শিবগঞ্জে ২০ হাজার মানুষের ভরসা একটি পাকা ভবন

  শিবগঞ্জ (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) প্রতিনিধি ০৪ মে ২০১৯, ০৬:০১ | অনলাইন সংস্করণ

শিবগঞ্জে ২০ হাজার মানুষের ভরসা একটি পাকা ভবন
শিবগঞ্জে ২০ হাজার মানুষের ভরসা একটি পাকা ভবন। ছবি: যুগান্তর

ধেয়ে আসছে সুপার সাইক্লোন ফনি। ভারতের ওড়িশায় এরই মধ্যে আঘাত হানা ফনি শনিবার সকাল নাগাদ চাঁপাইনবাবগঞ্জের ওপর দিয়ে বয়ে যেতে পারে। এখানকার মানুষ সাধারণত কালবৈশাখী ঝড় দেখলেও বড় কোনো ঘূর্ণি ঝড় দেখেনি। মিডিয়ার মাধ্যমে ফনির খবর শুনে ক'দিন ধরেই আতংকে দিন কাটাচ্ছে জেলার মানুষেরা।

শুক্রবার বেলা ১১ টার পর হতে বাতাসের সঙ্গে বৃষ্টি হওয়ায় জনমনে আতংক ছড়িয়ে পড়ে। খোঁজ নিয়ে জানাগেছে, চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার পদ্মার ওপারে অর্থাৎ পাঁকা ও দুর্লভপুর ইউনিয়নের প্রায় ২০ হাজার মানুষ আতংকে সময় পার করছে।

কারণ হিসেবে তারা জানিয়েছেন, নদীর ওপারে প্রায় ১০টি ছোট বড় গ্রাম রয়েছে। ওই সব গ্রামে নেই কোনো দালান কোঠা, নেই আশ্রয় কেন্দ্র। একটি মাত্র পাকা ভবন রয়েছে। উত্তরপাকা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে।

শুক্রবার রাত ৯ টায় কথা হয়, রাসেল রহমান নামে এক সমাজকর্মীর সঙ্গে। তিনি ক্ষোভের সঙ্গে বলেন, পদ্মার সর্বনাশা গ্রাসে হাজার হাজার মানুষ ঘর বাড়ি হারিয়ে আজ নিঃস্ব প্রায়। যার কারণে কেও পাকা দালান কোঠা বানাতে পারে না। ঘূর্ণিঝড় ফনি আঘাত হানলে লণ্ডভণ্ড হয়ে যাবে পুরো এলাকা।

শ্রক্রবার মধ্যরাতে স্থানীয় বাসিন্দা মো. বাবু জানান, প্রচণ্ড জোরে ঝড়সহ বৃষ্টি হচ্ছে। সুপার সাইক্লোন ফনি যদি আঘাত হানে আমাদের এলাকার মানুষ বেশি বিপদে পড়বে। কারণ গ্রামের যতগুলো বাড়ি আছে সবগুলোই টিন, খড় দিয়ে বানানো। আশেপাশে বড় গাছ বা ভবন না থাকায় কোথাও যাবার জায়গা নেই। মূল্যবান যা আছে সব বিলিন হয়ে যাবে পদ্মা নদীতে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে পাঁকা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মজিবুর রহমান জানান, নদীর ওপারে একটি মাত্র প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পাকা ভবন রয়েছে। এ ছাড়া আর কোনো নিরাপদ আশ্রয় কেন্দ্র নাই। ঝড় হলে সব তছনছ হয়ে যাবে।

তিনি আরও জানান,পদ্মা পাড়ের চরাঞ্চলবাসীকে নিরাপদে সরিয়ে নিতে বার বার বলা হচ্ছে কিন্তু নিরাপদ স্থান দীর্ঘপথ দাদন চকে হওয়ায় ঘর বাড়ি ছেড়ে কেও আসতে চাচ্ছে না।

শিবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) চৌধুরী রওশন ইসলাম জানান, নিরাপদ আশ্রয় কেন্দ্রে সব রকমের সুযোগ সুবিধা রাখা হয়েছে। তার পরেও কেও যদি না আসে তবে আমাদের কিছুই করার নাই। তার পরেও আমাদের সব ধরনের প্রস্ততি রয়েছে।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×