রুয়েট শিক্ষক রাশিদুলের পাশে এমপি বাদশা

  রাজশাহী ব্যুরো ২০ আগস্ট ২০১৯, ১১:০৮ | অনলাইন সংস্করণ

রুয়েট শিক্ষক রাশিদুলের পাশে এমপি বাদশা
রুয়েট শিক্ষক রাশিদুলের পাশে এমপি বাদশা। ছবি-যুগান্তর

বখাটেদের হাতে শারীরিক লাঞ্ছনার শিকার রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (রুয়েট) শিক্ষক রাশিদুল ইসলামের বাসায় গেছেন রাজশাহী-২ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা।

এ সময় তিনি তাকে সব ধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন। বলেছেন, রাজশাহী শান্তির নগরী। এ শহরে বখাটেদের দৌরাত্ম্য বাড়তে দেয়া হবে না।

বাদশা বলেন, ঘটনার খবর শুনেই তিনি রাজশাহী মহানগর পুলিশের (আরএমপি) কমিশনারের সঙ্গে কথা বলেছেন। দ্রুত সময়ের মধ্যে এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত সবাইকে আইনের আওতায় আনার জন্য বলেছেন।

সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা সোমবার রাতে রাজশাহী মহানগরীর মহিষবাথান এলাকায় ভুক্তভোগী ওই শিক্ষকের বাসায় যান।

এ সময় তিনি শিক্ষক রাশিদুলসহ তার বাবা, মা ও স্ত্রীর সঙ্গে প্রায় দেড় ঘণ্টা কথা বলেন। আশ্বাস দেন সবসময় পাশে থাকার।

গত ১০ আগস্ট ঈদের কেনাকাটা করে বাসায় ফিরছিলেন রুয়েটের ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং (ইইই) বিভাগের সহকারী অধ্যাপক রাশিদুল ইসলাম।

একদল বখাটে তখন তার স্ত্রীকে ধাক্কা দেন। এ সময় বখাটেদের সঙ্গে তার কথা কাটাকাটি হয়। এর পর রাশিদুল ইসলাম তার স্ত্রীকে নিয়ে অটোরিকশায় চড়ে বসেন। তার পরও বখাটেরা কটূক্তি করতে থাকে।

রাশিদুল ইসলাম এর প্রতিবাদ করলে বখাটেরা অটোরিকশায় বসে থাকাবস্থায় শিক্ষককে মারধর করেন। সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশাকে কাছে পেয়ে শিক্ষক রাশিদুল ইসলাম বলেন, এই শহরে আমি জন্ম নিয়েছি, পড়াশোনা করেছি। এই শহরে শিক্ষকতা করছি। আর এই শহরেই বখাটেদের হাতে লাঞ্ছনার শিকার হওয়াটা ভীষণ কষ্টের। বখাটেদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া দরকার।

তিনি বলেন, রাজশাহীর সুনাম অক্ষুণ রাখতে হলে সব বড় সড়কে ক্লোজ সার্কিট (সিসি) ক্যামেরা বসাতে হবে। তা না হলে এ ধরনের ঘটনা ঘটবে, কিন্তু অপরাধীরা আইনের আওতায় আসবে না। রাজশাহীর সুনাম তখন নষ্ট হবে। বাইরের জেলা থেকে কেউ এলে অনিরাপদ মনে করবে।

শিক্ষক রাশিদুল ইসলামকে সান্ত্বনা দিয়ে ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা বলেন, জীবনে অনেক ধরনের ঘটনা ঘটে। কিন্তু এ ধরনের ন্যক্কারজনক ঘটনা মেনে নেয়া যায় না। অপরাধীরা যেন শাস্তির মুখোমুখি হয় তার জন্য তিনি সব ধরনের পদক্ষেপ নেবেন।

শিক্ষক রাশিদুলকে মারধরের ঘটনায় ছয় দিন পর ১৬ আগস্ট অজ্ঞাত আট তরুণ-তরুণীকে আসামি করে মামলা করেন তার স্ত্রী। এ মামলায় সোমবার দিনগত গভীর রাতে তিন তরুণকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×