কুমিল্লায় ‘এসো নিজ হাতে রোবট বানাই’ কর্মশালা অনুষ্ঠিত

  যুগান্তর ডেস্ক ০৩ আগস্ট ২০১৯, ১৪:২৩ | অনলাইন সংস্করণ

কুমিল্লায় ‘এসো নিজ হাতে রোবট বানাই’ কর্মশালা অনুষ্ঠিত
কুমিল্লায় ‘এসো নিজ হাতে রোবট বানাই’ কর্মশালা অনুষ্ঠিত

বর্তমান সভ্যতার উন্নতির পেছনে বিজ্ঞানের বিস্ময়কর আবিষ্কার কম্পিউটারের অবদান কোন অংশেই কম নয়। বরং বলা যায় সভ্যতার উন্নতিকে কম্পিউটার আরও একধাপ এগিয়ে নিয়ে গেছে। অ্যাবাকাস নামক একটি প্রাচীন গণনাযন্ত্রকেই কম্পিউটারের ইতিহাসে প্রথম যন্ত্র হিসেবে ধরা হয়।

পঞ্চম প্রজন্মের কম্পিউটারগুলো একই সময়ে বহুবিধ কাজ অতিদ্রুততার সঙ্গে সম্পন্ন করতে পারে। কিন্তু একই সময়ে বিভিন্ন বিষয় চিন্তা করতে পারে না। আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স বা কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা হচ্ছে কম্পিউটার বিজ্ঞানের এমন একটি শাখা যেখানে মানবজাতির বুদ্ধিমত্তার মত কম্পিউটার আচরণ করতে পারে।

কম্পিউটার কীভাবে মানুষের মত চিন্তা করবে, কীভাবে অসম্পূর্ণ তথ্য দিয়ে পুর্ণাঙ্গ সিদ্ধান্তে পোঁছাবে, কীভাবে সমস্যা সমাধান করবে, কীভাবে বিচক্ষণতার পরিকল্পনা প্রণয়ন করবে ইত্যাদি বিষয়ে জানার জন্যই কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার ওপর গবেষণা করা হচ্ছে। কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার ব্যবহার হিসেবে রোবটিক্স, নিউরাল নেটওয়ার্ক, ভার্চুয়াল রিয়েলিটি, ফাজি লজিক ইত্যাদি পরিলক্ষিত।

১৯২১ সালে karel Capek নামের Czech দেশীয় একজন নাট্যকার তার লেখা একটি বিদ্মপাত্মক নাটক RUR (Rossum’s Universal Robots) তে প্রথম রোবট শব্দটি ব্যবহার করেন। Robot শব্দটি Czech দেশীয় শব্দ “Robota” থেকে এসেছে, যার শাব্দিক অর্থ “Forced Laborer” বা ‘Slave Laborer”।

রোবট আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্সের আরেকটি উদাহরণ। কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা সম্পূর্ণ রোবট ইতিমধ্যেই ব্যাপক সাড়া ফেলেছে মানুষের মধ্যে। তারই প্রেক্ষিতে গত বৃহস্পতিবার কুমিল্লার দেবীদ্বার জালাল উদ্দিন আহমেদ ফাউন্ডেশন স্কুল এন্ড কলেজে ‘বাংলাদেশ অ্যাডভানস রোবোটিক্স রিসার্চ সেন্টার’-এর উদ্যোগে “এসো নিজ হাতে রোবট বানাই” শিরোনাম নিয়ে রোবটিক্সের ওপর একটি ওয়ার্কশপের আয়োজন করা হয়।

রোবটিক্স সেক্টরে বর্তমান প্রজন্মকে দিকনির্দেশনা দেওয়া, আরও উৎসাহিত করাই ছিল প্রোগ্রামটির মূল উদ্দেশ্য। এই প্রোগ্রাম এ অষ্টম, নবম ও দশম শ্রেণীর ছাত্র-ছাত্রীরা অংশগ্রহণ করে। কর্মশালার শুরুতে উক্ত বিদ্যালয়ের শিক্ষক কাজী আরিফ কর্মশালার উদ্বোধন করেন। এরপর বাংলাদেশও বর্তমান প্রেক্ষাপট রোবটিক্সের গুরুত্ব তুলে ধরেন উক্ত বিদ্যালয়ের শিক্ষক জাফর।

উক্ত প্রোগ্রামে ট্রেইনার হিসেবে ছিলেন মো. রাহাতুল ইসলাম যিনি বাংলাদেশ অ্যাডভানস রোবটিক্স রিসার্স সেন্টারের পরিচালক, কো-ফাউন্ডার আইডিয়া শপ ইনোভেশন সেন্টার অব বাংলাদেশ অ্যাডভানস রোবটিক্স রিসার্স সেন্টার ও ভিশন ২০২০ সাউথ এশিয়ার এক্সিকিউটিভ ডাইরেক্টর।

তিনি রোবটিক্স সম্পর্কে তার বক্তব্যে রোবটিক্স সেক্টরে কাজ করতে হলে যে সকল বিষয়ে বেশি জ্ঞান লাগবে সে সকল বিষয় তুলে ধরেন। তিনি সকল অংশগ্রহণকারীদেরকে গ্রুপ করে হাতে হাতে রোবটিক্স প্রজেক্ট শুরু করেন। তাকে সহায়তা করেন জাহিদ হাসান জনি, জাহিদ হাসান জনি কো-অর্ডিনেটর অব বাংলাদেশ অ্যাডভানস রোবটিক্স রিসার্স সেন্টার।

মো. রাহাতুল ইসলাম ও জাহিদ হাসান জনি শিক্ষার্থীদের অবস্টেকল রোবট, স্মার্ট ডাস্টবিন, টেম্পারেচার নির্ণয়, এলসিডিতে তাদের নাম ইত্যাদি তৈরি করে দেখান। শিক্ষার্থীরা অনেক মনোযোগ সহকারে দেখেন এবং নিজের হাতে তৈরি করেন। শিক্ষার্থীরা তাদের বিদ্যালয়ে খুব শিগগির স্মার্ট ডাস্টবিন তৈরি করবে বলে জানান। জাহিদ হাসান জনি সবাইকে বাংলাদেশ রোবট অলিম্পিয়াড সম্পর্কে বিস্তারিত তুলে ধরেন। সবচেয়ে আশ্চর্যের বিষয় তারা এখন থেকেই বাংলাদেশ রোবট অলিম্পিয়াডে অংশগ্রহণ করার পরিকল্পনা করছে।

অনুষ্ঠানটি সম্পূর্ণ করতে সহায়তা করে ভিশন ২০২০ সাউথ এশিয়ান প্রজেক্ট এবং কানাডিয়ান ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ। মো. রাহাতুল ইসলাম এবং জাহিদ হাসান জনি উভয়ই কানাডিয়ান ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ এ ইইই বিভাগের চতুর্থ বর্ষের ছাত্র।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×