একজন মাও না খেয়ে থাকবে না: কৃষিমন্ত্রী
jugantor
একজন মাও না খেয়ে থাকবে না: কৃষিমন্ত্রী

  দেওয়ানগঞ্জ (জামালপুর) প্রতিনিধি  

২৬ জুলাই ২০১৯, ১৭:৫৮:২৬  |  অনলাইন সংস্করণ

একজন মাও না খেয়ে থাকবে না: কৃষিমন্ত্রী
বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করছেন কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক। ছবি: যুগান্তর

কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, একজন মাও না খেয়ে থাকবে না। কারও খাওয়ার কোনো কষ্ট হবে না। 

শুক্রবার জামালপুর জেলা প্রশাসনের আয়োজনে দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার চিকাজানী ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন স্থানে ত্রাণ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।

মন্ত্রী বলেন, বন্যাকবলিত এলাকায় স্থায়ী বাঁধ নির্মাণ করা হবে যাতে আর বন্যা না হয়। মানুষ রিলিফ চায় না তারা এখন বাঁধ চায়। বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের মধ্যে বিনামূল্যে সার, বীজ দেয়া হবে। যতদিন পর্যন্ত বন্যার্ত মানুষ ঘর না ফিরবে ততদিন পর্যন্ত ত্রাণ কর্মসূচি প্রদান অব্যাহত থাকবে। কৃষকদের যে ক্ষতি হয়েছে আপনাদের চাষাবাদ ফসল করার জন্য ভর্তুকি দেয়া হবে। 

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান বলেন, বন্যার্তদের জন্য প্রয়োজনে সবকিছু করা হবে। যা লাগবে তাই দেয়া হবে। কেউ হতাশ হবেন না।

জামালপুর জেলা প্রশাসক আহমেদ কবীরের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিকবিষয়ক সম্পাদক আসীম কুমার উকিল এমপি, শিক্ষা ও মানব সম্পদবিষয়ক সম্পাদক বেগম শামছুন্নাহার চাঁপা, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক অ্যাডভোকেট আফজাল হোসেন, ত্রাণ ও পুনর্বাসনবিষয়ক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, কেন্দ্রীয় সদস্য মির্জা আজম এমপি, আনোয়ার হোসেন, রিয়াজুল হক ও মারুফা আক্তার পপি, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট বাকীবিল্লাহ, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ফারুক আহম্মেদ চৌধুরী, ফরিদুল হক খান দুলাল এমপি, ইঞ্জিনিয়ার মোজাফ্ফর হোসেন এমপি, হোসনে আরা এমপি, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব শাহ্ কামাল, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদফতরের পরিচালক এটিএম কামরুল হাসান, জেলা পুলিশ সুপার দেলোয়ার হোসেন, জামালপুর চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি রেজাউল করিম রেজনু সিআইপি, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ গোলাম মোস্তফা, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ ইস্তিয়াক হোসেন দিদার, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সোলায়মান হোসেন, সাবেক মেয়র নূরুন্নবী অপু। 

দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার ২ হাজার বানভাসির মধ্যে চাল-ডালসহ বিভিন্ন ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করা হয়।

একজন মাও না খেয়ে থাকবে না: কৃষিমন্ত্রী

 দেওয়ানগঞ্জ (জামালপুর) প্রতিনিধি 
২৬ জুলাই ২০১৯, ০৫:৫৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
একজন মাও না খেয়ে থাকবে না: কৃষিমন্ত্রী
বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করছেন কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক। ছবি: যুগান্তর

কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, একজন মাও না খেয়ে থাকবে না। কারও খাওয়ার কোনো কষ্ট হবে না।

শুক্রবার জামালপুর জেলা প্রশাসনের আয়োজনে দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার চিকাজানী ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন স্থানে ত্রাণ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।

মন্ত্রী বলেন, বন্যাকবলিত এলাকায় স্থায়ী বাঁধ নির্মাণ করা হবে যাতে আর বন্যা না হয়। মানুষ রিলিফ চায় না তারা এখন বাঁধ চায়। বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের মধ্যে বিনামূল্যে সার, বীজ দেয়া হবে। যতদিন পর্যন্ত বন্যার্ত মানুষ ঘর না ফিরবে ততদিন পর্যন্ত ত্রাণ কর্মসূচি প্রদান অব্যাহত থাকবে। কৃষকদের যে ক্ষতি হয়েছে আপনাদের চাষাবাদ ফসল করার জন্য ভর্তুকি দেয়া হবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান বলেন, বন্যার্তদের জন্য প্রয়োজনে সবকিছু করা হবে। যা লাগবে তাই দেয়া হবে। কেউ হতাশ হবেন না।

জামালপুর জেলা প্রশাসক আহমেদ কবীরের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিকবিষয়ক সম্পাদক আসীম কুমার উকিল এমপি, শিক্ষা ও মানব সম্পদবিষয়ক সম্পাদক বেগম শামছুন্নাহার চাঁপা, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক অ্যাডভোকেট আফজাল হোসেন, ত্রাণ ও পুনর্বাসনবিষয়ক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, কেন্দ্রীয় সদস্য মির্জা আজম এমপি, আনোয়ার হোসেন, রিয়াজুল হক ও মারুফা আক্তার পপি, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট বাকীবিল্লাহ, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ফারুক আহম্মেদ চৌধুরী, ফরিদুল হক খান দুলাল এমপি, ইঞ্জিনিয়ার মোজাফ্ফর হোসেন এমপি, হোসনে আরা এমপি, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব শাহ্ কামাল, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদফতরের পরিচালক এটিএম কামরুল হাসান, জেলা পুলিশ সুপার দেলোয়ার হোসেন, জামালপুর চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি রেজাউল করিম রেজনু সিআইপি, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ গোলাম মোস্তফা, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ ইস্তিয়াক হোসেন দিদার, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সোলায়মান হোসেন, সাবেক মেয়র নূরুন্নবী অপু।

দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার ২ হাজার বানভাসির মধ্যে চাল-ডালসহ বিভিন্ন ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করা হয়।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন