কাদিয়ানিদের রাষ্ট্রীয়ভাবে কাফেরের দলিল দিতে হবে: আল্লামা শফি

  ফতুল্লা (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি ১৫ নভেম্বর ২০১৯, ২৩:১৩ | অনলাইন সংস্করণ

আল্লামা শাহ আহমদ শফি
আল্লামা শাহ আহমদ শফি। ফাইল ছবি

হেফাজতে ইসলামের আমীর আল্লামা শাহ আহমদ শফি বলেছেন, গোলাম আহমদ কাদিয়ানি কাফের। এই কথা যে স্বীকার না করবে সেও কাফের। কাদিয়ানিদের রাষ্ট্রীয়ভাবে কাফেরের দলিল দিতে হবে।

শুক্রবার রাতে ফতুল্লার মাসদাইর এলাকায় কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠে বাংলাদেশ কওমি মাদ্রাসা বোর্ড (বেফাক) জেলার উদ্যোগে নারায়ণগঞ্জের কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

আল্লামা আহমদ শফি বলেন, আমি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে ফোন করেছিলাম। তাকে বলেছি যে গোলাম আহমদ কাদিয়ানি কাফের। এই কথা যে স্বীকার না করবে সেও কাফের। আপনি প্রধানমন্ত্রীকে এই কথাটা ভালো করে বুঝিয়ে বলবেন। কাদিয়ানিদের রাষ্ট্রীয়ভাবে কাফেরের দলিল দিতে হবে।

তিনি বলেন, অনেকে আমার কাছে এসেছিলেন এবং আমাকে বলেছেন যে আপনি কাদিয়ানি সম্পর্কে যা বলবেন আমরা তাই মেনে নিব। আমি তাদেরকে বলেছি যে আমরা কিন্তু সনদ এমনি এমনি পাই নাই। আমরা সবাই একত্রিত হয়ে সরকারকে বলেছিলাম যে আমাদেরকে সনদ দিতে হবে। তাই সরকার আমাদেরকে সনদ দিয়েছেন।

হেফাজত আমির বলেন, একইভাবে আমরা সবাই যখন এক হয়ে সরকারকে বলব, তখন সরকার আমাদের দাবি মেনে নিয়ে কাদিয়ানিকে কাফের ঘোষণা করতে বাধ্য হবে। কারণ তখন তারা চিন্তা করবে যে যদি ঘোষণা না করা হয় তাহলে তাদের সিট থাকবে না।

আল্লামা শফি আরও বলেন, আমার পায়ে ব্যথা তাই আমি হাঁটতে পারি না। তাই সবাই মিলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে আমার যাতায়াতের জন্য হেলিকপ্টার ব্যবহার করবে। এখন যেখানে যাই হেলিকপ্টারেই যাওয়া আসা করি। কিন্তু কিছু কিছু এমপি আছে তারা প্রশ্ন করে যে আল্লামা শফি এত টাকা কই পায়? আবার আরেক এমপি তার জবাব দিয়েছেন যে আপনি এক বছরে ৪০ বার হেলিকপ্টারে গেছেন আপনি এত টাকা কোথায় পেলেন? এটা নিয়ে তো কেউ আপনাকে প্রশ্ন করেনি। শুধু মাওলানাদের হিসাব নিতে আসেন।

মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আমি যখন দাওড়ায়ে হাদিস পড়তাম তখন আমি সবার থেকে ছোট ছিলাম। আমার তখন দাঁড়িও উঠেনি। আমরা একসঙ্গে ২৫০ জন পড়তাম। কিন্তু আমার ওস্তাদ আমার নাম মনে রেখেছিলেন। আমার ওস্তাদ বলেছেন যে আমার এখানে ২৫০ জন পড়ে কিন্তু আমার শফির নাম মনে আছে কারণ ও সব সময় আমার সামনে বসে।

তিনি আরও বলেন, যদি আমার সামনে না বসতো তাহলে আমার মতো বুড়োর ক্ষমতা ছিল না তার নাম মনে রাখি। তাই তোমরাও সব সময় ওস্তাদের সামনে বসবে। দেখাবে এবার যারা পুরস্কার পাওনি পরের বার তোমরাও ভালো পুরস্কার পাবা।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×