ট্রেন দুর্ঘটনা: লাশ হয়ে বাড়ি ফিরছেন চাঁদপুরের দম্পতি

  চাঁদপুর ও হাজীগঞ্জ প্রতিনিধি ১২ নভেম্বর ২০১৯, ১৪:০২:৫৬ | অনলাইন সংস্করণ

মজিবুর রহমান ও তার স্ত্রী কুলসুম বেগম। ছবি: যুগান্তর

চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ উপজেলায় নিজের বাড়িতে ফেরার কথা ছিল মজিবুর রহমান (৫০) ও তার স্ত্রী কুলসুম বেগম (৪২) দম্পতির। এ জন্য সোমবার রাতে ট্রেনে করে চাঁদপুরে আসছিলেন। কিন্তু পথে দুর্ঘটনায় মারা যান তারা। তাই জীবিত নয়, মরদেহ হয়ে ফিরছেন এ দম্পতি।

মঙ্গলবার দুপুরে হাজীগঞ্জ উপজেলায় মজিবুরের বাড়িতে গিয়ে দেখা যায়, সবাই মরদেহের জন্য অপেক্ষা করছেন। এ ঘটনায় আত্মীয়স্বজন, পাড়া-প্রতিবেশী- এমনকি পুরো গ্রামে চলছে শোকের মাতম।

জানা গেছে, নিহত মজিবুর রহমান স্ত্রী ও তিন ছেলেকে নিয়ে সিলেটের শ্রীমঙ্গল উপজেলায় বসবাস করতেন। সেখানে কসমেটিকস পণ্যের ব্যবসা করতেন তিনি। তার গ্রামের বাড়ি হাজীগঞ্জ উপজেলার ১নং রাজারগাঁও ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ড রাজারগাঁওয়ে।

পারিবারিক সূত্র জানায়, মজিবুর রহমান ও তার স্ত্রী সোমবার রাতে সিলেট থেকে আন্তঃনগর উদয়ন এক্সপ্রেসে করে লাকসামে আসছিলেন। সেখান থেকে ভিন্ন রুটে চাঁদপুরে আসার কথা ছিল তাদের। কিন্তু পথে রাত ৩টার দিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার কসবা উপজেলার ঢাকা-চট্টগ্রাম রেলপথের মন্দবাগ রেলওয়ে স্টেশনে উদয়ন এক্সপ্রেসের সঙ্গে ঢাকাগামী তূর্ণা-নিশীথা এক্সপ্রেসের ট্রেনের সংঘর্ষ হয়। এতে ওই দম্পতি মারা যান।

আত্মীয় মাওলানা ওসমান গনি যুগান্তরকে বলেন, মজিব স্ত্রী-সন্তান নিয়ে শ্রীমঙ্গলে ব্যবসা করেন। তাদের দাম্পত্য জীবনের তিন ছেলেসন্তান রয়েছে।

এলাকার বাসিন্দা আলমগীর হোসেন ও মমিন মোল্লা বলেন, সকালে ঘুম থেকে উঠে দুর্ঘটনার খবর পেয়ে এলাকাবাসীর মধ্যে শোকের বাতাস বইছে।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত