দেড় কেজি ওজনের মুরগি কাটাতে ১৫০ টাকা!
jugantor
দেড় কেজি ওজনের মুরগি কাটাতে ১৫০ টাকা!

  হাটহাজারী প্রতিনিধি  

০৩ জুন ২০১৯, ১০:৫৩:৫১  |  অনলাইন সংস্করণ

দেড় কেজি ওজনের মুরগি কাটাতে ১৫০ টাকা!

ঘরে গৃহিণীর কাজের চাপ কমাতে অনেকেই ক্রয়কৃত মাছ ও মুরগি বাজার থেকে কেটে নিয়ে যান।

এ ক্ষেত্রে সাধারণত এক কেজি ব্রয়লার মুরগি কাটাতে বাজারে মজুরি দেয়া হয় ১০-১৫ টাকা। তবে ঈদুল ফিতর উপলক্ষে বাজারে একটি দেড় কেজি ওজনের মুরগি কাটাতে ক্রেতাকে গুনতে হচ্ছে ১৫০ টাকা!

রোববার রাতে হাটহাজারী সদরের কাঁচাবাজারে এ অবিশ্বাস্য ঘটনা ঘটে।

খবর পেয়ে ওই এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান পরিচালনা করে হাটহাজারী উপজেলার নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) রুহুল আমীন।

এ ব্যাপারে ইউএনও রুহুল আমীন জানান, জালাল নামে একজন ভুক্তভোগী কিছুক্ষণ আগে আমাকে জানান, হাটহাজারী কাঁচাবাজারে একটা মুরগি কাটতে ১৫০ টাকা নিচ্ছে, তিনি প্রতিবাদ করাতে দোকানি উল্টা বলে ৫০০ টাকা নিলি না কেন।

এমন অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে কিছুক্ষণ আগে হাটহাজারী কাঁচাবাজারে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। ভ্রাম্যমাণ আদালত দেখে পালিয়ে যান অতিরিক্ত অর্থ আদায়কারী।

ইউএনও বলেন, বাজার কমিটি ও ইজারাদার তাদের সমিতির পক্ষ থেকে অতিরিক্ত অর্থ তাৎক্ষণিক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে ফেরত দেন। পরে সেটি অভিযোকারীকে ফেরত দেয়া হয়। এ ব্যাপারে পলাতক ব্যক্তিকে ধরে আইনের আওতায় আনার আশ্বাস দেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, এই বাজারে প্রতি কেজি মুরগি বা মাছ কাটার জন্য ১০ টাকা নির্ধারণ করে দিয়েছে বাজার কমিটি। এই রেট সবাইকে মেনে চলার আহ্বান জানাচ্ছি। জুলুম পরিহার করার অনুরোধ জানাচ্ছি।

দেড় কেজি ওজনের মুরগি কাটাতে ১৫০ টাকা!

 হাটহাজারী প্রতিনিধি 
০৩ জুন ২০১৯, ১০:৫৩ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
দেড় কেজি ওজনের মুরগি কাটাতে ১৫০ টাকা!
রোববার রাতে হাটহাজারী সদরের কাঁচাবাজারে ইউএনও রুহুল আমীন। ছবি: যুগান্তর

ঘরে গৃহিণীর কাজের চাপ কমাতে অনেকেই ক্রয়কৃত মাছ ও মুরগি বাজার থেকে কেটে নিয়ে যান। 

এ ক্ষেত্রে সাধারণত এক কেজি ব্রয়লার মুরগি কাটাতে বাজারে মজুরি দেয়া হয় ১০-১৫ টাকা। তবে ঈদুল ফিতর উপলক্ষে বাজারে একটি দেড় কেজি ওজনের মুরগি কাটাতে ক্রেতাকে গুনতে হচ্ছে ১৫০ টাকা!

রোববার রাতে হাটহাজারী সদরের কাঁচাবাজারে এ অবিশ্বাস্য ঘটনা ঘটে। 

খবর পেয়ে ওই এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান পরিচালনা করে হাটহাজারী উপজেলার নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) রুহুল আমীন।

এ ব্যাপারে ইউএনও রুহুল আমীন জানান, জালাল নামে একজন ভুক্তভোগী কিছুক্ষণ আগে আমাকে জানান, হাটহাজারী কাঁচাবাজারে একটা মুরগি কাটতে ১৫০ টাকা নিচ্ছে, তিনি প্রতিবাদ করাতে দোকানি উল্টা বলে ৫০০ টাকা নিলি না কেন।

এমন অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে কিছুক্ষণ আগে হাটহাজারী কাঁচাবাজারে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। ভ্রাম্যমাণ আদালত দেখে পালিয়ে যান অতিরিক্ত অর্থ আদায়কারী।

ইউএনও বলেন, বাজার কমিটি ও ইজারাদার তাদের সমিতির পক্ষ থেকে অতিরিক্ত অর্থ তাৎক্ষণিক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে ফেরত দেন। পরে সেটি অভিযোকারীকে ফেরত দেয়া হয়। এ ব্যাপারে পলাতক ব্যক্তিকে ধরে আইনের আওতায় আনার আশ্বাস দেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, এই বাজারে প্রতি কেজি মুরগি বা মাছ কাটার জন্য ১০ টাকা নির্ধারণ করে দিয়েছে  বাজার কমিটি। এই রেট সবাইকে মেনে চলার আহ্বান জানাচ্ছি। জুলুম পরিহার করার অনুরোধ জানাচ্ছি।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন