ক্লিনিকে নবজাতকসহ প্রসূতি মাকে আটকে রেখে অতিরিক্ত টাকা আদায়!

  পটুয়াখালী (দ.) প্রতিনিধি ০৩ জুলাই ২০১৯, ১৮:২৫ | অনলাইন সংস্করণ

ক্লিনিকে নবজাতকসহ প্রসূতি মাকে আটকে রেখে অতিরিক্ত টাকা আদায়!
ছবি: যুগান্তর

পটুয়াখালীতে ক্লিনিকের অতিরিক্ত দাবিকৃত টাকা পরিশোধ না করায় নবজাতসহ মোসা. লিমা বেগম (২১) নামে প্রসূতি মাকে আটকে রাখার অভিযোগ পাওয়া গেছে পটুয়াখালী হিমি পলি ক্লিনিকের বিরুদ্ধে।

শহরের শেরে বাংলা রোড এলাকায় হিমি পলি ক্লিনিকে মঙ্গলবার রাতে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনার পর এলাকাবাসীর মধ্যে চরম অসন্তোষ দেখা দিয়েছে। প্রসূতি ওই মায়ের বাড়ি সদর উপজেলার জৈনকাঠি এলাকায় তিনি রিয়াজ মৃধার স্ত্রী বলে জানা গেছে।

প্রসূতির স্বামী রিয়ার মৃধা অভিযোগ করে বলেন, গত ৩০ জুন স্ত্রী লিমার প্রসব ব্যথা উঠলে বিকাল ৪টায় পটুয়াখালী হিমি পলি ক্লিনিকে নিয়ে যাই। এবং সিজারের সিদ্ধান্ত নিয়ে ৬ হাজার টাকা চুক্তিতে ভর্তি করানো হয় লিমাকে। কিন্তু ওই দিন বিকাল ৫টায় সাধারণ (নরমাল) ডেলিভারিতে সন্তান প্রসব হয় লিমার।

তিনি বলেন, নরমাল ডেলিভারি হওয়ায় ওই দিন সন্ধ্যায় লিমাকে নিয়ে বাড়ি যেতে চাইলে রোগীর অবস্থা খারাপ বলে ক্লিনিকে থাকার পরামর্শ দেয়া হয়। পুনরায় মঙ্গলবার সকালে ক্লিনিক থেকে নাম কেটে বাড়ি যাবার জন্য কাউন্টারে গেলে সিজারের ছয় হাজার টাকা দাবি করে বসেন ক্লিনিক ম্যানেজার। এ সময় সিজার লাগেনি বলে টাকা দেয়ার আপত্তি করলে ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ টাকা ছাড়া রোগী দেয়া হবে না বলে সাফ জানিয়ে দেয়। এছাড়াও টাকার জন্য আমার পরিবারকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ। পরে বিষয়টি পটুয়াখালী প্রেসক্লাবে সংবাদিকদের জানানো হয়।

অভিযোগ অস্বীকার করে হিমি পলি ক্লিনিকের ম্যানেজার মো. লিটন মোবাইল ফোনে বলেন, রোগী আটকে রাখার কোনো ঘটনা এখানে ঘটেনি। সাংবাদিক জাহাঙ্গীর ভাই কল দেয়ার পর ডাক্তার স্যারের সঙ্গে কথা বলে তিন হাজার টাকা রেখে রোগী ছেড়ে দেয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে পটুয়াখালীর সিভিল সার্জন শাহ্ মোজাহিদুল ইসলামের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করলে তার মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×