রিফাত হত্যা: আত্মসমর্পণ করা সেই ৪ আসামির জামিন নামঞ্জুর
jugantor
রিফাত হত্যা: আত্মসমর্পণ করা সেই ৪ আসামির জামিন নামঞ্জুর

  বরগুনা (দক্ষিণ) প্রতিনিধি  

০৬ অক্টোবর ২০১৯, ১৫:১০:১৫  |  অনলাইন সংস্করণ

রিফাত হত্যা: আত্মসমর্পণ করা সেই ৪ আসামির জামিন নামঞ্জুর
ফাইল ছবি

বরগুনায় আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যা মামলার চার্জশিটভুক্ত আরও চার আসামি বরগুনার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে স্বেচ্ছায় আত্মসমর্পণ করেছেন। 

রোববার  সকাল সাড়ে ১০টায় ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম গাজী প্রাপ্তবয়স্ক আসামি মোহাইমিনুল ইসলাম সিফাতের জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করে তাকে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন। 

তিন কিশোর অপরাধীদের জামিন শুনানির জন্য নথি শিশু আদালতে পাঠানো হয়। এর পর শিশু আদালত তাদের জামিন নামঞ্জুর করেন বিচারক মো. হাফিজুর রহমান।

জানা যায়, সকাল ১০টায় চার আসামি বরগুনা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ওই আসামিরা আত্মসমর্পণ করেন। শুনানি শেষে প্রাপ্তবয়স্ক মোহাইমিনুল ইসলাম সিফাতের জামিন নামঞ্জুর করে তাকে জেলহাজতে পাঠানোর  নির্দেশ দেন।

আত্মসমর্পণ করা অপ্রাপ্তবয়স্ক অপর তিন আসামি হলেন- রাকিবুল হাসান রিফাত হাওলাদার, প্রিন্স মোল্লা ও আবু আবদুল্লাহ। এদের জামিন শিশু আদালতে শুনানি শেষে তাদের জামিন নামঞ্জুর করে যশোর শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন। 

কিশোর অপরাধীর পক্ষের আইনজীবী মো. শাহজাহান যুগান্তরকে বলেন, এই শিশুরা রিফাত হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত ছিল না। তাদের অহেতুক এ মামলায় জড়ানো হয়েছে। শিশুদের জামিন দিলে তারা পলাতক হবে না। 

তিনি বলেন, যে শিশুরা স্বেচ্ছায় হাজির হয়েছে তাদের পলাতক হওয়ার সম্ভাবনা নেই। 

অন্যদিকে শিশু আদালতের বিশেষ পিপি মোস্তাফিজুর রহমান যুগান্তরকে বলেন, রিফাত শরীফ হত্যা মামলা একটি স্পর্শকাতর মামলা। এ মামলার আসামিরা পরিকল্পিতভাবে রিফাতকে হত্যা করেছে। 

দেশে কিশোর গ্যাং কালচার এখন অপরাধ জগতে ঢুকে গেছে। এদের জামিন দিলে অপরাধ আরও বাড়বে। উভয়পক্ষের বক্তব্য শুনে বিচারক মো. হাফিজুর রহমান আসামিদের জামিন না মঞ্জুর করেন।

রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় অভিযুক্ত ২৪ জনের মধ্যে ১৫ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এদের মধ্যে ৬ জন অপ্রাপ্তবয়স্ক। এ ছাড়া পলাতক ছিলেন আরও আট আসামি। যাদের মধ্যে আজ রোববার ওই চার আসামি আত্মসমর্পণ করেছেন।

বর্তমানে পলাতক রয়েছে আরও  চার আসামি। তারা হলেন- মামলার প্রাপ্তবয়স্ক অভিযুক্ত মুছা, হাসান, কিশোর অভিযুক্ত সাইয়েদ মারুফ বিল্লাহ ওরফে মহিবুল্লাহ ও নাইম। 

এ মামলার এজাহারে প্রধান আসামি নয়ন বন্ড ২ জুলাই পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হওয়ায় তাকে মামলা থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। এখন প্রধান আসামি রিফাত ফরাজি।

উল্লেখ্য, ২৬ জুন প্রকাশ্য দিবালোকে বরগুনা সরকারি কলেজ ফটকের সামনে রিফাত শরীফকে নয়ন বন্ডরা কুপিয়ে জখম করে। 

পরে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রিফাতের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় রিফাতের বাবা আবদুল হালিম শরীফ ২৭ জুন বাদী হয়ে বরগুনা থানায় ১২ আসামির বিরুদ্ধে একটি মামলা করেন।

