খাদ্যের সন্ধানে এসে প্রাণ হারাল মেছো বাঘ

  হাটহাজারী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি ২৫ আগস্ট ২০১৯, ২২:৫৮ | অনলাইন সংস্করণ

খাদ্যের সন্ধানে এসে প্রাণ হারাল মেছো বাঘ
খাদ্যের সন্ধানে এসে প্রাণ হারাল মেছো বাঘ

মেছো বাঘ। ইংরেজি নাম ফিশিং কেট (fissing cat)। নামের সঙ্গে বাঘ কথাটি থাকলেও, নাম শুনে মাছ তাদের জীবনধারণের প্রধান খাদ্য উপাদান মনে হতে পারে।

তবে মাছ এদের মূল খাদ্য নয়। তাছাড়া মাছ শিকারি হিসেবে দক্ষও নয় তেমন।

এরা রাতে জলে লেজ ফেলে শব্দ করে এবং জলে প্রস্রাব করে। শব্দে ও প্রস্রাবের গন্ধে নাকি বড় মাছেরা খাবার ভেবে ছুটে আসে। তখন এরা মাছ ধরে ফেলে।

এদের খাদ্যতালিকায় আছে ধেনো ইঁদুর, নির্বিষ সাপ, বুনো খরগোশ, পাখি, কাঁকড়া, কচ্ছপ, শিয়াল, কুকুর, বাছুর, ছাগল, হাঁস-মুরগি ইত্যাদি।

রবিবার এমনি একটি মেছো বাঘের শাবকের (বাচ্চা) সন্ধান মেলে চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলার ফতেপুর ইউনিয়নের আলাওয়াল দীঘি এলাকায়। তবে জীবিত নয় মৃত।

বেলা সাড়ে ১১টার দিক ওই এলাকায় সরেজমিনে পরিদর্শনে গেলে দেখা যায়, প্রায় ৩ ফুট দৈর্ঘ্যরে মৃত মেছো বাঘটির পায়ে আঘাতের চিহৃ রয়েছে।

হাটহাজারী পৌরসভার ১১ মাইল এলাকার মো. সাজ্জাদ নামে এক যুবক আলাওয়াল দীঘি সংলগ্ন একটি ছড়ায় (খাল) মৃত ওই মেছো বাঘটিকে ফেলে দিতে দেখা গেছে। মেছো বাঘ লোকালয়ে কেন এ সম্পর্কে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক ড. মঞ্জুরুল কিবরিয়া এ প্রতিবেদককে বলেন, এক সময় দেশজুড়েই ছিল এদের বিচরণ। তবে এখন প্রাকৃতিক বন বাদাড়ে অন্যত্র মেছো বাঘ বিপন্ন। দেখা দিয়েছে মেছো বাঘের খাদ্যের অভাব। ফলে তারা মাঝেমাঝে খাদ্যের সন্ধানে ঢুকে পরে লোকালয়ে।

তিনি বলেন, এ মেছো বাঘটি কয়েকটি কারণে লোকালয়ে আসেত পারে। প্রথমত এই প্রাণীর খাদ্য সংকট দিন দিন বড় আকার ধারণ করছে। দ্বিতীয়ত প্রাকৃতিক জলাভূমি যখন ছিল তখন এর আশপাশে প্রচুর ঝোপঝাড় থাকত। দিনের বেলা মেছো বাঘগুলো এসব ঝোপঝাড়ে লুকিয়ে থাকত। তাদের মতে, এদের রক্ষায় সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে।

তিনি আরও জানান, মেছো বাঘ হয় দক্ষ শিকারি এবং তুখোড় লড়াকুও বটে। এদের শরীরে শক্তি ধরে প্রচণ্ড। গাছে চড়তে ওস্তাদ। রাতে গাছে চড়ে বড় পাখিসহ ওদের ডিম-ছানা খায়। কাঠবিড়ালি, তক্ষক, এমনকি গাছখাটাশও শিকার করে। অন্য বাঘ সাধারণত শজারুকে না ঘাঁটালেও এরা শজারু শিকারে অতিশয় দক্ষ।

লড়াইয়ে দেশি এক জোড়া কুকুরও এদের সঙ্গে পারবে না। মেছো বাঘ বছরে দুবার বাচ্চা দেয়। বাচ্চা পোষা যায়।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×