নারায়ণগঞ্জে শিক্ষকের থাপ্পড়েই কলেজছাত্রী অজ্ঞান

  ফতুল্লা (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২২:৫৩ | অনলাইন সংস্করণ

নারায়ণগঞ্জ সরকারি মহিলা কলেজ
নারায়ণগঞ্জ সরকারি মহিলা কলেজ

নারায়ণগঞ্জ শহরের সরকারি মহিলা কলেজে শিক্ষকের মারধরে এক ছাত্রী অচেতন হয়ে পড়েছে। পরে তাকে শহরের খানপুর ৩০০ শয্যা হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

তবে এ ঘটনায় কলেজ কর্তৃপক্ষ কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি। এতে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে ছাত্রীর অভিভাবকেরা। আর সম্পূর্ণ অভিযোগ অস্বীকার করেছে কলেজের শিক্ষকরা।

রোববার সকাল সাড়ে ৯টায় মহিলা কলেজের একাদশ শ্রেণির ক' শাখায় ওই ঘটনা ঘটে। চিকিৎসার এক ঘণ্টা পর ওই ছাত্রী সুস্থ হয় বলে জানা গেছে।

প্রথম বর্ষের ছাত্রীর তন্বীর (১৭) বাড়ি ফতুল্লার ভূঁইগড় মাহমুদপুর এলাকায়। অভিযুক্ত শিক্ষক হল কলেজের ইংরেজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সোলায়মান খন্দকার ওরফে সায়মন।

ছাত্রীর চাচা আতাউর রহমান জানান, সকালে ইংরেজির প্রথম ক্লাস ছিল। কিন্তু তন্বী সেটা জানতো না। ফলে সে ইংরেজি বই নিয়ে আসেনি। ওই সময় শিক্ষক সায়মন ক্লাস রুম থেকে বের হয়ে পিছনের দরজা দিয়ে ভেতরে প্রবেশ করে। আর পিছন থেকে পিঠে একটি থাপ্পড় দেন।

তিনি বলেন, আচমকা থাপ্পড় দেয়ায় ক্লাস রুমে অচেতন হয়ে পড়ে সে। পরে কলেজের অন্য ছাত্রীরা তাকে খানপুর হাসপাতালে নিয়ে যায়। খবর পেয়ে আমরা হাসপাতালে যাই। সেখানে এক ঘণ্টা চিকিৎসা শেষে সুস্থ হলে আবার কলেজে নিয়ে আসি। কিন্তু এ বিষয়ে উপাধ্যক্ষের রুমে গেলে তিনি কোনো কথা না শুনেই বের হয়ে যান।

ক্ষোভ প্রকাশ করে আতউর রহমান বলেন, একটি ছাত্রীর শরীরে হাত দিয়ে আঘাত করার কোনো আইন নেই। তাছাড়া মেয়েদের শরীরে কেন হাত দিবে। এত বড় একটা অপরাধ করার পরও কলেজ কর্তৃপক্ষ কোনো কথা শুনতে রাজি নয়। তারা পুরো বিষয়টা না শুনে চলে গেছে। এটা অভিভাবক হিসেবে দুঃখজনক। তাহলে মেয়েদের নিরাপত্তার কি থাকল।

এদিকে ছাত্রীকে মারধরের ঘটনাটি অস্বীকার করে নারায়ণগঞ্জ সরকারি মহিলা কলেজের ভাইস-প্রিন্সিপাল অধ্যাপক মো. দবিউর রহমান সাংবাদিকদের বলেন, মারধরের কোনো ঘটনা ঘটেনি। ছাত্রীটি আগে থেকেই অসুস্থ ছিল।

নারায়ণগঞ্জ মহিলা কলেজের সহকারী অধ্যাপক সোলায়মান খন্দকার ওরফে সায়মন ও অধ্যক্ষ বেদৌরা বিনতে হাবিবের মোবাইলে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও তারা ফোন রিসিভ করেননি।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×