‘জাকির ভাইয়ের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করলি কেন’

  বাঞ্ছারামপুর প্রতিনিধি ০৮ আগস্ট ২০১৯, ২১:৩১ | অনলাইন সংস্করণ

মো. এরশাদ মিয়া
মো. এরশাদ মিয়া। ছবি: যুগান্তর

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুর উপজেলার রূপসদী ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি জাকির হোসেনের নির্দেশে যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মো. এরশাদ মিয়াকে তার লোকজন কুপিয়ে গুরুতর আহত করার অভিযোগ উঠেছে।

‘জাকির ভাইয়ের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করলি কেন’ বলেই হামলা চালানো হয় বলে এরশাদের দাবি।

বুধবার বিকালে রূপসদী উত্তরপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। গুরুতর আহত এরশাদ মিয়াকে বুধবার সন্ধ্যায় বাঞ্ছারামপুর সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে বৃহস্পতিবার দুপুরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় এলাকায় যুবলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

ভুক্তভোগী ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, উপজেলা রূপসদী গ্রামে গত দেড় মাস আগে রূপসদী ইউনিয়ন যুবলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মো. এরশাদ মিয়ার বোন ও ভাগ্নিরা অটোরিকশা দিয়ে যাওয়ার পথে রূপসদী জামাই বাজার এলাকায় যুবলীগ সভাপতি জাকিরের পূর্ব পরিচিত মাসুমের মোটরসাইকেলের সঙ্গে ধাক্কা লাগে।

দুর্ঘটনার পর এরশাদ মিয়া ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে মাসুম নিজেকে সভাপতি জাকির হোসেনের আত্মীয় বলে পরিচয় দেয়। পরে ওই ঘটনায় মাসুমকে ৭ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

এ ঘটনাকে কেন্দ্র করেই ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি জাকির হোসেনের সঙ্গে যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক এরশাদ মিয়ার বিরোধের সৃষ্টি হয়।

এই জেরে বুধবার বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে রূপসদী বালুয়াকান্দি বাজারে কোরবানির গরু কিনতে গেলে ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি জাকির হোসেনের নির্দেশে রানা মিয়ার নেতৃত্বে ৬-৭ জন যুবক এসে বাজারের পাশে ধরে নিয়ে ‘জাকির ভাইয়ের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করলি কেন’ বলেই রড, বাঁশের কঞ্চি দিয়ে বেধড়ক পেটাতে থাকে।

একপর্যায়ে এরশাদ মাটিতে পড়ে গেলে তখন ধারালো দা দিয়ে পায়ে কুপিয়ে জখম করে।

এ বিষয়ে মো. এরশাদ মিয়া অভিযোগ করে বলেন, আমাদের ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি জাকিরের সঙ্গে গত কয়েক মাস আগে যুবলীগের সম্মেলনের বিষয় নিয়ে আমার প্রথম দ্বন্দ্ব সৃষ্টি হয়। পরবর্তীকালে আমার দুই বোন ও ভাগ্নি অটোরিকশাযোগে যাওয়ার পথে দুর্ঘটনা নিয়ে আবার দ্বন্দ্ব সৃষ্টি হয়।

এ বিষয়ে যুবলীগ সভাপতি জাকির হোসেন বলেন, আমি এরশাদকে কোনো হামলা করাই নি। তার ওপর হামলার খবর শোনে আমি তাৎক্ষণিকভাবে তাকে ফোন দিয়েছি। আমি যদি হামলা করাতামই তাহলে আমি তো এরশাদকে ফোন দিতাম না। এরশাদ আমার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ করেছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা, ভিত্তিহীন ও বানোয়াট।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×