যুগান্তর সাংবাদিকের ওপর হামলা, কুয়াকাটা পৌর মেয়রের বিরুদ্ধে মামলা

  পটুয়াখালী (দ.) প্রতিনিধি ১২ জুন ২০১৯, ২৩:৩৮ | অনলাইন সংস্করণ

আহত সাংবাদিক নাসির উদ্দিন বিপ্লব।
আহত সাংবাদিক নাসির উদ্দিন বিপ্লব। ফাইল ছবি

পটুয়াখালীর কুয়াকাটায় যুগান্তর প্রতিনিধিকে হত্যাচেষ্টার অভিযোগে কুয়াকাটা পৌরসভার মেয়র, লতাচাপলি ইউপি চেয়ারম্যানসহ ১৬ জনের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

কলাপাড়া সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট এএইচএম ইমরানুর রহমানের আদালত বুধবার দায়ের করা মামলাটি আমলে নিয়ে মহিপুর থানার ওসিকে তদন্তপূর্বক আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেন।

যুগান্তরের কুয়াকাটা প্রতিনিধি নাসির উদ্দিন বিপ্লব এ মামলাটি দায়ের করেন।

মামলার বিবরনে জানা গেছে, গত ২৭ জানুয়ারি দৈনিক যুগান্তর পত্রিকার ২য় পৃষ্ঠার ২য় কলামে ’পুলিশের কেনা কোড়াল মাছ কেড়ে নিলেন মেয়র’ শিরোনামে কুয়াকাটা পৌরসভার মেয়র আবদুল বারেক মোল্লার বিরুদ্ধে সংবাদ ছাপা হওয়ার পর মেয়র ওই সাংবাদিকের উপর প্রচণ্ডভাবে ক্ষিপ্ত হয়।

গত এপ্রিল ২০১৯ এ লতাচাপলী ইউনিয়ন পরিষদের এক সভায় মেয়র তার সহোদর ভ্রাতা লতাচাপলি ইউপি চেয়ারম্যান আনছার মোল্লাকে লাউড স্পিকারে সংশ্লিষ্ট সাংবাদিকের নাম উল্লেখ করে তার সাংবাদিকতার পেশা স্তব্দ করার হুকুম দেয়।

সোমবার রাত ৯টার দিকে আলিপুর চৌরাস্তাস্থ দৈনিক যুগান্তর অফিস কক্ষের সামনে মেয়রের ফোনের নির্দেশনা ও হুকুমে লতাচাপলি ইউপি চেয়ারম্যানের উপস্থিতিতে সাংবাদিক বিপ্লবের পত্রিকা অফিসের সামনে এসে তাকে অশ্লীল ভাষায় গালাগাল করতে থাকে।

এ সময় সাংবাদিক বিপ্লব তার অফিস ঘর থেকে সামনে বের হওয়া মাত্রই মেয়রের পুত্র যুবলীগ নেতা মাসুদ মোল্লা মারধর করে। তাকে রক্ষা করতে এসে স্থানীয় জামাল নামের এক যুবক গুরুতর জখম হয়। মেয়র পুত্রের সহযোগী রাসেল সাংবাদিক বিপ্লবকে ক্ষুর দিয়ে আঘাত করতে গেলে স্থানীয় অপর যুবক শাকিলের পিঠে লাগে।

রাসেল স্থানীয়দের কারণে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে সাংবাদিক বিপ্লবকে আক্রান্ত করতে না পারায় তার পরিধেয় পাঞ্জাবি শার্টের পকেটসহ ছিড়িয়া পাঞ্জাবির পকেটে থাকা নগদ ১ হাজার ২২০ টাকা জোরপূর্বক নিয়া যায়।

কুয়াকাটা পৌর মেয়র আবদুল বারেক মোল্লা বিপ্লবের ওপর হামলার ঘটনা অস্বীকার করে জানান, এটি স্থানীয় রাজনৈতিক বিরোধ। এছাড়া ১০ জুন রাতে ইউপি চেয়ারম্যান আনছার মোল্লার ওপর হামলার ঘটনা ঘটেছে।

মহিপুর থানার ওসি মো. সাইদুল ইসলাম জানান, আদালতের আদেশের কপি হাতে পেয়ে তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×