হত্যাকারীদের বিচার করতে দীর্ঘ অপেক্ষার তো দরকার নেই: আবরারের মা

  কুষ্টিয়া প্রতিনিধি ১৩ অক্টোবর ২০১৯, ২২:২৯ | অনলাইন সংস্করণ

আবরারের মা রোকেয়া বগম
আবরারের মা রোকেয়া বগম

ছাত্রলীগের নির্যাতনে নিহত বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদের হত্যার বিচার যেন দ্রুত বিচার আদালতে করে প্রতিক্ষায় থাকা দেশবাসীর আস্থা সৃষ্টি হয়। এমন নৃশংস হত্যাকাণ্ড ঘটিয়ে কেউ পার পায় না। এমনটাই দাবি এখন পরিবারের।

রোববার বেলা সাড়ে ১১টা, অনেকটাই নীরবতার আবহ দেখা যায় আবরার ফাহাদের গ্রামের বাড়ি কুমারখালী উপজেলার রায়ডাঙ্গাতে।

আলাপকালে আবরারের মা রোকেয়া বেগম বলেছিলেন, যারা আমার ছেলের সঙ্গে এমন নির্মম হিংস্র্ আচরণ করেছে, যাদের ভিডিও ফুটেজে দেখেতে পাচ্ছি, তারা যেন আর কোনোদিন ওই প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে না যায়। এটাই প্রধানমন্ত্রী থেকে শুরু করে সবার কাছে আমার আবেদন।

তিনি বলেন, আমি একজন অসহায় মা, আমি আমার সেই হৃদয় থেকে বলছি, প্রধানমন্ত্রীও একজন মা, তার হৃদয়ে যদি তিল পরিমাণে সন্তানের জন্য কষ্ট থেকে থাকে, তার কাছে আমার আকুল আবেদন, ছেলের হত্যাকরীরা যেন আর কোনোদিন প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে পা দিতে না পারে।

রোকেয়া বেগম বলেন, প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে যেন এদের ছাত্রত্ব একদম চিরতরে মুছে যায়। ওরা আবার ফিরে আসলে আমার ছেলের আত্মা কষ্ট পাবে আমি এটা চাইনি।

তিনি বলেন, যখন একজন আসামিকে গ্রেফতারের পর তার অপরাধের কোনো প্রমাণ থাকে না তার জন্য কোর্ট আইন প্রক্রিয়ায় যায়। কিন্তু আমার ছেলের ভিডিও ফুটেজ এ দেশের ১৬ কোটি লোক দেখেছেন, সবাই তো বুঝতে পেরেছে যে কারা পিটিয়ে মেরেছে, স্ট্যাম্প ভেঙেছে, লাঠি ভেঙেছে, এদের বিচার করতে তো দেশের কোনো আইনের দীর্ঘ অপেক্ষার দরকার নেই।

বলেই আবার ডুকরে কাঁদাতে থাকেন আবরারের মা।

প্রসঙ্গত ভারতের সঙ্গে সম্পাদিত চুক্তি নিয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেয়ায় খুন হন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ। ভারতের সঙ্গে চুক্তির বিরোধিতা করে গত ৫ অক্টোবর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেন ফাহাদ।

এর জেরে পরদিন ৬ অক্টোবর রাতে শেরেবাংলা হলের নিজের ১০১১ নম্বর কক্ষ থেকে তাকে ডেকে নিয়ে ২০১১ নম্বর কক্ষে বেধড়ক পেটানো হয়। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। পিটুনির সময় নিহত আবরারকে ‘শিবিরকর্মী’ হিসেবে চিহ্নিত করার চেষ্টা চালায় খুনিরা।

ঘটনাপ্রবাহ : বুয়েট ছাত্রের রহস্যজনক মৃত্যু

আরও
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: jugantor.ma[email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×