প্রকাশ্যে কুপিয়ে সরকারি প্রকল্পের ৮ লাখ টাকা ছিনতাই

  শ্রীমঙ্গল (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি ০১ মার্চ ২০১৮, ২০:০২ | অনলাইন সংস্করণ

ছিনতাই
প্রতীকী ছবি

মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে প্রকাশ্যে সরকারি প্রকল্পের আট লাখ টাকা ছিনতাই হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুর ১টার দিকে শ্রীমঙ্গল শহরের কোর্ট রোড (উপজেলা অফিস) এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, দুপুর সাড়ে ১২টায় কমলগঞ্জের ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান আলী ট্রেডার্সের প্রতিনিধি সাইদুর রহমান শ্রীমঙ্গল উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিস থেকে আট লাখ টাকার একটি চেক নিয়ে সোনালী ব্যাংক শ্রীমঙ্গল শাখা থেকে উত্তোলন করেন। পরে সিএনজিচালিত অটোরিকশাযোগে আবার শ্রীমঙ্গল উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসে ফিরছিলেন।

সাইদুর রহমান কোর্ট রোডের সেবী ভিলার কাছে এলে দুটি মোটরসাইকেলে থাকা পাঁচজন ছিনতাইকারী তার পথরোধ করে। এ সময় ছিনতাইকারীরা তাকে চাপাতি দিয়ে কোপ দেয়। এতে উরুতে থাকা মোবাইল ফোনটি ভেঙে যায়। এরপর ছিনতাইকারীরা সাইদুর রহমানের কাছে থাকা আট লাখ টাকা ভর্তি ব্যাগ ছিনিয়ে নিয়ে পালিয়ে যায়।

একই কায়দায় গত বছরের ১৯ নভেম্বর উপজেলা পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অর্ধেন্দু কুমার ব্যাংক থেকে ৫ লাখ টাকা তুলে বাড়ি ফেরার পথে প্রকাশ্য দিনের বেলায় ছিনতাইকারীরা তাকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যায়। এর কয়েক দিন আগে দিনের বেলায় একই কায়দায় শ্রীমঙ্গলে স্থানীয় এক বিকাশ এজেন্টকে কুপিয়ে ২০ লাখ টাকা ছিনতাই হয়। আলোচিত এসব ঘটনায় আজ পর্যন্ত কোনো টাকা উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ।

সাইদুর রহমান জানান, ছিনতাইকারীরা তার ব্যাগে থাকা এক হাজার টাকার নোটের আটটি বান্ডিলে থাকা আট লাখ টাকা নিয়ে গেছে।

শাহীন মিয়া নামে এক প্রত্যক্ষদর্শী বলেন, ভরদুপুরে সড়কে অনেক মানুষ আর যানবাহন চলাচল করছে। এর মাঝে দুটি মোটরসাইকেলে থাকা ৪-৫ জন ছিনতাইকারী সিএনজিতে বসা লোকটিকে চাপতি দিয়ে কুপিয়ে টাকা ভর্তি ব্যাগ নিয়ে দ্রুত পালিয়ে যায়। প্রকাশ্যে এই ঘটনায় এলাকার লোকজন হতভম্ব হয়ে পড়েন।

শ্রীমঙ্গল থানার ওসি কেএম নজরুল বলেন, এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কেউ কোনো অভিযোগ করেনি।

থানায় অভিযোগ করার বিষয়ে জানতে ফোন করা হলে ছিনতাইয়ের শিকার সাইদুর রহমানের ফোন খোলা পাওয়া যায়নি। পরে কমলগঞ্জস্থ আলী ট্রেডাসের স্বত্বাধিকারী সফিকুর রহমান কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এখনও অভিযোগ করা হয়নি, অভিযোগ করার বিষয়ে চিন্তাভাবনা চলছে- এরপর তিনি ফোনের সুইচড বন্ধ করে দেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মোবাশশেরুল ইসলাম বলেন, ঠিকাদারের প্রতিনিধি সাইদুর রহমান ‘জমি আছে ঘর নাই’ নামে সরকারি প্রকল্প কাজের বিল বাবদ আট লাখ টাকার একটি চেক পিএ অফিস থেকে নিয়ে সোনালী ব্যাংক থেকে ক্যাশ করে আবার শ্রীমঙ্গল উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার অফিসে আসছিলেন। উপজেলা চত্বরের কাছাকাছি আসার পর ছিনতাইকারীরা কুপিয়ে তার থেকে টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যায়। ভুক্তভোগী মামলা করতেও ভয় পাচ্ছেন বলে তিনি জানান।

তিনি আরও বলেন, ওসি কেএম নজরুল তাকে জানিয়েছেন, সেখানকার একটি ভবনের সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

উল্লেখ্য, গত বছরের ১৯ নভেম্বর উপজেলা পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অর্ধেন্দু কুমার ব্যাংক থেকে পাঁচ লাখ টাকা তুলে বাড়ি ফেরার পথে দিনের বেলায় ছিনতাইকারীরা তাকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যায়। এর কয়েক দিন আগে দিনের বেলায় একই কায়দায় শ্রীমঙ্গলে স্থানীয় এক বিকাশ এজেন্টকে কুপিয়ে ২০ লাখ টাকা ছিনতাই হয়। আলোচিত এসব ঘটনায় আজ পর্যন্ত কোনো টাকা উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×