ঈদে বাড়ি আসা মানুষের জানমাল রক্ষায় এসপির পদক্ষেপ

  পটুয়াখালী (দ.) প্রতিনিধি ০৬ আগস্ট ২০১৯, ২৩:০০ | অনলাইন সংস্করণ

ঈদে বাড়ি আসা মানুষের জানমাল রক্ষায় এসপির মতবিনিময় সভা
ঈদে বাড়ি আসা মানুষের জানমাল রক্ষায় এসপির মতবিনিময় সভা

আসন্ন ঈদুল আজহা উপলক্ষে পটুয়াখালীর নৌপথ ও মহাসড়কে চাঁদাবাজি বন্ধসহ নাড়ীর টানে গ্রামের বাড়িতে আসা মানুষের জানমাল রক্ষায় কঠোর নজরদারী ও টহল জোড়দারের ব্যবস্থা করেছেন পটুয়াখালীর পুলিশ সুপার।

পাশাপাশি যাত্রী হয়রানি বন্ধসহ আইন শৃংখলা নিয়ন্ত্রণে রাখতে পুলিশের পক্ষ থেকে কঠোর হুঁশিয়ারি দেয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার সকালে পটুয়াখালী পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে সব শ্রেণি- পেশা ও ব্যবসায়ীদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মইনুল হাসান এ হুঁশিয়ারি দেন।

এসপি বলেন, আসন্ন ঈদ উপলক্ষে মহাসড়কে কোনো ধরনের চাঁদাবাজি কিংবা যাত্রীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করলে তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেবে পুলিশ। এজন্য মহাসড়কে অতিরিক্ত টহল ব্যবস্থা করা হয়েছে। এসব ক্ষেত্রে কোনো পুলিশের বিরুদ্ধে কোন ধরনের অভিযোগ উঠলে তাকেও ছাড় দেয়া হবে না।

তিনি বলেন, বাসস্ট্যান্ড ও লঞ্চঘাটে দূর-দূরন্ত থেকে আসা যাত্রীরা যাতে কোনভাবে হয়রানির শিকার না হয় এবং অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করা না হয় সেজন্য প্রধানমন্ত্রী অথবা সরকারের পক্ষ থেকে বাস ও লঞ্চ কর্তৃপক্ষকে কঠোর নির্দেশনা প্রতি নির্দেশনা রয়েছে।

মোহাম্মদ মইনুল হাসান কোরবানি উপলক্ষে যে কোনো ধরনের অনিয়মের জন্য যদি কোনো মহল প্রভাব বিস্তার করে তবে সরাসরি পুলিশকে অবহিত করার জন্য আহ্বান জানান।

মতবিনিময় সভায় শহরের সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের পাশাপাশি স্থানীয় গনমাধ্যমকর্মীরাও উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. মাহফুজুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর) শেখ বিলাল হোসেন এবং অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. জসিম উদ্দিন প্রমুখ।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×