বানারীপাড়ায় প্রবাসীর বাড়িতে ৩ লাশ, একদিন পর মামলা
jugantor
বানারীপাড়ায় প্রবাসীর বাড়িতে ৩ লাশ, একদিন পর মামলা

  বরিশাল ব্যুরো  

০৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ১২:৩৭:৫৩  |  অনলাইন সংস্করণ

বানারীপাড়ায় প্রবাসীর বাড়িতে ৩ লাশ, একদিন পর মামলা
ফাইল ছবি

বরিশালের বানারীপাড়া উপজেলায় সলিয়াবাকপুরের একটি বাড়ি থেকে শাশুড়ি, মেয়ে, জামাইসহ তিনজনের মরদেহ উদ্ধারের ঘটনায় মামলা করা হয়েছে। 

রোববার ভোরে বানারীপাড়া থানায় কুয়েত প্রবাসী আবদুর রবের ভাই সুলতান মাহমুদ বাদী হয়ে মামলাটি করেছেন। 

বিষয়টি নিশ্চিত করেন বানারীপাড়া থানার ওসি (তদন্ত) জাফর আহম্মদ।

তিনি জানান, নিহত মরিয়ম বেগমের ছেলে ও বাড়ির মালিক কুয়েত প্রবাসী আবদুর রবের ভাই সুলতান মাহমুদ বাদী হয়ে মামলাটি করেছেন। এ মামলায় ৩০২ ধারাসহ বেশ কয়েকটি ধারা রয়েছে। 

মামলায় কোনো নামধারী আসামি নেই। তবে অজ্ঞাতদের আসামি করা হয়েছে। পাশাপাশি এরই মধ্যে ঝালকাঠির নলছিটি উপজেলার পূর্ব রায়পাশা গ্রামের চুন্নু হাওলাদারের ছেলে জাকির হোসেন ও তার সহযোগী জুয়েলকে আটক করা হয়েছে এবং কিছু মালামালও উদ্ধার করা হয়েছে।  

আটক এ দুজনকে দায়েরকৃত মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতের নিকট সোপর্দ করা হবে। তবে তাদের বিরুদ্ধে রিমান্ড আবেদন করা হবে কিনা সে বিষয়ে কিছু জানাতে চাননি পুলিশের ওই কর্মকর্তা।

এর আগে শনিবার সকালে উপজেলার সলিয়াবাকপুরে প্রবাসী হাফেজ আবদুর রবের বাড়ি থেকে তার মা মরিয়ম বেগম (৭৫), ভগ্নিপতি শফিকুল আলম (৬০) ও খালাতো ভাই ভ্যানচালক ইউসুফ হোসেনের (৩২) লাশ উদ্ধার করা হয়। ময়নাতদন্তের জন্য লাশগুলো বরিশাল শেবাচিম হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়। 

খবর পেয়ে বানারীপাড়া থানার ওসি শিশির জানান, এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে শনিবার বিকালে ঝালকাঠির নলছিটি উপজেলার রাজমিস্ত্রির সহকারী (শ্রমিক) জাকির হোসেনকে আটক করা হয়েছে। রবের বাড়ি নির্মাণের সময় জাকির রাজমিস্ত্রির সহকারী হিসেবে কাজ করেছে।

এ ছাড়া মাঝেমধ্যে সে ওই বাড়িতে যেত। সে বাড়ি পরিষ্কার ও ধোয়ামোছার কাজও করত।

বানারীপাড়ায় প্রবাসীর বাড়িতে ৩ লাশ, একদিন পর মামলা

 বরিশাল ব্যুরো 
০৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ১২:৩৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
বানারীপাড়ায় প্রবাসীর বাড়িতে ৩ লাশ, একদিন পর মামলা
ফাইল ছবি

বরিশালের বানারীপাড়া উপজেলায় সলিয়াবাকপুরের একটি বাড়ি থেকে শাশুড়ি, মেয়ে, জামাইসহ তিনজনের মরদেহ উদ্ধারের ঘটনায় মামলা করা হয়েছে।

রোববার ভোরে বানারীপাড়া থানায় কুয়েত প্রবাসী আবদুর রবের ভাই সুলতান মাহমুদ বাদী হয়ে মামলাটি করেছেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করেন বানারীপাড়া থানার ওসি (তদন্ত) জাফর আহম্মদ।

তিনি জানান, নিহত মরিয়ম বেগমের ছেলে ও বাড়ির মালিক কুয়েত প্রবাসী আবদুর রবের ভাই সুলতান মাহমুদ বাদী হয়ে মামলাটি করেছেন। এ মামলায় ৩০২ ধারাসহ বেশ কয়েকটি ধারা রয়েছে।

মামলায় কোনো নামধারী আসামি নেই। তবে অজ্ঞাতদের আসামি করা হয়েছে। পাশাপাশি এরই মধ্যে ঝালকাঠির নলছিটি উপজেলার পূর্ব রায়পাশা গ্রামের চুন্নু হাওলাদারের ছেলে জাকির হোসেন ও তার সহযোগী জুয়েলকে আটক করা হয়েছে এবং কিছু মালামালও উদ্ধার করা হয়েছে।

আটক এ দুজনকে দায়েরকৃত মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতের নিকট সোপর্দ করা হবে। তবে তাদের বিরুদ্ধে রিমান্ড আবেদন করা হবে কিনা সে বিষয়ে কিছু জানাতে চাননি পুলিশের ওই কর্মকর্তা।

এর আগে শনিবার সকালে উপজেলার সলিয়াবাকপুরে প্রবাসী হাফেজ আবদুর রবের বাড়ি থেকে তার মা মরিয়ম বেগম (৭৫), ভগ্নিপতি শফিকুল আলম (৬০) ও খালাতো ভাই ভ্যানচালক ইউসুফ হোসেনের (৩২) লাশ উদ্ধার করা হয়। ময়নাতদন্তের জন্য লাশগুলো বরিশাল শেবাচিম হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়।

খবর পেয়ে বানারীপাড়া থানার ওসি শিশির জানান, এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে শনিবার বিকালে ঝালকাঠির নলছিটি উপজেলার রাজমিস্ত্রির সহকারী (শ্রমিক) জাকির হোসেনকে আটক করা হয়েছে। রবের বাড়ি নির্মাণের সময় জাকির রাজমিস্ত্রির সহকারী হিসেবে কাজ করেছে।

এ ছাড়া মাঝেমধ্যে সে ওই বাড়িতে যেত। সে বাড়ি পরিষ্কার ও ধোয়ামোছার কাজও করত।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন