নেত্রকোনায় শিশুর কাটা মাথা কাণ্ডে যা জানলো পুলিশ

  তোফাজ্জল হোসেন, মদন (নেত্রকোনা) থেকে ১৯ জুলাই ২০১৯, ১৩:৫৫ | অনলাইন সংস্করণ

নেত্রকোনায় শিশুর কাটা মাথা কাণ্ডে যা জানলো পুলিশ
ঘাতককে গণপিটুনির সময় স্থানীয় জনতা

নেত্রকোনায় সজীব মিয়া (৭) নামের এক শিশুর গলা কেটে হত্যার ঘটনায় বখাটে যুবক গণপিটুনিতে নিহত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার দুপুরে শহরের নিউটাউন পুকুরপাড় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এদিকে ঘাতক গণপিটুনিতে নিহত হওয়ায় এ ঘটনার কোনো কূল-কিনার করতে পারছে না পুলিশ।

ইতিমধ্যে নিহত ঘাতকের পরিচয় সনাক্ত করেছে পুলিশ।

নেত্রকোনা মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. তাজুল ইসলাম জানান, নিহত যুবকের নাম রবিন (২৮)। তিনি শহরের পূর্ব কাটলি এলাকার এখলাছুর রহমানের ছেলে। গলা কেটে হত্যার শিকার শিশু সজীব একই এলাকার রিকশাচালক রইস উদ্দিনের ছেলে। তারা ওই এলাকায় হিরা মিয়ার ভাড়া বাসায় থাকতো।

স্থানীয়রা জানান, রিকশাচালক রইস উদ্দিন ছিলেন রবিনের প্রতিবেশী। তাদের মধ্যে বেশ সুসম্পর্কই ছিল। মাঝেমধ্যে রবিনও রিকশাচালাতো।

পুলিশ জানিয়েছে, নিহত রবিন মাদকাসক্ত ছিল। প্রায়ই হরিজন পল্লীতে মদপানের জন্য যেতো সে। গতকাল শিশু সজীবের কাটা মাথা ব্যাগে নিয়ে সেদিকেই যাচ্ছিল রবিন।

তবে কি কারণে সাত বছরের শিশুকে এভাবে হত্যা করল রবিন সে বিষয় এখনও রহস্যাবৃত। এ ঘটনার পেছনে আর কেউ জড়িয়ে আছে কিনা তা খতিয়ে দেখছে স্থানীয় পুলিশ।

নেত্রকোনার পুলিশ সুপার জয়দেব চৌধুরী বলেন, ঘটনার কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে শিশু সজীব ও বখাটে রবিনের পরিচয় শনাক্ত করে পুলিশ। সজীবের মস্তকবিচ্ছিন্ন মরদেহটি তার বাসার সামনের সড়কের পূর্ব কাটলি এলাকার নির্মাণাধীন একটি ভবনের তিনতলা থেকে উদ্ধার করা হয়।

ঘটনার বিবৃতি দিয়ে স্থানীয়রা জানান, দুপুরে একটি ব্যাগে করে সজীবের কাটা মাথা নিয়ে মদপান করতে যায় রবিন। তার ব্যাগ থেকে তখন রক্ত গড়িয়ে পড়ছিল। এসময় হরিজন সম্প্রদায়ের লোকজনের সন্দেহ হয়। ব্যাগে কি আছে দেখতে চান তারা। রবিন জানায়, তার ব্যাগে মাছে আছে। রবিনের কথায় বিশ্বাস না করে ব্যাগ খুলে তারা শিশু সজীবের কাটা মাথা দেখেন। ধরা পড়ে যাওয়ায় তাৎক্ষণিক দৌড়ে পালাতে চেষ্টা করে রবিন। বিক্ষুব্ধ জনতা তাকে ধাওয়া করে নিউটাউন পুকুরপাড় এলাকায় সজীবের কাটা মাথাসহ ধরে ফেলে এবং গণপিটুনি দিয়ে তাকে মেরে ফেলে।

এদিকে ছেলে হারিয়ে দিশেহারা শিশু সজীবের মা শরীফা বেগম। কান্নারত কণ্ঠে তিনি বলেন, সকালে ঘর থেকে পাঁচ টাকা নিয়ে বের হয় সজীব। দুপুরে আর ঘরে ফেরেনি সে। তার খোঁজাখুঁজি শুরু করি আমরা। দুপুরে জানতে পারি, নিউটাউন এলাকায় এক শিশুর দেহ বিচ্ছিন্ন কাটা মাথা নিয়ে যুবক ধরা পড়েছে। খোঁজ নিয়ে দেখি সেই মাথা আমার সজীবেরই। গণপিটুনিতে নিহত ওই যুবক রবিন আমাদের প্রতিবেশী। সে কেন এটা করল আমরা জানি না। তার সঙ্গে আমাদের কোনো শত্রুতা ছিল না।

এদিকে গতকালের এ ঘটনায় নেত্রকোনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। এলাকায় আতঙ্কের সৃষ্টি হয়েছে। এ ঘটনার সঙ্গে পদ্মাসেতুর মাথা লাগবে এমন গুজব জুড়িয়ে দিচ্ছেন অনেকে।

শহরের অনেকেই তাদের সন্তানদের চোখের আড়াল করতে চাইছেন না। এমনকি আজ অনেকে তাদের সন্তানদের স্কুলেও পাঠাননি বলে জানা গেছে।

এ বিষয়ে পুলিশ সুপার জয়দেব চৌধুরী জেলাবাসীকে শিশুদের প্রতি খেয়াল রাখার পরামর্শ দিয়ে বলেন, আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। মূলত এটি বিচ্ছিন্ন একটি ঘটনা। এ ঘটনার রহস্য খুঁজছি আমরা।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×