ভিডিও করায় মোবাইল কেড়ে নিয়ে পুলিশকে পেটালেন যুবলীগ নেতা

  গাইবান্ধা ও সাদুল্যাপুর প্রতিনিধি ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২০:০২ | অনলাইন সংস্করণ

যুবলীগ নেতার মুক্তির দাবিতে মিছিল
যুবলীগ নেতার মুক্তির দাবিতে মিছিল। ছবি: যুগান্তর

গাইবান্ধার সাদুল্যাপুরে পুলিশের সঙ্গে ঝগড়া করার ভিডিও ধারণ করায় পুলিশের এএসআইকে থাপ্পড় ও ওসিকে ধাক্কা মারার অভিযোগ উঠেছে রাব্বী শাহান পলাশ (৩৪) নামে এক যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার ধাপেরহাটে এ ঘটনা ঘটে।

রাব্বী শাহান পলাশ ধাপেরহাট ইউনিয়ন যুবলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও ধাপেরহাট পালানপাড়া চাঁন মিয়া ছেলে। এ ঘটনায় তাকে আটক করে পুলিশ।

ধাপেরহাট পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ওসি নওয়াবুর রহমান জানান, ধাপেরহাট বন্দরের পালানপাড়ায় মাস্টার হাউস নামে এক বাড়িতে ভাড়া থাকতেন সহিদ সরকার ও মামুনি আকতার নামে এক ব্যবসায়ী দম্পতি। সম্প্রতি তাদের মধ্যে পারিবারিক দ্বন্দ্ব সৃষ্টি হয়।

এ কারণে মঙ্গলবার দুপুরে স্থানীয় কিছু যুবকের সহায়তায় মামুনি আকতার বাড়ির আসবাবপত্র নিয়ে বাবার বাড়ি যাওয়ার উদ্যোগ নেয়। বিষয়টি নিয়ে সহিদ সরকার পুলিশকে লিখিত অভিযোগ দেন।

পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে যুবলীগ নেতা রাব্বী শাহান পলাশ তাদের ওপর চড়াও হয় এবং তাদের মধ্যে বাক-বিতণ্ডা শুরু হয়। এ সময় পুলিশের এএসআই আজিজুর রহমান ঘটনাটি মোবাইলে ভিডিও করতে শুরু করলে যুবলীগ নেতা পলাশ তার মোবাইলটি কেড়ে নেন এবং তাকে থাপ্পড় মারেন।

বিষয়টি নিয়ে প্রতিবাদ করলে তাকেও (ইনচার্জ নওয়াবুর রহমান) ধাক্কা মারেন। পুলিশ তখন তাকে আটক করে তদন্ত কেন্দ্রে নিয়ে যায়।

তিনি আরও জানান, পরে স্থানীয় লোকজন ও দলীয় নেতাকর্মী তদন্ত কেন্দ্র ঘেরাও করলে তিন রাউন্ড শটগানের গুলি ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করা হয়।

তবে যুবলীগ নেতা রাব্বী শাহান পলাশ জানান, ঘটনাস্থলে পুলিশ উপস্থিত হলে তিনি তাদের জানান এটি একটি পারিবারিক বিষয়। আমরা স্থানীয়ভাবে বিষয়টি মীমাংসা করার চেষ্টা করছি। আপনারা চলে যান। কিন্তু তারপরও মোবাইল ফোনে পুলিশ ভিডিও করার চেষ্টা করলে তাদের নিষেধ করেন। কিন্তু এতে পুলিশ উত্তেজিত হয়ে তাকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

এদিকে এ ঘটনায় বিকালে পলাশের মুক্তি ও ধাপেরহাট পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জের অপসারণের দাবিতে স্থানীয় লোকজন ও দলীয় নেতাকর্মী সেখানে বিক্ষোভ মিছিল করেন।

সন্ধ্যা ৭টায় সাদুল্লাপুর থানার ওসি মাসুদ রানা জানান, পরিস্থিতি এখন শান্ত। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এ ছাড়া এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে সরকারি কাজে বাধা ও পুলিশকে মারপিটের অভিযোগে একটি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×