মঠবাড়িয়ায় নৌকা সমর্থকদের ওপর হামলা, মা-মেয়ে আহত

  মঠবাড়িয়া (পিরোজপুর) প্রতিনিধি ২১ জুন ২০১৯, ১৯:২৬ | অনলাইন সংস্করণ

হামলা

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় সদ্য সমাপ্ত উপজেলা নির্বাচনে পরাজিত নৌকা সমর্থক ও নেতাকর্মীদের ওপর বিজয়ী স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকদের হামলা থামছেই না।

নির্বাচন পরবর্তী গত তিন দিনে পৌরশহর ও উপজেলার ১১ ইউনিয়নে বিভিন্ন এলাকায় পরাজিত নৌকা প্রার্থীর নেতাকর্মী ও সমর্থকদের ওপরসহ তাদের বসত বাড়িতে একাধিক হামলার ঘটনা ঘটেছে।

শুক্রবার সকালে নৌকা প্রার্থী হোসাইন মোশারফ সাকুর সমর্থক উপজেলার মিরুখালীর কাটাখালী গ্রামের কৃষক হাসান (৪৫) ঘর থেকে মাঠে কৃষি কাজে যাবার পথে বিজয়ী চেয়ারম্যান রিয়াজ উদ্দিনের সমর্থক নবী হোসেন, বাদশা ও শাজাহান দলবল নিয়ে হামলা করে আহত করে।

এ সময় তার ছোট ভাই নির্মাণ শ্রমিক নুর মোহাম্মদ (৩৫) বড় ভাইকে বাঁচাতে এলে তাকেও পিটিয়ে আহত করা হয়। আহত দুই ভাইকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

অপরদিকে শুক্রবার সকালে নৌকার কর্মী মিরুখালী বাজারের ফল ব্যবসায়ী ও ওয়ার্ড যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. মোস্তফার ছোটহারজী গ্রামে তার বাড়িতে না পেয়ে বিজয়ী প্রার্থীর কর্মী রাজু, জসিম ও হানিফসহ দলবলসহ মোস্তফার স্ত্রী জাহানারা বেগম (৩৫) ও কলেজ পড়ুয়া মেয়ে নাদিরাকে (১৮) লাঞ্ছিত ও পিটিয়ে জখম করে। আহত মা-মেয়েকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

আহত মা-মেয়ে অভিযোগ করে বলেন, ওই হামলাকারীরা মিরুখালী বাজারে আমাদের ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে হামলা ও লুটপাট করে বন্ধ করে দেয়।

তারা আরও বলেন, মোস্তফা নির্বাচনী ফলাফল ঘোষণার পর থেকে হামলার ভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন।

এ ছাড়া গত বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলার রাজারহাট গ্রামে নৌকা সমর্থক নারী ইউপি সদস্য খাদিজা ইলিয়াসের বসতঘরে হামলা ও লুটপাটের ঘটনায় ওই দিন রাতে মঠবাড়িয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

ওই মামলায় বিজয়ী প্রার্থীর সমর্থক দাউদখালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি রজলুর রহমান সরদারসহ ১৪ জনকে আসামি করা হয়। পুলিশ ইদ্রিস নামে একজনকে গ্রেফতার করে।

এদিকে বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার ছোট শিংগা গ্রামে গভীর রাতে শংকর হালদার, চিত্তরঞ্জন গাইন, চঞ্চল গাইন, বিশ্বজিৎ গাইন, অমৃত গাইন, স্বপন মিস্ত্রি, পারুলেরসহ এক সঙ্গে ৭টি কুটারকুট (খড়ের) গাদায় আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনার পর এলাকায় আতংক বিরাজ করছে।

ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলো বলছে, উপজেলা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ব্যক্তিগত শত্রুতা মেটানোর জন্য এ হামলা করছে।

উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও পৌর মেয়র রফিউদ্দিন আহমেদ ফেরদৌস অভিযোগ করেন, নৌকা প্রার্থীর পক্ষে কাজ করায় স্বতন্ত্র বিজয়ী প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকরা আমাদের অগনিত নেতাকর্মীর ওপর হামলা করছে।

তিনি আরও বলেন, নৌকার কর্মী-সমর্থকদের বসতঘরেও হামলার ঘটনা ঘটছে। এমনকি সংখ্যালঘুরা হামলার শিকার হয়ে বাড়িঘর ছেড়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন।

বিজয়ী স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. রিয়াজ উদ্দিন বলেন, মা ও মেয়ের ওপর হামলার ঘটনাটি আমার জানা নেই। নির্বাচনের আগে হামলার জের ধরে দুই একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা ঘটেছে। যা আমি কঠোর হস্তে দমন করার চেষ্টা করছি।

মঠবাড়িয়া থানার ওসি সৈয়দ আবদুল্লাহ বলেন, নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতা ঠেকাতে পুলিশ তৎপর রয়েছে। মা ও মেয়ের ওপর হামলার ঘটনায় লিখিত অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×