নারায়ণগঞ্জে যৌতুকের দাবিতে গৃহবধূকে শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগ

  বন্দর (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি ২০ আগস্ট ২০১৯, ১৪:২১ | অনলাইন সংস্করণ

নিহত সুমাইয়া আক্তার বর্ষা। ছবি-যুগান্তর
নিহত সুমাইয়া আক্তার বর্ষা। ছবি-যুগান্তর

নারায়ণগঞ্জের বন্দরে যৌতুকের দাবিতে সুমাইয়া আক্তার বর্ষা নামে এক গৃহবধূকে (২১) শারীরিক নির্যাতনের পর শ্বাসরোধ করে হত্যার অভিযোগ উঠেছে স্বামীর বিরুদ্ধে।

এ ঘটনায় পুলিশ অভিযুক্ত স্বামী মোস্তাফিজুর রহমান নয়নকে গ্রেফতার করেছে।

সোমবার রাতে বন্দর উপজেলার কলাগাছিয়া ইউনিয়নের আলী সাহারদী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত বর্ষার স্বজনরা জানান, ২০১৩ সালে আলী সাহারদী এলাকার শহীদুল্লাহ মিয়ার ছেলে মোস্তাফিজুর রহমান নয়নের সঙ্গে রাজধানীর কদমতলী থানার দনিয়া শরাইল এলাকার বাসিন্দা মনজুর ভূঁইয়ার বড় মেয়ে সুমাইয়া আক্তার বর্ষার পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়।

বিয়ের সময় টাকা, স্বর্ণালঙ্কার ও আসবাবপত্র বাবদ ১০ লাখ টাকা খরচ করে বর্ষার পরিবার। বর্ষার সংসারে সাড়ে চার বছরের একটি কন্যাসন্তান রয়েছে।

বর্ষার বাবা মনজুর ভূঁইয়া জানান, প্রায় এক বছর আগে নিজের জমি বিক্রি করে বেশ কিছু টাকা হাতে পান তিনি। সেই টাকা নিজের ব্যবসায় বিনিয়োগ করে ফেলেন। জমি বিক্রি করে তিনি টাকা পেয়েছেন, সেই খবর জানতে পেরে মেয়ের জামাতা নয়ন ব্যবসা করার অজুহাতে বর্ষার মাধ্যমে তার কাছে পাঁচ লাখ টাকা চায়।

এ নিয়ে নয়ন ও বর্ষার মধ্যে পারিবারিক কলহ দেখা দেয়। দাবিকৃত টাকা না দেয়ায় নয়ন বর্ষার ওপর বেশ কিছু দিন ধরে মারধরসহ নানাভাবে শারীরিক নির্যাতন করে আসছে। ঈদের কয়েক দিন আগে থেকে প্রতিদিনই বর্ষাকে মারধর করত নয়ন। দাবিকৃত টাকার অজুহাতে সোমবার রাতে নয়ন বর্ষাকে আবারও মারধর করে এবং শ্বাসরোধ করে হত্যা করে।

বর্ষার ছোট বোন মীম জানায়, সোমবার বিকাল পৌনে ৫টার দিকে বর্ষা তাকে ইমোতে ফোন করে খুব কান্নাকাটি করে। স্বামী নয়ন প্রতিদিন মারধর করে তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখম করেছে বলে জানায়। এ বাড়িতে থাকলে স্বামী নয়ন মারধর করে মেরে ফেলবে এই ভয়ে বর্ষাকে বাবার বাড়িতে নিয়ে যাওয়ার জন্য বোনকে অনুরোধ করে। প্রায় এক ঘণ্টা দুই বোনের মধ্যে কথা হয়।

বন্দর থানার ওসি মো. রফিকুল ইসলাম জানান, নিহত বর্ষার লাশের সুরতহাল পর্যবেক্ষণে গলাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। এ ব্যাপারে বর্ষার বাবা মনজুর ভূঁইয়া বাদী হয়ে বর্ষার স্বামী নয়নকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা করেছেন। মামলা গ্রহণের পর বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, ময়নাতদন্ত রিপোর্ট পাওয়ার পর পরবর্তী আইনিব্যবস্থা নেয়া হবে।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×