক্ষিণ ও পশ্চিমে রয়েছে। কিন্তু দুপুরে এটি ১০০ কিলোমিটার দূরে ছিল। প্রতিনিয়ত ঘূর্ণিঝড় ফনি বঙ্গোপসাগর উপকূলীয় এলাকায় অগ্রসর হচ্ছে।

এদিকে কুয়াকাটা এলাকাসহ সাগর-নদী সংলগ্ন এলাকার সব অস্থাপনা সরিয়ে নেয়া হচ্ছে। যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন এলাকার মানুষগুলো সহায়-সম্বল নিয়ে নিরাপদে যেতে দেখা গেছে।

তবে কুয়াকাটার একাধিক আশ্রয় কেন্দ্রে কোনো লোকজনের সমাগম দেখা যায়নি।

পটুয়াখালী জেলা প্রশাসক (ডিসি) মতিউল ইসলাম চৌধুরী জানান, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ অনুযায়ী ঝড় মোকাবেলার সব প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে।

ঘটনাপ্রবাহ : ধেয়ে আসছে ফনি

আরও
আরও পড়ুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×