দুই লঞ্চের সংঘর্ষের ঘটনা তদন্তে ৪ সদস্যের কমিটি
jugantor
দুই লঞ্চের সংঘর্ষের ঘটনা তদন্তে ৪ সদস্যের কমিটি

  নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি  

০৭ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৩:৫২:১২  |  অনলাইন সংস্করণ

দুই লঞ্চের সংঘর্ষের ঘটনা তদন্তে ৪ সদস্যের কমিটি
নারায়ণগঞ্জে দুই লঞ্চের সংঘর্ষ। ছবি: যুগান্তর

নারায়ণগঞ্জ ও মুন্সীগঞ্জের মধ্যবর্তী চর কিশোরগঞ্জের কাছে ধলেশ্বরী-মেঘনা নদীর মোহনায় যাত্রীবাহী দুটি লঞ্চের মখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনা তদন্তে চার সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। 

শনিবার সকালে সংঘর্ষের কারণ উদঘাটনের জন্য বিআইডব্লিউটির নৌ-নিরাপত্তা বিভাগের যুগ্ন-পরিচালক সাইফুল ইসলামকে প্রধান করে চার সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। আগামী তিন কার্য্য দিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। 

বিআইডব্লিউটিএ সদরঘাট নদী-বন্দরের যুগ্ন-পরিচালক আরিফ উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। 

এর আগে শুক্রবার রাত পৌনে ২টার দিকে ঘন কুয়াশার কারণে নারায়ণগঞ্জ ও মুন্সীগঞ্জের মধ্যবর্তী চর কিশোরগঞ্জের কাছে ধলেশ্বরী-মেঘনা নদীর মোহনায় দুই লঞ্চের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়েছে। এতে এক যাত্রী নিহত এবং অন্তত পাঁচজন আহত হয়েছেন।

নিহত হুমায়ুন (৩৫) শরীয়তপুর জেলার ভেদেরগঞ্জ উপজেলার রামভদ্রপুর ইউনিয়নের আবদুল হাইয়ের ছেলে। 

শরীয়তপুর জেলার বেদেরগঞ্জ উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) জানান, শনিবার সকাল ৮টা থেকেই নৌ-বাহিনীর কোস্টগার্ড, নৌ-পুলিশ ও বি আইডব্লিউটিএ যৌথভাবে তল্লাশি চালিয়ে যাচ্ছে। দুর্ঘটনাস্থলের সম্ভাব্য স্থান ঘিরে এ তিনটি সংস্থার ডুবুরি দল ১২০ ফুট পানির নিচে তল্লাশি চালিয়ে যাচ্ছে। 

নারায়ণগঞ্জ নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ আবদুল হাকিম জানান, রাজধানীর সদরঘাট থেকে ছেড়ে আসা চাঁদপুরগামী যাত্রীবাহী লঞ্চ বোগদাদিয়া-১৩ এর সঙ্গে শরীয়তপুর জেলার নড়িয়াঘাট থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী মানিকচাঁদ-৪ এর মধ্যে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই হুমায়ুন নামের এক যাত্রী নিহত হন। 

নিহত ও আহতদের রাজধানীর সদরঘাট নিকটবর্তী মিটফোর্ড হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। 

নৌ-পুলিশের ওই কর্মকর্তা আরও জানান, সকাল ৮টায় এ ঘটনার খবর পেয়ে নারায়ণগঞ্জ নদীবন্দর বিআইডব্লিউটিএর ডুবুরি দল ঘটনাস্থলে পৌঁছে উদ্ধার তৎপরতা শুরু করেছে। পাশাপাশি নৌ- পুলিশের সদস্যরাও ঘটনাস্থলে উপস্থিত রয়েছেন।

দুই লঞ্চের সংঘর্ষের ঘটনা তদন্তে ৪ সদস্যের কমিটি

 নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি 
০৭ ডিসেম্বর ২০১৯, ০১:৫২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
দুই লঞ্চের সংঘর্ষের ঘটনা তদন্তে ৪ সদস্যের কমিটি
নারায়ণগঞ্জে দুই লঞ্চের সংঘর্ষ। ছবি: যুগান্তর

নারায়ণগঞ্জ ও মুন্সীগঞ্জের মধ্যবর্তী চর কিশোরগঞ্জের কাছে ধলেশ্বরী-মেঘনা নদীর মোহনায় যাত্রীবাহী দুটি লঞ্চের মখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনা তদন্তে চার সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

শনিবার সকালে সংঘর্ষের কারণ উদঘাটনের জন্য বিআইডব্লিউটির নৌ-নিরাপত্তা বিভাগের যুগ্ন-পরিচালক সাইফুল ইসলামকে প্রধান করে চার সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। আগামী তিন কার্য্য দিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

বিআইডব্লিউটিএ সদরঘাট নদী-বন্দরের যুগ্ন-পরিচালক আরিফ উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে শুক্রবার রাত পৌনে ২টার দিকে ঘন কুয়াশার কারণে নারায়ণগঞ্জ ও মুন্সীগঞ্জের মধ্যবর্তী চর কিশোরগঞ্জের কাছে ধলেশ্বরী-মেঘনা নদীর মোহনায় দুই লঞ্চের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়েছে। এতে এক যাত্রী নিহত এবং অন্তত পাঁচজন আহত হয়েছেন।

নিহত হুমায়ুন (৩৫) শরীয়তপুর জেলার ভেদেরগঞ্জ উপজেলার রামভদ্রপুর ইউনিয়নের আবদুল হাইয়ের ছেলে।

শরীয়তপুর জেলার বেদেরগঞ্জ উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) জানান, শনিবার সকাল ৮টা থেকেই নৌ-বাহিনীর কোস্টগার্ড, নৌ-পুলিশ ও বি আইডব্লিউটিএ যৌথভাবে তল্লাশি চালিয়ে যাচ্ছে। দুর্ঘটনাস্থলের সম্ভাব্য স্থান ঘিরে এ তিনটি সংস্থার ডুবুরি দল ১২০ ফুট পানির নিচে তল্লাশি চালিয়ে যাচ্ছে।

নারায়ণগঞ্জ নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ আবদুল হাকিম জানান, রাজধানীর সদরঘাট থেকে ছেড়ে আসা চাঁদপুরগামী যাত্রীবাহী লঞ্চ বোগদাদিয়া-১৩ এর সঙ্গে শরীয়তপুর জেলার নড়িয়াঘাট থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী মানিকচাঁদ-৪ এর মধ্যে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই হুমায়ুন নামের এক যাত্রী নিহত হন।

নিহত ও আহতদের রাজধানীর সদরঘাট নিকটবর্তী মিটফোর্ড হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

নৌ-পুলিশের ওই কর্মকর্তা আরও জানান, সকাল ৮টায় এ ঘটনার খবর পেয়ে নারায়ণগঞ্জ নদীবন্দর বিআইডব্লিউটিএর ডুবুরি দল ঘটনাস্থলে পৌঁছে উদ্ধার তৎপরতা শুরু করেছে। পাশাপাশি নৌ- পুলিশের সদস্যরাও ঘটনাস্থলে উপস্থিত রয়েছেন।