প্রলোভনে সম্পর্ক, বিয়ের পরও সন্তান অস্বীকৃতি

  সখীপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১৮:৫১ | অনলাইন সংস্করণ

সখীপুর

টাঙ্গাইলের সখীপুরে সন্তানের বাবার পরিচয় পেতে সাত মাস বয়সী শিশুকন্যাকে নিয়ে দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন জরিনা আক্তার নামের এক মা।

জরিনা উপজেলার কালিয়া ইউনিয়নের বড়চওনা গায়েন মোড় এলাকার বিন্নাখাইড়া গ্রামের দিনমজুর দুলাল হোসেনের মেয়ে। একই গ্রামের প্রতিবেশী আফাজ উদ্দিনের ছেলে আবু বকর সিদ্দিকের প্রতারণার ফাঁদে পড়ে জরিনা এখন দ্বারে দ্বারে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। জানা যায়, প্রায় ৫ বছর আগে জরিনা আক্তারের সঙ্গে আবু বকর সিদ্দিকের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এ প্রেম একপর্যায়ে শারীরিক সম্পর্কে গড়ায়। পরে সালিশি বৈঠকের মাধ্যমে তাদের বিয়ে হয়। বিয়ের পর ওই দম্পতির কন্যাসন্তান হলে স্বামী জরিনাকে রেখে পালিয়ে যায়।

জরিনা আক্তার জানান, বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে আবু বকর তার সঙ্গে মেলামেশা করে। জরিনার দাবি কন্যাসন্তান হওয়ায় স্বামী আবু বকরের মন খারাপ হয়ে যায়। এখন ভরণ-পোষণ তো দূরের কথা সন্তানকেই সে অস্বীকার করছে। ডিএনএ পরীক্ষা করে হলেও আমি আমার কন্যাসন্তানের পিতৃপরিচয়ের স্বীকৃতি চাই। সাত মাস বয়সী কন্যা সিনহা বড় হয়ে যখন জানতে চাইবে তার বাবা কে? তখন আমি এর কী জবাব দেব? আমি জীবনে আর কিছুই চাই না, শুধু কন্যাসন্তানের পিতৃপরিচয়ের জন্যই বুকে চাপা থাকা নানা কষ্টের মাঝেও বেঁচে আছি। এ ব্যাপারে জরিনা স্থানীয় কালিয়া ইউনিয়ন পরিষদে বিচারপ্রার্থী হন।

ইউপি চেয়ারম্যান এসএম কামরুল হাসান বলেন, বিষয়টি নিয়ে অনেক দেনদরবার হয়েছে। একদিকে মেয়েটির বয়স কম, অন্যদিকে নিয়মবহির্ভূত হওয়ায় গ্রাম্য আদালতে নিষ্পত্তি করা সম্ভব হয়নি।

জরিনার বাবা দুলাল হোসেন বলেন, বিয়ের সময় ছেলে পক্ষ থেকে আমার মেয়ের নামে ১৫ শতক জমি লিখে দেওয়া হয়। এখন উল্টো আমার নামে ও মেয়ের মায়ের নামে শুনেছি মামলা করেছে আবু বকর ও তার বাবা আফাজ উদ্দিন। নানাভাবে হুমকি-ধামকি দিচ্ছে। তারা প্রভাবশালী লোক।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×