শায়েখ আবদুর রহমানের অনুসারী মিশুক ও রুমি রিমান্ডে
jugantor
শায়েখ আবদুর রহমানের অনুসারী মিশুক ও রুমি রিমান্ডে

  ফতুল্লা (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি  

০৯ অক্টোবর ২০১৯, ২৩:০৮:০৬  |  অনলাইন সংস্করণ

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা থেকে কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের হাতে গ্রেফতার মিশুক খান ওরফে মাহের মিশাল ওরফে আবু উবায়েদ ওরফে মোহাম্মদ আরী ও ফরিদ উদ্দিন রুমির এক দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

বুধবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নুরুন্নাহার ইয়াসমিনের আদালত শুনানি শেষে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে সন্ত্রাস বিরোধী আইনে দায়ের করা সিদ্ধিরগঞ্জ থানার একটি মামলায় ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হয়।

কোর্ট পুলিশের এসআই কামাল হোসেনের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

আদালত সূত্র জানান, ২০১৮ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর সিদ্ধিরগঞ্জের উত্তর মাদানীনগর এলাকায় জেএমবির ৪০/৪১ জন নাশকতার পরিকল্পনায় গোপন বৈঠক করার সময় র‌্যাব সদস্যরা সংবাদ পেয়ে সেখান থেকে কয়েকজনকে আটক করে মামলা দায়ের করেন। এরপর আটককৃতদের দেয়া তথ্যে তাদের অনেকের নাম পরিচয় পায় র‌্যাব। এদের মধ্যে মিশুক খান ও রুমি অন্যতম।

সম্প্রতি ফতুল্লার তক্কারমাঠ এলাকা থেকে কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট তাদের দুজনকে গ্রেফতার করে এবং তাদের কাছ থেকে বিপুল পরিমানের বিস্ফোরক উদ্ধার করে তা ধ্বংস করেছে।

এ ঘটনায় কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট তাদের বিরুদ্ধে ফতুল্লা মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

সূত্রটি আরও জানান, গ্রেফতারকৃতরা নিষিদ্ধ ঘোষিত জামা’আতুল মুজাহিদীন বাংলাদেশ জেএমবির মৃত্যুদণ্ডের সাজা কার্যকর হওয়া শায়েখ আবদুর রহমান এবং কারাগারে আটক জসিম উদ্দিন রাহমানীর অনুসারী।

তারা নারায়ণগঞ্জ-ঢাকা, মুন্সিগঞ্জ, গাজীপুর ও নরসিংদী জেলায় নাশকতার পরিকল্পনা করেছিলেন। কিন্তু এর আগেই র‌্যাব ও কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট তাদের প্রতিহত করেন।

এদের মধ্যে যারা পলাতক রয়েছে তাদের গ্রেফতারের অভিযান চলছে বলে সূত্রটি জানায়।

শায়েখ আবদুর রহমানের অনুসারী মিশুক ও রুমি রিমান্ডে

 ফতুল্লা (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি 
০৯ অক্টোবর ২০১৯, ১১:০৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা থেকে কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের হাতে গ্রেফতার মিশুক খান ওরফে মাহের মিশাল ওরফে আবু উবায়েদ ওরফে মোহাম্মদ আরী ও ফরিদ উদ্দিন রুমির এক দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

বুধবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নুরুন্নাহার ইয়াসমিনের আদালত শুনানি শেষে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে সন্ত্রাস বিরোধী আইনে দায়ের করা সিদ্ধিরগঞ্জ থানার একটি মামলায় ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হয়।

কোর্ট পুলিশের এসআই কামাল হোসেনের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

আদালত সূত্র জানান, ২০১৮ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর সিদ্ধিরগঞ্জের উত্তর মাদানীনগর এলাকায় জেএমবির ৪০/৪১ জন নাশকতার পরিকল্পনায় গোপন বৈঠক করার সময় র‌্যাব সদস্যরা সংবাদ পেয়ে সেখান থেকে কয়েকজনকে আটক করে মামলা দায়ের করেন। এরপর আটককৃতদের দেয়া তথ্যে তাদের অনেকের নাম পরিচয় পায় র‌্যাব। এদের মধ্যে মিশুক খান ও রুমি অন্যতম।

সম্প্রতি ফতুল্লার তক্কারমাঠ এলাকা থেকে কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট তাদের দুজনকে গ্রেফতার করে এবং তাদের কাছ থেকে বিপুল পরিমানের বিস্ফোরক উদ্ধার করে তা ধ্বংস করেছে।

এ ঘটনায় কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট তাদের বিরুদ্ধে ফতুল্লা মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

সূত্রটি আরও জানান, গ্রেফতারকৃতরা নিষিদ্ধ ঘোষিত জামা’আতুল মুজাহিদীন বাংলাদেশ জেএমবির মৃত্যুদণ্ডের সাজা কার্যকর হওয়া শায়েখ আবদুর রহমান এবং কারাগারে আটক জসিম উদ্দিন রাহমানীর অনুসারী।

তারা নারায়ণগঞ্জ-ঢাকা, মুন্সিগঞ্জ, গাজীপুর ও নরসিংদী জেলায় নাশকতার পরিকল্পনা করেছিলেন। কিন্তু এর আগেই র‌্যাব ও কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট তাদের প্রতিহত করেন।

এদের মধ্যে যারা পলাতক রয়েছে তাদের গ্রেফতারের অভিযান চলছে বলে সূত্রটি জানায়।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন