কমিশনারকে হয়রানি: বেনাপোল কাস্টমসে তদবিরবাজ আহসানের গ্রেফতার দাবি
jugantor
কমিশনারকে হয়রানি: বেনাপোল কাস্টমসে তদবিরবাজ আহসানের গ্রেফতার দাবি

  বেনাপোল প্রতিনিধি  

২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১২:৪৯:২৭  |  অনলাইন সংস্করণ

বেনাপোল কাস্টমসে তদবিরবাজ আহসান আলীকে গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছে সিএন্ডএফ এজেন্টস অ্যাসোসিয়েশন। দুদকের সহকারী পরিচালক পরিচয় দিয়ে আহসান কর ফাঁকি দেয়ার জন্য কাস্টমস কমিশনার বেলাল হোসেন চৌধুরীকে বারবার চাপ দিয়ে আসছে। তার চাপের কাছে নতিস্বীকার না করায় বেনামি অভিযোগ দিয়ে কমিশনারকের হয়রানি করা হচ্ছে। বেনামি অভিযোগ ও হয়রানি করার প্রতিবাদ জানিয়েছে বেনাপোল সিএন্ডএফ এজেন্টস অ্যাসোসিয়েশন।

বৃহস্পতিবার অ্যাসোসিয়েশনের নিজস্ব অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে অ্যাসোসিয়েশনের সিনিয়র সহসভাপতি নুরুজ্জামান লিখিত বক্তব্য দেন। তিনি বলেন, প্রতারক আহসান ২০ লাখ টাকা রাজস্ব ফাঁকি দেয়ার জন্য কাস্টমস কমিশনারকে চাপ দিয়ে আসছে। এরপর মিথ্যা ঘোষণায় আমদানি আড়াই হাজার কেজি ভায়াগ্রার চালান আটকের পর তা ছেড়ে দিতে চাপ প্রয়োগ করে ব্যর্থ হয়ে কাস্টমস কমিশনারের বিরুদ্ধে দুদকে বেনামি অভিযোগ করে। কমিশনারকে চাপ দেয়ার দৃশ্য গোপনে ধারণ করা ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে আরও বলা হয়, বেনামি অভিযোগের কারণে বন্দরের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মধ্যে অসন্তোষ দেখা দেয়। এতে বন্দরের কার্যক্রমের ওপর প্রভাব পড়ে। আমদানি-রফতানি কার্যক্রম একরকম বন্ধ হয় যায়। বন্দরের কোটি কোটি টাকা রাজস্ব আদায়েও সমস্যা দেখা দেয়। বাধ্য হয়ে অনেক আমদানিকারক অন্য বন্দরে চলে যাচ্ছেন।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, এ বন্দর দিয়ে ভারতের সঙ্গে প্রতিবছর ৩০ হাজার কোটি টাকার বাণিজ্য হয়। এখান থেকে প্রতিবছর সাড়ে পাঁচ হাজার কোটি টাকার রাজস্ব আদায় হয়। বেনাপোল বন্দরের ব্যবসাবান্ধব পরিবেশ বজায় রাখতে কাস্টমস কমিশনার, সিএন্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশন, স্টেকহোল্ডার এবং স্থানীয় প্রশাসন অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছে। তবে কমিশনারকে হয়রানির কারণে বন্দরের স্বাভাবিক কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে। ফলে বেনাপোল বন্দর ব্যবহারকারীরাও হয়রানির শিকার হচ্ছে। বেনাপোল বন্দর দিয়ে আমদানি-রফতানি গতিশীল করতে কাস্টমস কমিশনারকে অহেতুক হয়রানি বন্ধে তদবিরবাজ আহসান আলীকে আটকের দাবি জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক এমদাদুল হক লতা। এ সময় সাবেক সভাপতি শামছুর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মহসিন মিলন, জামাল হোসেন, কাস্টমসবিষয়ক সম্পাদক নাসির উদ্দিন, কামাল উদ্দিন শিমুল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

