বারহাট্টায় আ’লীগের ইউপি চেয়ারম্যান কাঞ্চন বরখাস্ত

  নেত্রকোনা প্রতিনিধি ২০ নভেম্বর ২০১৯, ২২:৪৪ | অনলাইন সংস্করণ

শাহ মাহবুব মোর্শেদ কাঞ্চন
শাহ মাহবুব মোর্শেদ কাঞ্চন। ফাইল ছবি

নেত্রকোনার বারহাট্টা উপজেলার ৬ নম্বর সিংধা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান শাহ মাহবুব মোর্শেদ কাঞ্চনকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে।

এ বিষয়ে গত মঙ্গলবার স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় প্রজ্ঞাপন জারি করেছে।

বুধবার রাত পৌনে ৭টার দিকে বারহাট্টা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) গোলাম মোরশেদ এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

শাহ মাহবুব মোর্শেদ কাঞ্চন জেলা আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিকবিষয়ক সম্পাদক।

স্থানীয় বাসিন্দা, উপজেলা প্রশাসন ও প্রজ্ঞাপন সূত্রে গেছে, চেয়ারম্যান শাহ মাহবুব মোর্শেদ কাঞ্চন আলোকদিয়া সেতু থেকে সিংধা চৌরাস্তায় উভয় পাশে রোপিত সরকারি গাছ কেটে বিক্রি করে সেই অর্থ আত্মসাৎ করেছেন। তিনি হোল্ডিং এসেসমেন্টের জন্য ইউনিয়নের প্রতিটি পরিবারের কাছ থেকে ১০০ টাকা করে উত্তোলন করে তা আত্মসাৎ করেন।

এ ছাড়া অবৈধভাবে বয়স্কভাতা প্রদান ও সরকারের নাম এবং লোগো ব্যবহার করা কার্ড যথাযথ কর্তৃপক্ষের অনুমতি না নিয়ে তৈরি করেছেন। এই বিষয়গুলো নেত্রকোনা জেলা প্রশাসকের কাযালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগের সহকারী কমিশনার কর্তৃক প্রমাণিত হয়েছে।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, যেহেতু চেয়ারম্যান শাহ মাহবুব মোর্শেদ কাঞ্চন কর্তৃক সংগঠিত অপরাধমূলক কাযক্রম পরিষদসহ জনস্বার্থে পরিপন্থী। তাই তার দ্বারা ইউনিয়ন পরিষদের ক্ষমতা প্রয়োগ প্রশাসনিক কাজ সমীচীন নয় মর্মে সরকার মনে করে। তার এই অপরাধমূলক কার্যক্রম পরিষদসহ জনস্বার্থে পরিপন্থী বিবেচনায় চেয়ারম্যানকে তার স্বীয় পদ হতে সাময়িকভাবে বহিষ্কার করা হল।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে নেত্রকোনার জেলা প্রশাসক মঈনউল ইসলাম বলেন, ‘আদেশের কপিটি এখনও পাইনি।

তবে বারহাট্টা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা গোলাম মোরশেদ বলেন, সিংধা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানকে সাময়িকভাবে বরখাস্তের বিষয়ে মঙ্গলবার স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় প্রজ্ঞাপন জারি করেছে।

মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মো. ইফতেখার আহমেদ চৌধুরী স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনটি ওয়েবসাইটে দেখেছি। কিন্তু এখনও হাতে এসে পৌঁছেনি। আদেশটি পেলে হাতে পেলে তা কার্যকর করা হবে।

তবে চেয়ারম্যান শাহ মাহবুব মোর্শেদ কাঞ্চন দাবি করেন, ‘আমি কোনো সরকারি গাছ কাটা ও গাছ বিক্রি করে টাকা আত্মসাৎ করিনি। ঝড়ে কিছু গাছ উপড়ে পড়ে গিয়েছিল। তা প্রকাশ্যে নিলামে বিক্রি করে সেই টাকা সরকারি কোষাগারে জমা দিয়েছি। আর আমার পরিষদের (৪,৫,৬) নম্বর ওয়ার্ডের সংরক্ষিত নারী সদস্য সন্ধ্যা রানী আমার বিরুদ্ধে বয়স্কভাড়া, হোল্ডিংসহ এ সব মিথ্যা অভিযোগ দিয়েছেন।’

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×