স্ত্রী-পুত্রের হাতে মুক্তিযোদ্ধা খুন

  দোয়ারাবাজার (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি ০৪ নভেম্বর ২০১৯, ২৩:০০ | অনলাইন সংস্করণ

খুন

সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজারে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে গিয়ে মুক্তিযোদ্ধা স্বামীকে খুনের ঘটনায় নিহতের স্ত্রী-পুত্রই ফেঁসে যাচ্ছেন।

কলেজ পড়ুয়া ছেলে মিলন মিয়ার (১৮) সহযোগিতায় লোহার শাবল (বড় রড) দিয়ে পিটিয়ে নিজ স্বামী মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল বারিক (৭৫) কে খুন করেছেন বলে ১৬১ ধারায় পুলিশের কাছে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী আছিয়া খাতুন (৬০)।

লোমহর্ষক এ ঘটনাটি ঘটেছে রোববার দোয়ারাবাজার উপজেলার লক্ষ্মীপুর ইউনিয়নের সুলতানপুর গ্রামে। নিহত মুক্তিযোদ্ধা ওই গ্রামের মৃত মুসলিম উদ্দিনের ছেলে।

ঘটনার বিবরণে জানা গেছে, পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে ছেলে মিলনকে নিয়ে রোববার সকাল ১০টার দিকে প্রথমে বৃদ্ধ মুক্তিযোদ্ধা স্বামীকে পিটিয়ে হত্যা করেন স্ত্রী আছিয়া। পরে দুপুর ১২টার দিকে মা-ছেলে লাশ নিয়ে থানায় হাজির হয়ে প্রতিপক্ষের লোকজন মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল বারিককে হত্যা করেছে বলে অভিযোগ করেন। এ সময় মা-ছেলে পুলিশকে জানান, একই গ্রামের কালাশাহ ও তার লোকজন আব্দুল বারিকের মাথায় আঘাত করে তাকে খুন করেছে। পুলিশ এ সময় তাদের সঙ্গে থাকা নিহতের ৭ বছরের নাতি শাহিনকে আলাদা কক্ষে নিয়ে কথা বলেন।

শাহিন পুলিশকে জানায়, তার দাদী আছিয়া ও চাচা মিলনের সঙ্গে দাদার ঝগড়া ও মারামারি হয়েছে। তখন তারই দেয়া তথ্যমতে মা ও ছেলেকে আটক করে পুলিশ। পরে পুলিশ নিহত বারিকের বাড়িতে গিয়ে একটি রক্তমাখা লোহার শাবলসহ কিছু আলামত উদ্ধার করেন।

এ সময় স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আমিরুল হক উপস্থিত ছিলেন। তিনি বলেন, আলামত দেখে ও প্রত্যক্ষদর্শীর কথা শুনে মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল বারিককে তার স্ত্রী আছিয়া ও তার ছেলে মিলনই খুন করেছে বলে উপস্থিত সবাই নিশ্চিত হয়েছেন।

এ সময় স্থানীয়রা জানান, নিহত মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল বারিকের সঙ্গে একই গ্রামের কালাশাহ, রকিব মিয়া ও হান্নান মিয়ার জমির সীমানা নিয়ে বিরোধ ছিল দীর্ঘদিনের। এরই জের ধরে ২০১৯ সালে দু’পক্ষের সংঘর্ষে প্রতিপক্ষ কালাশাহর জামাতা (মেয়ের স্বামী) আফিজ আলী খুন হন। ওই মামলায় মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল বারিকের বড় ছেলে শাহবাজ মিয়া বর্তমানে কারাগারে রয়েছে। তাই প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতেই পরিকল্পিতভাবে মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল বারিককে খুন করা হতে পারে বলে তারা জানান।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে দোয়ারাবাজার থানার ওসি আবুল হাশেম বলেন, রোববার রাতে নিহতের ছেলে মাসুক মিয়া বাদী হয়ে সৎ মা আছিয়া খাতুন ও সৎ ভাই মিলন মিয়াকে আসামি করে দণ্ডবিধি ৩০২/৩৪ ধারায় তাদের বিরুদ্ধে দোয়ারাবাজার থানায় একটি হত্যা মামলা (নং- ০৩) দায়ের করেছেন। সোমবার আটক মা ও ছেলেকে সুনামগঞ্জের বিজ্ঞ আদালতে পাঠানো হয়েছে বলে ওসি জানান।

এদিকে নিহত মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল বারিকের লাশ ময়নাতদন্ত শেষে সোমবার বিকালে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় তার নিজ গ্রাম সুলতানপুরে পারিবারিক গোরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×