বাবার হাতে ধরা শিশু মাইশাকে পিষে দিল ট্রাক!

প্রকাশ : ০৬ নভেম্বর ২০১৯, ১৭:৩৪ | অনলাইন সংস্করণ

  গৌরীপুর (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি

সড়ক অবরোধ করে স্থানীয়দের বিক্ষোভ

বড় দুই বোন এবার জেএসসি পরীক্ষার্থী। ওদেরকে বাবার সঙ্গে এগিয়ে দিতে এসেছিল ছোট্ট মাইশা। বয়স মাত্র পাঁচ বছর।

বাবার হাত ধরে রাস্তায় হাঁটছিল। বোনদের মতো বড় হওয়ার স্বপ্নের কথাও বলছিল বাবার সঙ্গে। ঠিক সেই মুর্হূতেই পিছন দিক থেকে দ্রুতগামী ট্রাক পিষে দেয় মাইশাকে। সঙ্গে সঙ্গে শেষ হয়ে যায় তার স্বপ্নগুলো।

বুধবার সকালে নেত্রকোনা জেলার পূর্বধলা উপজেলার তোলাপাবই এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানান, খলিশাউর ইউনিয়নের তোলাপাবই গ্রামের আজিজুল ইসলাম তার বড় দুই মেয়ে জেএসসি পরীক্ষার্থী রিতু আক্তার ও রিয়া আক্তারকে বুধবার সকালে এগিয়ে দিতে পূর্বধলা-শ্যামগঞ্জ সড়কে আসেন। এ সময় সঙ্গে আসে শিশুকন্যা মাইশা আক্তারও।

অটোরিকশায় দুই মেয়েকে উঠিয়ে বাড়ি ফিরছেন। বাবার হাতে হাত ধরেই বাড়ি ফিরছিল মাইশা। বড় বোনদের বিদায় আর পরীক্ষা নিয়ে আলোচনা চলছিল। সে আপুদের মতো বড় হবে, লেখাপড়া করবে-এ সব আলোচনা চলছিল। ঠিক সেই মুর্হূতে একটি ট্রাক পিছন দিক থেকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই মাইশার মৃত্যু হয়।

ঘটনার পরপরই উত্তেজিত এলাকাবাসী পূর্বধলা-শ্যামগঞ্জ সড়ক অবরোধ করেন। মাইশার হত্যাকারীদের বিচারের দাবি জানিয়ে বিক্ষোভ করেন। খবর পেয়ে পূর্বধলা থানার পুলিশ ও শ্যামগঞ্জ তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে দাবি-দাওয়া মেনে নেয়ার আশ্বাস দিলে এলাকাবাসী অবরোধ প্রত্যাহার করেন। অবরোধকালে দুই পাশে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়।

পূর্বধলা থানার ওসি তাওহিদুর রহমান জানান, তার পরিবারের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে লাশ ময়নাতদন্ত ছাড়াই হস্তান্তর করা হয়েছে।