কমিশনারকে হয়রানি: বেনাপোল কাস্টমসে তদবিরবাজ আহসানের গ্রেফতার দাবি

 বেনাপোল প্রতিনিধি 
২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১২:৪৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বেনাপোল কাস্টমসে তদবিরবাজ আহসান আলীকে গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছে সিএন্ডএফ এজেন্টস অ্যাসোসিয়েশন। দুদকের সহকারী পরিচালক পরিচয় দিয়ে আহসান কর ফাঁকি দেয়ার জন্য কাস্টমস কমিশনার বেলাল হোসেন চৌধুরীকে বারবার চাপ দিয়ে আসছে। তার চাপের কাছে নতিস্বীকার না করায় বেনামি অভিযোগ দিয়ে কমিশনারকের হয়রানি করা হচ্ছে। বেনামি অভিযোগ ও হয়রানি করার প্রতিবাদ জানিয়েছে বেনাপোল সিএন্ডএফ এজেন্টস অ্যাসোসিয়েশন।

বৃহস্পতিবার অ্যাসোসিয়েশনের নিজস্ব অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে অ্যাসোসিয়েশনের সিনিয়র সহসভাপতি নুরুজ্জামান লিখিত বক্তব্য দেন। তিনি বলেন, প্রতারক আহসান ২০ লাখ টাকা রাজস্ব ফাঁকি দেয়ার জন্য কাস্টমস কমিশনারকে চাপ দিয়ে আসছে। এরপর মিথ্যা ঘোষণায় আমদানি আড়াই হাজার কেজি ভায়াগ্রার চালান আটকের পর তা ছেড়ে দিতে চাপ প্রয়োগ করে ব্যর্থ হয়ে কাস্টমস কমিশনারের বিরুদ্ধে দুদকে বেনামি অভিযোগ করে। কমিশনারকে চাপ দেয়ার দৃশ্য গোপনে ধারণ করা ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। 

সংবাদ সম্মেলনে আরও বলা হয়, বেনামি অভিযোগের কারণে বন্দরের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মধ্যে অসন্তোষ দেখা দেয়। এতে বন্দরের কার্যক্রমের ওপর প্রভাব পড়ে। আমদানি-রফতানি কার্যক্রম একরকম বন্ধ হয় যায়। বন্দরের কোটি কোটি টাকা রাজস্ব আদায়েও সমস্যা দেখা দেয়। বাধ্য হয়ে অনেক আমদানিকারক অন্য বন্দরে চলে যাচ্ছেন।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, এ বন্দর দিয়ে ভারতের সঙ্গে প্রতিবছর ৩০ হাজার কোটি টাকার বাণিজ্য হয়। এখান থেকে প্রতিবছর সাড়ে পাঁচ হাজার কোটি টাকার রাজস্ব আদায় হয়। বেনাপোল বন্দরের ব্যবসাবান্ধব পরিবেশ বজায় রাখতে কাস্টমস কমিশনার, সিএন্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশন, স্টেকহোল্ডার এবং স্থানীয় প্রশাসন অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছে। তবে কমিশনারকে হয়রানির কারণে বন্দরের স্বাভাবিক কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে। ফলে বেনাপোল বন্দর ব্যবহারকারীরাও হয়রানির শিকার হচ্ছে। বেনাপোল বন্দর দিয়ে আমদানি-রফতানি গতিশীল করতে কাস্টমস কমিশনারকে অহেতুক হয়রানি বন্ধে তদবিরবাজ আহসান আলীকে আটকের দাবি জানানো হয়। 

সংবাদ সম্মেলনে বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক এমদাদুল হক লতা। এ সময় সাবেক সভাপতি শামছুর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মহসিন মিলন, জামাল হোসেন, কাস্টমসবিষয়ক সম্পাদক নাসির উদ্দিন, কামাল উদ্দিন শিমুল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

 

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন