‘খালেদা জিয়ার ফুলগাজী এখন টুঙ্গিপাড়া হবে’
jugantor
‘খালেদা জিয়ার ফুলগাজী এখন টুঙ্গিপাড়া হবে’

  ফেনী প্রতিনিধি  

২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২৩:০৫:১০  |  অনলাইন সংস্করণ

ফেনী জেলা আওয়ামী লীগের প্রধান উপদেষ্টা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাবেক প্রটোকল অফিসার আলাউদ্দিন আহমেদ নাসিম বলেছেন, খালেদার ফুলগাজী ধীরে ধীরে টুঙ্গিপাড়ায় পরিণত হচ্ছে। খালেদা জিয়াকে ফেনীর ফুলগাজীর মেয়ে বলা হলেও তিনি এ এলাকাকে নিজের এলাকা হিসেবে গণ্য করেননি।

তিনি বলেন, খালেদা জিয়া ইচ্ছা করলে এ জনপদে হাজার হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন করতে পারতেন। কিন্তু তা তিনি করেননি। সে কারণে ফুলগাজীর মানুষ বিএনপিকে প্রত্যাখ্যান করেছে। উন্নয়নের জোয়ারের কারণে এ জনপদের মানুষ আওয়ামী লীগের পতাকার তলে এসেছেন।

রোববার বিকালে ফুলগাজী পাইলট হাইস্কুল মাঠে উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

এ সময় তিনি আরও বলেন, ৮৫০ কোটি টাকা ব্যায়ে মহুরী কহুয়া বন্যা নিয়ন্ত্রণ প্রকল্প একনেকে অনুমোদন হতে চলেছে। আগামী ৬ মাসের মধ্যে কাজ শুরু হবে। আমরা সবাই বঙ্গবন্ধুর লোক। আমার নিজের কোনো লোক নেই।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জামাল উদ্দিনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আবদুল আলীমের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা ছিলেন ফেনী-২ আসনের সংসদ সদস্য নিজাম উদ্দিন হাজারী।

সম্মেলন উদ্বোধন করেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুর রহমান বি.কম।

বিশেষ অতিথি হিসেবে আরও বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট আক্রামুজ্জামান, সহ-সভাপিত হাফেজ আহম্মদ, খায়রুল বাশার তপন, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী জাহানারা বেগম সুরমা,যুবলীগের সভাপতি দিদারুল কবির রতন, ফেনী সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ ও জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শুসেন চন্দ্র শীল, ফেনীর পৌর কাউন্সিলর বাহার উদ্দিন বাহার।

সম্মেলনে সর্বসম্মতিক্রমে সাবেক কমিটির সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুল আলীম মজুমদারকে সভাপতি ও সাংগঠনিক সম্পাদক হারুন মজুমদারকে সাধারণ সম্পাদক ঘোষণা করা হয়।

‘খালেদা জিয়ার ফুলগাজী এখন টুঙ্গিপাড়া হবে’

 ফেনী প্রতিনিধি 
২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১১:০৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ফেনী জেলা আওয়ামী লীগের প্রধান উপদেষ্টা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাবেক প্রটোকল অফিসার আলাউদ্দিন আহমেদ নাসিম বলেছেন, খালেদার ফুলগাজী ধীরে ধীরে টুঙ্গিপাড়ায় পরিণত হচ্ছে। খালেদা জিয়াকে ফেনীর ফুলগাজীর মেয়ে বলা হলেও তিনি এ এলাকাকে নিজের এলাকা হিসেবে গণ্য করেননি।

তিনি বলেন, খালেদা জিয়া ইচ্ছা করলে এ জনপদে হাজার হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন করতে পারতেন। কিন্তু তা তিনি করেননি। সে কারণে ফুলগাজীর মানুষ বিএনপিকে প্রত্যাখ্যান করেছে। উন্নয়নের জোয়ারের কারণে এ জনপদের মানুষ আওয়ামী লীগের পতাকার তলে এসেছেন।

রোববার বিকালে ফুলগাজী পাইলট হাইস্কুল মাঠে উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

এ সময় তিনি আরও বলেন, ৮৫০ কোটি টাকা ব্যায়ে মহুরী কহুয়া বন্যা নিয়ন্ত্রণ প্রকল্প একনেকে অনুমোদন হতে চলেছে। আগামী ৬ মাসের মধ্যে কাজ শুরু হবে। আমরা সবাই বঙ্গবন্ধুর লোক। আমার নিজের কোনো লোক নেই।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জামাল উদ্দিনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আবদুল আলীমের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা ছিলেন ফেনী-২ আসনের সংসদ সদস্য নিজাম উদ্দিন হাজারী।

সম্মেলন উদ্বোধন করেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুর রহমান বি.কম।

বিশেষ অতিথি হিসেবে আরও বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট আক্রামুজ্জামান, সহ-সভাপিত হাফেজ আহম্মদ, খায়রুল বাশার তপন, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী জাহানারা বেগম সুরমা,যুবলীগের সভাপতি দিদারুল কবির রতন, ফেনী সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ ও জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শুসেন চন্দ্র শীল, ফেনীর পৌর কাউন্সিলর বাহার উদ্দিন বাহার।

সম্মেলনে সর্বসম্মতিক্রমে সাবেক কমিটির সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুল আলীম মজুমদারকে সভাপতি ও সাংগঠনিক সম্পাদক হারুন মজুমদারকে সাধারণ সম্পাদক ঘোষণা করা হয়।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন