এক্সিলেন্ট ওয়ার্ল্ড এগ্রো ফুড এন্ড কসমেটিকের প্রতারণার শিকার সুলতানা

  যুগান্তর ডেস্ক ২৮ জুন ২০১৯, ১৮:৪৯ | অনলাইন সংস্করণ

এক্সিলেন্ট ওয়ার্ল্ড এগ্রো ফুড এন্ড কসমেটিকের প্রতারণার শিকার সুলতানা
এক্সিলেন্ট ওয়ার্ল্ড এগ্রো ফুড এন্ড কসমেটিকের প্রতারণার শিকার সুলতানা

এক্সিলেন্ট ওয়ার্ল্ড এগ্রো ফুড এন্ড কসমেটিক লিমিটেডের প্রতারণায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন যশোরের সুলতানা পারভীন নামে এক ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা। বুধবার প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে সুলতানা পারভীন বলেন, ২০১৮ সালে এক্সিলেন্ট ওয়ার্ল্ড এগ্রো ফুড এন্ড কসমেটিক লিমিটেডের জি এম রাসেলের সঙ্গে পরিচয় হয়।

সেই সূত্র ধরে তিনি ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা হিসাবে ব্যবসার সুযোগ দেন। সেই সুযোগ নিয়ে ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা হিসাবে প্রথম দফায় ২৫ মার্চ ২০১৮ সালে ৫০ হাজার টাকা দেন। পরদিন পণ্য পাঠানোর কথা থাকলেও তা পাঠান ১২ দিন পর।

শর্তানুযায়ী এক্সিলেন্ট ওয়ার্ল্ড এগ্রো ফুড এন্ড কসমেটিক লিমিটেডের পণ্য বাজারজাত করার দায়িত্ব থাকলেও তা না করে আরও সুযোগ সুবিধার কথা বলে কোম্পানির এম ডি রয়েল রানা ও জি এম রাসেল ডিপো নিতে বলে। টাকা না থাকায় তারা ব্যাংক লোণের পরামর্শ দেন।

আর প্রতিশ্রুতি দেন যে ডিপো নিলে ১৫ দিনে সব প্রডাক্ট সেল করে দিবেন এবং ব্যাকের ঋণ নিয়ে কোন ধরনের চিন্তা না করতে তারা এর দায়িত্ব নিবেন। পরে ব্যাংক থেকে লোণ করা ৩ লাখ টাকা কো: জি এম রাসেল ও কো: এম ডি রয়েল রানাকে দেয় ২৯ আগস্ট ২০১৮ সালের পর থেকে তারা আর ফোন রিসিভ করে না।

৯ সেপ্টেম্বর কো: একটি দরখাস্ত দেয়া হয় দরখাস্ত দেখে এম ডি রয়েল রানা তার সঙ্গে খুব খারাপ আচরণ করেন। এ ঘটনার পর ১১ সেপ্টেম্বর তিনি কো: ঢাকা মুগদা অফিসে যান এবং সমুদয় টাকা ফেরতের দাবি করেন। সমুদয় টাকা ফেরতের অঙ্গিকার করলেও ১৯ তারিখে মাত্র ৪০ হাজার টাকা দেয়।

পরে কিছু পাঠালে তার বেশির ভাগ পণ্য ছিল মেয়াদ উত্তীর্ণ। এ দিকে ব্যাংক থেকে লোণের কিস্তি দিতে গিয়ে তিনি নিঃস্ব হয়ে গেছেন। ৬ মার্চ কোম্পানি বরাবর দরখাস্ত করেন কিন্তু তারা তা গুরুত্ব দেয় না। ৭ এপ্রিল ভোক্তা অধিকারে দরখাস্ত করেন। এরপর ৩০ মে ঢাকার একটি হোটেলে পুলিশের উপস্থিতিতে সব টাকা ফেরত দেবার কথা থাকলেও ১৩ মে মাত্র ২ লাখ ১৪ হাজার ৬২৬ টাকা দেন। এখন তারা ক্ষতি পূরণ দিতে রাজি হয়নি। সংবাদ সম্মেলনে তিনি উল্লেখ্য করেন ব্যাংকের ঋণ কিস্তি দিতে গিয়ে আর কোম্পানির পেছনে ছুটতে গিয়ে তার প্রায় ৪ লাখ ৭৮ হাজার ৬০০ ক্ষতি হয়েছে। আর মূল টাকার কোম্পানি ফেরত দিয়েছে মাত্র ২ লাখ ৫৪ হাজার ৬২৬ টাকা। বাকী টাকা এবং ক্ষতিপূরণ না দিয়ে সম্প্রতি কোম্পানির এম ডি রয়েল রানা ও জি এম রাসেল তাকে জীবন নাশের হুমকি দিচ্ছে। সুলতানা পারভীন সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

আরও পড়ুন

'কোভিড-১৯' সর্বশেষ আপডেট

# আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বাংলাদেশ ১৬৪ ৩৩ ১৭
বিশ্ব ১৪,১১,৩৪৮৩,০০,৭৫৯৮১,০৪৯
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত