ফরিদপুরে সালিশ শেষে যুবলীগ নেতাকে পেটাল প্রতিপক্ষ

  ফরিদপুর ব্যুরো ১৪ নভেম্বর ২০১৯, ১৪:০০ | অনলাইন সংস্করণ

ফরিদপুরে সালিশ শেষে যুবলীগ নেতাকে পেটাল প্রতিপক্ষ
ফাইল ছবি

সালিশ শেষে ফরিদপুর সদর উপজেলায় ডিক্রিরচর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন যুবলীগ নেতাকে পিটিয়ে আহত করেছেন প্রতিপক্ষের লোকজন। তার নাম মেহেদী হাসান মিন্টু।

এ সময় সন্ত্রাসীরা ইউনিয়ন পরিষদের ভেতর ঢুকে কক্ষ, চেয়ার-টেবিল ভাঙচুর করে। এমনকি তারা গ্রামআদালতের চেয়ার-টেবিলও ভাঙচুর করে।

বুধবার রাত ৮টার দিকে উপজেলার ডিক্রিরচর ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানান, ইউপি চেয়ারম্যান মেহেদী হাসান মিন্টুর চাচা হাসেম ফকিরের সঙ্গে একটি খালের দখল নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল এলাকার আনোয়ার হোসেন আবু ফকিরের সঙ্গে। এ নিয়ে আদালতে একটি মামলা হলে রায় পান হাসেম ফকির।

এ ঘটনায় সিঅ্যান্ডবি ঘাট এলাকায় বুধবার সন্ধ্যায় একটি সালিশবৈঠকে বসে মেহেদী হাসান মিন্টু। সালিশের একপর্যায়ে প্রতিপক্ষ আনোয়ার হোসেন আবু সালিশ মানি না বলে বের হয়ে চলে যান। বের হয়ে তিনি ওকে ধর বললে, কয়েকজন যুবক হকিস্টিক, লোহার রড, রামদা নিয়ে হামলা চালায় মিন্টুর ওপর। তাকে রক্ষা করতে গিয়ে আহত হন মিন্টুর ভাই জাহাঙ্গীর ফকির, আলমগীর ফকির, সাব্বির ও ইলিয়াস।

এ সময় হামলাকারীরা মিন্টুর ভাই জাহাঙ্গীরকে বেধড়ক মারপিট করে হাত ভেঙে দেয়। তাকে ফরিদপুর ট্রমা সেন্টারে ও অন্যদের ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ইউপি চেয়ারম্যান মেহেদী হাসান মিন্টু অভিযোগ করে বলেন, আবুর নেতৃত্বে বাবু, তাবু, রাজা ফকির, মুরাদ ও তার সহযোগীরা আমাকে ও আমার ভাইয়ের ওপর হামলা চালায়। আমাকে বাবু প্রথমে মাথায় আঘাত করলে আমি সরে গিয়ে টেবিলের নিচে চলে যাওয়ায় প্রাণে রক্ষা পাই। তার পর তারা আমার ভাই জাহাঙ্গীর ফকিরকে বেধড়ক পিটিয়ে হাত ভেঙে দেয়। এ সময় আহত হয় আরও কয়েকজন।

এ ঘটনায় কোতোয়ালি থানার ওসির দায়িত্বে থাকা এসআই মিজান বলেন, খবর পেয়ে রাতেই সেখানে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এখন পর্যন্ত কেউ কোনো অভিযোগ নিয়ে আসেননি। বর্তমানে এলাকার পরিবেশ শান্ত রয়েছে।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×