রিফাত হত্যা: আত্মসমর্পণ করা সেই ৪ আসামির জামিন নামঞ্জুর

 বরগুনা (দক্ষিণ) প্রতিনিধি 
০৬ অক্টোবর ২০১৯, ০৩:১০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
রিফাত হত্যা: আত্মসমর্পণ করা সেই ৪ আসামির জামিন নামঞ্জুর
ফাইল ছবি

বরগুনায় আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যা মামলার চার্জশিটভুক্ত আরও চার আসামি বরগুনার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে স্বেচ্ছায় আত্মসমর্পণ করেছেন।

রোববার সকাল সাড়ে ১০টায় ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম গাজী প্রাপ্তবয়স্ক আসামি মোহাইমিনুল ইসলাম সিফাতের জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করে তাকে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

তিন কিশোর অপরাধীদের জামিন শুনানির জন্য নথি শিশু আদালতে পাঠানো হয়। এর পর শিশু আদালত তাদের জামিন নামঞ্জুর করেন বিচারক মো. হাফিজুর রহমান।

জানা যায়, সকাল ১০টায় চার আসামি বরগুনা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ওই আসামিরা আত্মসমর্পণ করেন। শুনানি শেষে প্রাপ্তবয়স্ক মোহাইমিনুল ইসলাম সিফাতের জামিন নামঞ্জুর করে তাকে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

আত্মসমর্পণ করা অপ্রাপ্তবয়স্ক অপর তিন আসামি হলেন- রাকিবুল হাসান রিফাত হাওলাদার, প্রিন্স মোল্লা ও আবু আবদুল্লাহ। এদের জামিন শিশু আদালতে শুনানি শেষে তাদের জামিন নামঞ্জুর করে যশোর শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন।

কিশোর অপরাধীর পক্ষের আইনজীবী মো. শাহজাহান যুগান্তরকে বলেন, এই শিশুরা রিফাত হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত ছিল না। তাদের অহেতুক এ মামলায় জড়ানো হয়েছে। শিশুদের জামিন দিলে তারা পলাতক হবে না।

তিনি বলেন, যে শিশুরা স্বেচ্ছায় হাজির হয়েছে তাদের পলাতক হওয়ার সম্ভাবনা নেই।

অন্যদিকে শিশু আদালতের বিশেষ পিপি মোস্তাফিজুর রহমান যুগান্তরকে বলেন, রিফাত শরীফ হত্যা মামলা একটি স্পর্শকাতর মামলা। এ মামলার আসামিরা পরিকল্পিতভাবে রিফাতকে হত্যা করেছে।

দেশে কিশোর গ্যাং কালচার এখন অপরাধ জগতে ঢুকে গেছে। এদের জামিন দিলে অপরাধ আরও বাড়বে। উভয়পক্ষের বক্তব্য শুনে বিচারক মো. হাফিজুর রহমান আসামিদের জামিন না মঞ্জুর করেন।

রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় অভিযুক্ত ২৪ জনের মধ্যে ১৫ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এদের মধ্যে ৬ জন অপ্রাপ্তবয়স্ক। এ ছাড়া পলাতক ছিলেন আরও আট আসামি। যাদের মধ্যে আজ রোববার ওই চার আসামি আত্মসমর্পণ করেছেন।

বর্তমানে পলাতক রয়েছে আরও চার আসামি। তারা হলেন- মামলার প্রাপ্তবয়স্ক অভিযুক্ত মুছা, হাসান, কিশোর অভিযুক্ত সাইয়েদ মারুফ বিল্লাহ ওরফে মহিবুল্লাহ ও নাইম।

এ মামলার এজাহারে প্রধান আসামি নয়ন বন্ড ২ জুলাই পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হওয়ায় তাকে মামলা থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। এখন প্রধান আসামি রিফাত ফরাজি।

উল্লেখ্য, ২৬ জুন প্রকাশ্য দিবালোকে বরগুনা সরকারি কলেজ ফটকের সামনে রিফাত শরীফকে নয়ন বন্ডরা কুপিয়ে জখম করে।

পরে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রিফাতের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় রিফাতের বাবা আবদুল হালিম শরীফ ২৭ জুন বাদী হয়ে বরগুনা থানায় ১২ আসামির বিরুদ্ধে একটি মামলা করেন।

 

ঘটনাপ্রবাহ : রিফাতকে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা