‘স্ত্রীকে উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় রিফাতকে হত্যা’

  যুগান্তর রিপোর্ট ২৭ জুন ২০১৯, ১৪:৩৫ | অনলাইন সংস্করণ

‘স্ত্রীকে ‘উত্ত্যক্তের’ প্রতিবাদ করায় রিফাতকে হত্যা’

বরগুনায় প্রকাশ্য দিবালোকে রাস্তায় ফেলে কুপিয়ে খুন করা হয় রিফাত শরীফকে। এ খুনের নেপথ্যে কী এ নিয়ে চলছে চুলচেরা বিশ্লেষণ। তবে রিফাতের বাবার অভিযোগ, তার পুত্রবধূ আয়েশা সিদ্দিকাকে বিয়ের পর থেকে উত্ত্যক্ত করত প্রধান আসামি নয়ন বন্ড। এর প্রতিবাদ করতে গিয়েই খুন হন রিফাত।

জানা গেছে, বুধবার সকালে স্ত্রীকে নিয়ে কলেজে যান রিফাত। বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে এলে আগে থেকে ওঁৎ পেতে থাকা বরগুনা পৌরসভার ধানসিঁড়ি সড়কের আবুবকর সিদ্দিকের ছেলে নয়ন বন্ড এবং তার প্রতিবেশী দুলাল ফরাজীর ছেলে রিফাত ফরাজীসহ ৪-৫ জন তার ওপর হামলা চালায়। তারা রিফাতকে এলোপাতাড়ি রাম দা দিয়ে কোপাতে থাকে।

নিহতের পরিবার জানায়, রিফাতকে কুপিয়ে হত্যা করেছে নয়নসহ ৪-৫ জন। রিফাতের সঙ্গে দুই মাস আগে পুলিশলাইন সড়কের আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নির বিয়ে হয়। বিয়ের পর নয়ন মিন্নিকে তার প্রেমিকা দাবি করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আপত্তিকর পোস্ট দিতে থাকে। এ বিষয়ে একাধিকবার নয়নকে সতর্ক করে রিফাত। এর পরও শোনেনি নয়ন। একপর্যায়ে প্রতিবাদ করে রিফাত। সেই জেরেই তাকে খুন করা হয়।

রিফাতের বাবা দুলাল শরীফ বলেন, নয়ন প্রতিনিয়ত আমার পুত্রবধূকে উত্ত্যক্ত করত এবং সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আপত্তিকর পোস্ট দিত। এর প্রতিবাদ করায় আমার ছেলেকে নয়ন তার দলবল নিয়ে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে। তিনি বলেন, আমার একমাত্র ছেলেকে যারা দিনে-দুপুরে কুপিয়ে হত্যা করেছে, তাদের বিচার চাই।

স্থানীয়রা জানান, রিফাত বুধবার সকালে তার স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নিকে বরগুনা সরকারি কলেজে নিয়ে যান। পরে কলেজ থেকে ফেরার পথে মূল ফটকে নয়নসহ কয়েকজন রিফাতের ওপর হামলা চালায়। এ সময় তারা ধারালো অস্ত্র দিয়ে রিফাতকে এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকে। রিফাতের স্ত্রী মিন্নি দুর্বৃত্তদের নিবৃত্ত করার চেষ্টা করেন। কিন্তু কিছুতেই হামলাকারীদের থামানো যায়নি। তারা তাকে উপর্যুপরি কুপিয়ে রক্তাক্ত করে চলে যায়। একপর্যায়ে গুরুতর অবস্থায় রিফাতকে বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। রক্তক্ষরণ বন্ধ না হওয়ায় চিকিৎসকরা তাকে বরিশাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠান। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিকেল ৪টার দিকে রিফাত মারা যান।

আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি জানান, বরগুনা পৌরসভার ধানসিঁড়ি সড়কের আবুবকর সিদ্দিকের ছেলে নয়ন বন্ড ও তার প্রতিবেশী দুলাল ফরাজীর দুই ছেলে রিফাত ফরাজী ও রিশান ফরাজী এবং রাব্বি আকন তার স্বামীর ওপর হামলা করে।

তিনি বলেন, আমার সামনে ওই সন্ত্রাসীরা রিফাতকে কুপিয়ে হত্যা করে। আমি শতচেষ্টা করেও আমার স্বামীকে বাঁচাতে পারিনি।

এদিকে রিফাত শরীফকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় মামলা হয়েছে। ১২ জনকে আসামি করে এ মামলা করেছেন রিফাতের বাবা দুলাল শরীফ। বৃহস্পতিবার সকাল ৯টার দিকে বরগুনা সদর থানায় এ হত্যা মামলা করেন তিনি।

বরগুনার পুলিশ সুপার মারুফ হোসেন জানান, মামলায় প্রধান আসামি করা হয়েছে খুনের মূল হোতা হিসেবে অভিযুক্ত সাব্বির হোসেন নয়ন ওরফে ‘নয়ন বন্ড’। দুই নম্বর আসামি রিফাত ফরাজি, তিন নম্বর আসামি রিশান ফরাজি, চার নম্বর আসামি চন্দন। মামলার চার নম্বর আসামি চন্দনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বাকিদের অজ্ঞাতনামা আসামি করা হয়েছে।

বরগুনার পুলিশ সুপার মো. মারুফ হোসেন বলেন, রিফাত শরীফকে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় চন্দন নামের এক যুবককে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত অন্যদের গ্রেফতারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত আছে। কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। আমরা আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান চালাচ্ছি।

ঘটনাপ্রবাহ : রিফাতকে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা

আরও
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×