টেকনাফে সিএনজি থেকে নামিয়ে রোহিঙ্গা যুবককে কুপিয়ে হত্যা
jugantor
টেকনাফে সিএনজি থেকে নামিয়ে রোহিঙ্গা যুবককে কুপিয়ে হত্যা

  টেকনাফ (কক্সবাজার) প্রতিনিধি  

২৩ নভেম্বর ২০১৯, ০৩:৫৪:৪৪  |  অনলাইন সংস্করণ

রোহিঙ্গা যুবক মো. হাসান

টেকনাফে পাহাড়ি সড়কে সিএনজি ট্যাক্সি থেকে নামিয়ে মো. হাসান (৩২) ওরফে কমিটি হাসান নামে এক যুবককে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা।

শুক্রবার রাত পৌনে ৮টার দিকে টেকনাফ স্থল বন্দর সংলগ্ন ১৪ নং ব্রিজ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত হাসান নয়াপাড়া রোহিঙ্গা শরণার্থী ক্যাম্পের সি ব্লকের আব্দুল সালামের ছেলে। পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করেছে।

টেকনাফ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) এবিএমএস দোহা ঘটনার সত্যতা যুগান্তরকে নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

সূত্র জানায়, হাসান রোহিঙ্গা ক্যাম্প এলাকায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সোর্স হিসেবে পরিচিত। ক্যাম্পের পশ্চিম পাহাড়ে অবস্থানকারী সশস্ত্র ডাকাত, রোহিঙ্গা উগ্রপন্থী সংগঠন, অপহরণকারী ও মুক্তিপণ আদায়কারী চক্র এবং মাদক কারবারি সিন্ডিকেটের সদস্যদের গ্রেফতারে আইন শৃঙ্খলাবাহিনীকে সহায়তা করত। এর আগে চিহ্নিত দুর্বত্তরা তাকে গুলি করে হত্যার চেষ্টা করেছে। এরপর থেকে সে প্রাণভয়ে পরিবার নিয়ে টেকনাফে বসবাস করছিল।

ঘটনার দিন রোহিঙ্গা ক্যাম্পে তার নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান (মোবাইলের দোকান) বন্ধ করে টেকনাফে ফেরার পথে তাকে হত্যা করা হয়। হত্যাকারীরা সিএনজি ট্যাক্সি থেকে নামিয়ে তাকে পাহাড়ের কাছে নিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে পালিয়ে যায়।

নিহতের স্ত্রী রফিকা জানিয়েছেন, রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী জাকির তার স্বামীকে হত্যা করেছে। বেশ কিছুদিন ধরে তার স্বামীকে হত্যা করতে সে মরিয়া হয়ে ওঠে।

টেকনাফে সিএনজি থেকে নামিয়ে রোহিঙ্গা যুবককে কুপিয়ে হত্যা

 টেকনাফ (কক্সবাজার) প্রতিনিধি 
২৩ নভেম্বর ২০১৯, ০৩:৫৪ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
রোহিঙ্গা যুবক মো. হাসান
রোহিঙ্গা যুবক মো. হাসান। ফাইল ছবি

টেকনাফে পাহাড়ি সড়কে সিএনজি ট্যাক্সি থেকে নামিয়ে মো. হাসান (৩২) ওরফে কমিটি হাসান নামে এক যুবককে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। 

শুক্রবার রাত পৌনে ৮টার দিকে টেকনাফ স্থল বন্দর সংলগ্ন ১৪ নং ব্রিজ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। 

নিহত হাসান নয়াপাড়া রোহিঙ্গা শরণার্থী ক্যাম্পের সি ব্লকের আব্দুল সালামের ছেলে। পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করেছে।

টেকনাফ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) এবিএমএস দোহা ঘটনার সত্যতা যুগান্তরকে নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। 

সূত্র জানায়, হাসান রোহিঙ্গা ক্যাম্প এলাকায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সোর্স হিসেবে পরিচিত। ক্যাম্পের পশ্চিম পাহাড়ে অবস্থানকারী সশস্ত্র ডাকাত, রোহিঙ্গা উগ্রপন্থী সংগঠন, অপহরণকারী ও মুক্তিপণ আদায়কারী চক্র এবং মাদক কারবারি সিন্ডিকেটের সদস্যদের গ্রেফতারে আইন শৃঙ্খলাবাহিনীকে সহায়তা করত। এর আগে চিহ্নিত দুর্বত্তরা তাকে গুলি করে হত্যার চেষ্টা করেছে। এরপর থেকে সে প্রাণভয়ে পরিবার নিয়ে টেকনাফে বসবাস করছিল। 

ঘটনার দিন রোহিঙ্গা ক্যাম্পে তার নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান (মোবাইলের দোকান) বন্ধ করে টেকনাফে ফেরার পথে তাকে হত্যা করা হয়। হত্যাকারীরা সিএনজি ট্যাক্সি থেকে নামিয়ে তাকে পাহাড়ের কাছে নিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে পালিয়ে যায়।   
 
নিহতের স্ত্রী রফিকা জানিয়েছেন, রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী জাকির তার স্বামীকে হত্যা করেছে। বেশ কিছুদিন ধরে তার স্বামীকে হত্যা করতে সে মরিয়া হয়ে ওঠে। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : রোহিঙ্গা বর্বরতা

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন