আ’লীগের সম্মেলনে ছাত্রলীগের ২ গ্রুপের সংঘর্ষ
jugantor
আ’লীগের সম্মেলনে ছাত্রলীগের ২ গ্রুপের সংঘর্ষ

  মৌলভীবাজার প্রতিনিধি  

০২ ডিসেম্বর ২০১৯, ২২:৪৮:৩৮  |  অনলাইন সংস্করণ

আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন চলাকালে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ

মৌলভীবাজার সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন চলাকালে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দের উপস্থিতে সোমবার দুপুরে মৌলভীবাজার পৌর জনমিলন কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, স্লোগান দেয়াকে কেন্দ্র করে পৌর মেয়র মো. ফজলুর রহমান ও জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সম্পাদক মো. কামাল হোসেনের দুই গ্রুপের মধ্যে চেয়ার ছোড়াছুড়ি, হাতাহাতি ও ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া হয়। এ সময় এক গ্রুপের নেতাকর্মীরা অন্য গ্রুপের নেতাকর্মীদের দিকে চেয়ার ছুড়ে মারে। সম্মেলনস্থলের জানালার গ্লাস ভাঙচুর করা হয়।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে মঞ্চ থেকে পৌর মেয়র মো. ফজলুর রহমান ও জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সম্পাদক মো. কামাল হোসেনসহ একাধিক অতিথিরা নেমে এসে সংঘর্ষ থামানোর চেষ্টা করে ব্যর্থ হন। আহমদ হোসেন সংঘর্ষ বন্ধ করার জন্য বার বার আহ্বান জানান। সংঘর্ষ বন্ধ না করলে সম্মেলনস্থল ত্যাগ করার ঘোষণা দেন তিনি। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

এ ঘটনার জন্য ছাত্রলীগকে অভিযুক্ত করেছেন কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মিছবাহ উদ্দিন সিরাজ। তিনি পৌর মেয়র মো. ফজলুর রহমান ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মো. কামাল হোসেনের নাম উল্লেখ করে বলেন, ‘আমরা মনে করি এখানে দু'জনই নেতৃত্বে আছেন। তাদের মূল দায়িত্ব এই সম্মেলন যাতে সুন্দর ও সফলভাবে সম্পন্ন হয়।

প্রধান অতিথি কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন ছাত্রলীগকে উদ্দেশ্য করে বলেন, আমরা আশা করি মৌলভীবাজারের ছাত্রলীগ ঢাকা ছাত্রলীগের মতো যাতে শুদ্ধি অভিযানে না পড়ে।

জানা গেছে, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সদস্য অধ্যাপক রফিকুর রহমান তার বক্তব্য শুরু করলে সম্মেলনের প্রধান অতিথি কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেনের সামনে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মিছবাহ উদ্দিন সিরাজ, জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সংসদ সদস্য নেছার আহমদ, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আজিজুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক মিছবাহুর রহমান, পৌর মেয়র মো. ফজলুর রহমান ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মো. কামাল হোসেন প্রমুখ।

আ’লীগের সম্মেলনে ছাত্রলীগের ২ গ্রুপের সংঘর্ষ

 মৌলভীবাজার প্রতিনিধি 
০২ ডিসেম্বর ২০১৯, ১০:৪৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন চলাকালে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ
আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন চলাকালে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ

মৌলভীবাজার সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন চলাকালে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দের উপস্থিতে সোমবার দুপুরে মৌলভীবাজার পৌর জনমিলন কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, স্লোগান দেয়াকে কেন্দ্র করে পৌর মেয়র মো. ফজলুর রহমান ও জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সম্পাদক মো. কামাল হোসেনের দুই গ্রুপের মধ্যে চেয়ার ছোড়াছুড়ি, হাতাহাতি ও ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া হয়। এ সময় এক গ্রুপের নেতাকর্মীরা অন্য গ্রুপের নেতাকর্মীদের দিকে চেয়ার ছুড়ে মারে। সম্মেলনস্থলের জানালার গ্লাস ভাঙচুর করা হয়।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে মঞ্চ থেকে পৌর মেয়র মো. ফজলুর রহমান ও জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সম্পাদক মো. কামাল হোসেনসহ একাধিক অতিথিরা নেমে এসে সংঘর্ষ থামানোর চেষ্টা করে ব্যর্থ হন। আহমদ হোসেন সংঘর্ষ বন্ধ করার জন্য বার বার আহ্বান জানান। সংঘর্ষ বন্ধ না করলে সম্মেলনস্থল ত্যাগ করার ঘোষণা দেন তিনি। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

এ ঘটনার জন্য ছাত্রলীগকে অভিযুক্ত করেছেন কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মিছবাহ উদ্দিন সিরাজ। তিনি পৌর মেয়র মো. ফজলুর রহমান ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মো. কামাল হোসেনের নাম উল্লেখ করে বলেন, ‘আমরা মনে করি এখানে দু'জনই নেতৃত্বে আছেন। তাদের মূল দায়িত্ব এই সম্মেলন যাতে সুন্দর ও সফলভাবে সম্পন্ন হয়।

প্রধান অতিথি কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন ছাত্রলীগকে উদ্দেশ্য করে বলেন, আমরা আশা করি মৌলভীবাজারের ছাত্রলীগ ঢাকা ছাত্রলীগের মতো যাতে শুদ্ধি অভিযানে না পড়ে।

জানা গেছে, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সদস্য অধ্যাপক রফিকুর রহমান তার বক্তব্য শুরু করলে সম্মেলনের প্রধান অতিথি কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেনের সামনে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মিছবাহ উদ্দিন সিরাজ, জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সংসদ সদস্য নেছার আহমদ, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আজিজুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক মিছবাহুর রহমান, পৌর মেয়র মো. ফজলুর রহমান ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মো. কামাল হোসেন প্রমুখ।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন