নবাবগঞ্জে সাপের কামড়ে শিশুর মৃত্যু, অতঃপর...

  দিনাজপুর প্রতিনিধি ২৫ আগস্ট ২০১৯, ২২:৪৫ | অনলাইন সংস্করণ

সাপের কামড়

দিনাজপুরের নবাবগঞ্জে সাপের কামড়ে এক স্কুলছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। এ দিকে মৃত্যুর পর স্থানীয়দের পরামর্শে চলে লাশ নিয়ে ওঝার বাড়িতে দৌড়-ঝাঁপ ও ঝাড়-ফুঁক।

এরপরও বাবা-মায়ের একমাত্র সন্তান রিদনীরকে (৯) দাফন করে আসতে হল শেষ ঠিকানায়।

রিদনীর দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলার শ্যামপুর গ্রামের রাজেনুর রহমান রাজুর একমাত্র সন্তান। রিদনীর নবাবগঞ্জ উপজেলা পরিষদ বিদ্যানিকেতনের প্রথম শ্রেণির ছাত্র ছিল।

পারিবারিক সূত্রে জানায়, শনিবার সন্ধ্যায় বাবা-মা বাড়িতে না থাকায় গোয়ালঘরে গরুকে খাবার দিতে যায় রিদনীর। এ সময় তার পায়ে বিষাক্ত কিছু একটা কামড় দিয়েছে বলে চিৎকার করে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে সে।

প্রতিবেশীরা এসে তাকে উদ্ধার করে বাবা রাজেনুর রহমান রাজুকে মোবাইল ফোনে খবর দেন। এর পর তাকে নবাবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক অবস্থার অবনতি দেখে তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পরামর্শ দেন।

রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানকার চিকিৎসক রিদনীরকে মৃত ঘোষণা করেন। রাতেই তার লাশ বাড়িতে আনা হয়।

স্থানীয় সাংবাদিকরা জানান, রোববার বেলা সাড়ে ১১টার সময় গোসল করানোর সময় লাশ একটু নড়ে উঠে। এই অবস্থায় স্থানীয়দের পরামর্শে ছেলেকে বাঁচানোর চেষ্টায় লাশ নিয়ে যাওয়া হয় নবাবগঞ্জ উপজেলার খয়েরবাড়ি এলাকায় এক ওঝার বাড়িতে।

কিন্তু সেই ওঝা জানান, সে মারা গেছে, আর কোনো উপায় নেই। এরপর লাশ বাড়িতে এনে শেষ চেষ্টা হিসেবে আবার অন্য ওঝা ডেকে ঝাঁড়-ফুক চলে।

সব ওঝা বিফল হওয়ার পর রোববার বাদ জোহর স্থানীয় গোরস্থানে রিদনীর লাশ দাফন করা হয়।

শত চেষ্টা করেও একমাত্র সন্তানকে বাঁচাতে না পেরে শোকে মুহ্যমান হয়ে পড়েছে বাবা-মা। তার মৃত্যুতে পুরো গ্রামে নেমে এসেছে শোকের ছায়া।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×