ছাত্রলীগ পদপ্রার্থীদের ডোপ টেস্টের দাবি সাবেক নেতাদের

  গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি ২০ মে ২০১৯, ২২:১১ | অনলাইন সংস্করণ

ছাত্রলীগ

ছাত্রলীগ পদপ্রার্থীদের ডোপ টেস্টের দাবি জানিয়েছেন গোয়ালন্দ উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক নেতারা।

ছাত্রলীগের মতো ঐতিহ্যবাহী ছাত্র সংগঠনের নেতৃত্বে যেন কোনো মাদকসেবী বা মাদক ব্যাবসায়ী, সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ, অছাত্র কিংবা অসামাজিক কর্মকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত কেউ আসতে না পারে সে বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহবান জানিয়েছেন উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও সম্পাদকগণ।

রাজবাড়ী জেলা পরিষদের ডাক বাংলোতে এ ব্যাপারে উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক ১১ জন সভাপতি ও সম্পাদক এক সভায় মিলিত হন। মাদকাসক্ত কিনা তা নিশ্চিত করতে তারা অভিযুক্ত প্রার্থীদের রক্তের নমুনা পরীক্ষা (ডোপ) করে দেখার দাবি জানিয়েছেন নেতারা।

শুক্রবার সন্ধ্যায় অনুষ্ঠিত ওই সভায় নেতৃবৃন্দ প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার প্রত্যাশার প্রতি গুরুত্ব দিয়ে তাদের উপরোক্ত দাবির কথাগুলো জানান।

দাবির বিষয়গুলি নিয়ে ছাত্রলীগের সাবেক ও বর্তমান বহু নেতাকর্মী ফেসবুকে নিয়মিত পোস্ট দিচ্ছেন। যা সর্বমহলে ব্যাপক আলোচনার সৃষ্টি হয়েছে।

উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মামুনুর রশিদের সভাপতিত্বে সভায় উপস্থিত ছিলেন সাবেক সভাপতি গোবিন্দ চন্দ্র মণ্ডল, লুৎফুল করিম টিটু, আসাদুজ্জামান সেলিম, এনায়েত হোসেন জাকির, শফিকুল ইসলাম সুজ্জল, এবিএম বাতেন, নাজিমুল ইসলাম বৃটেন, সাধারণ সম্পাদক চঞ্চল শেখ, বিপ্লব ঘোষ ও সালাউদ্দিন রেজা (ভারপ্রাপ্ত)।

সভায় উপস্থিত উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এনায়েত হোসেন জাকির জানান, গোয়ালন্দ উপজেলা, পৌর ও সরকারি কামরুল ইসলাম কলেজ শাখায় সভাপতি ও সম্পাদক পদের জন্য ৪২ জন আবেদন করেছেন। এদের অনেকের বিরুদ্ধে মাদক গ্রহণ, চাঁদাবাজিসহ বিভিন্ন অভিযোগ রয়েছে। এ ব্যাপারে আমরা উদ্বিগ্ন। এজন্য ভালোভাবে যাচাই-বাছাই করে কমিটি ঘোষণার জন্য আমরা জেলা আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগের প্রতি আহ্বান জানিয়েছি।

তিনি বলেন, মাদকাসক্ত কিনা তা পরীক্ষা করে দেখার জন্য প্রয়োজনে অভিযুক্ত প্রার্থীদের রক্ত পরীক্ষা করে দেখার জন্য আমরা দাবি জানাচ্ছি।

এ বিষয়ে রাজবাড়ী জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জাকারিয়া মাসুদ রাজিব জানান, দাবিগুলো যৌক্তিক। আমরা এগুলো অবশ্যই ভেবে দেখবো।

প্রসঙ্গত, প্রায় ১ বছর পর গত ১৩ মে সোমবার বিকালে উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত ছাত্রলীগের বর্ধিত সভায় এই উপজেলায় বিদ্যমান দুটি কমিটিকেই বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়। সেই সঙ্গে সংগঠনের মধ্যে সাংগঠনিক বিভাজনের জন্য কাউন্সিল করা জটিল হয়ে পড়ায় পরবর্তীতে জেলা আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগের উপর কমিটি নির্ধারণের দায়িত্ব দেয়া হয়।

রাজবাড়ী জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জাকারিয়া মাসুদ রাজীবের সভাপতিত্বে বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাজবাড়ী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক (ভারপ্রাপ্ত) কাজী ইরাদত আলী।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×