পাসপোর্ট অফিসের খামখেয়ালি, মিরাক্কেলে চান্স পেয়েও যেতে পারছে না নাঈম

  ভালুকা (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি ১৫ অক্টোবর ২০১৯, ১৮:৫৮ | অনলাইন সংস্করণ

‘জি বাংলা’র জনপ্রিয় রিয়েলিটি শো ‘মিরাক্কেল’

ভারতের পশ্চিমবঙ্গ থেকে প্রচারিত টিভি চ্যানেল ‘জি বাংলা’র জনপ্রিয় রিয়েলিটি শো ‘মিরাক্কেল’-এ চান্স পেয়েও পাসপোর্ট অফিসের খামখেয়ালিতে যেতে মূল অনুষ্ঠানে যেতে পারছে না ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার নাঈম।

জানা গেছে, ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলা ডাকাতিয়া ইউনিয়নের নাঈম পাসপোর্টের দালালকে ঘুষ দিতে না পারায় নির্দিষ্ট সময়ের মাঝে পাসপোর্ট না পাওয়ায় কলকাতা গিয়ে মিরাক্কেলে অংশগ্রহণ করা অনেকটা অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। সূত্র জানায়, জি বাংলার আয়োজনে মিরাক্কেলের ঢাকা অডিশন গত ২৭, ২৮ সেপ্টেম্বর গুলশানে এমানুয়েল ব্যাংকুয়েট হলে (ঢাকা নিউ হল) অনুষ্ঠিত হয়। মিরাক্কেলের পরিচালক শুভংকর চট্টোপাধ্যায়ের নিজ তত্ত্বাবধানে পরিচালিত ওই অডিশনে সহস্রাধিক প্রতিযোগীর মাঝে দুই দিনব্যাপী দুই ধাপের বাছাইয়ে প্রথম দশে সিলেক্টেড হয় ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার ডাকাতিয়ার (সামালিয়াপাড়া) জামাল উদ্দিনের ছেলে আবদুল্লাহ আল নাঈম।

পরে বাছাই হওয়া প্রত্যেক বাংলাদেশিকে মিরাক্কেল কর্তৃপক্ষ ১৫ দিনের মধ্যে জরুরিভাবে পাসপোর্ট রেডি করতে বলে। তাই নাঈম ময়মনসিংহ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসে ১ অক্টোবর ইমার্জেন্সি পাসপোর্টের জন্য ৬ হাজার ৯০০ টাকা জমা দিয়ে আবেদন ফরম জমা দেয়।

যার সম্ভাব্য সরবরাহের তারিখ জানানো হয় ১০ অক্টোবর। কিন্তু এই প্রতিবেদন লেখার পূর্ব পর্যন্ত এই পাসপোর্ট আবেদনের সরবরাহ তো দূরের কথা, পুলিশ ভেরিফিকেশনই হয়নি। এদিকে জি বাংলা কর্তৃপক্ষের বেঁধে দেয়া ১৫ দিনের সময়সীমার ১৩ অক্টোবর শেষ হয়ে গেছে।

অন্যদিকে বাকি প্রতিযোগীদের পাসপোর্ট প্রস্তুত হয়ে যাওয়ায় মিরাক্কেল কর্তৃপক্ষ কয়েকদিনের মধ্যেই ঢাকা ত্যাগ করতে পারে। তাই আগামী ৩-৪ দিনের মধ্যে পাসপোর্ট হাতে না পেলে চান্স পাওয়া সত্ত্বেও নাঈমের মিরাক্কেলে অংশগ্রহণ অনিশ্চত হয়ে পড়বে।

এদিকে পাসপোর্ট অফিস কর্তৃপক্ষ দালালদের বিষয়টি বারবার অস্বীকার করলেও খোঁজ নিয়ে জানা যায়, যারা দালালের মাধ্যমে পাসপোর্ট করে, তারা অনেক তাড়াতাড়ি পাসপোর্ট পেয়ে যায়। দালাল না ধরে সরাসরি পাসপোর্টের জন্য আবেদন করলে হয়রানির শিকার হয়।

এ ব্যাপারে ভুক্তভোগী নাঈম এই প্রতিবেদককে বলেন, ঢাকায় শুধু নিজের চেষ্টায় অনেক কষ্টে টিউশনি করে আবাসন ও পড়াশুনার খরচ চালাই। আর পাসপোর্ট করতে গিয়ে অনেক দালালই আমাকে টাকার বিনিময়ে সাহায্য করতে চেয়েছে। কিন্তু ইমার্জেন্সি পাসপোর্টের মূল টাকা আমাকে বিভিন্নভাবে ধার করে ম্যানেজ করতে হয়েছে। এখন ঘুষের বাড়তি টাকা জোগার করার সামর্থ্য আমার নেই।

দালালের ঘুষের কথা অস্বীকার করে ময়মনসিংহ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের সহকারী পরিচালক জানান, নাঈমের ব্যাংক জমা রিসিটে নামের বানান একটু সমস্যা থাকায় পাসপোর্ট সরবরাহ করা যায়নি। এ ছাড়াও এখনও পর্যন্ত তার পুলিশ ভেরিফিকেশন রিপোর্টই আসেনি। ঢাকায় পাসপোর্ট বইয়েরও সংকট রয়েছে।

প্রসঙ্গত, মীরাক্কেল ভারতের একটি জনপ্রিয় টেলিভিশন রিয়েলিটি অনুষ্ঠান। জি বাংলায় প্রচারিত এই স্ট্যান্ডআপ কমেডি রিয়েলিটি শো-এর উপস্থাপক মীর। ২০০৬ সালে শুরু হওয়া এই অনুষ্ঠানটি ভারত, বাংলাদেশ এবং পৃথিবীর বাংলা ভাষার মানুষের অন্যতম জনপ্রিয় অনুষ্ঠান হিসেবে স্থান করে নিয়েছে।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×