শাহ আমানতে যাত্রীর জ্যাকেটে ২০ স্বর্ণের বার
jugantor
শাহ আমানতে যাত্রীর জ্যাকেটে ২০ স্বর্ণের বার

  চট্টগ্রাম ব্যুরো  

০৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৩:৩৫:৩৭  |  অনলাইন সংস্করণ

শাহ আমানতে যাত্রীর জ্যাকেটে ২০ স্বর্ণের বার

চট্টগ্রামের শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ২০ স্বর্ণের বারসহ দুবাইফেরত এক যাত্রীকে আটক করেছে কাস্টমস গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদফতর। তার নাম অহিদুল আলম (৩০)।

রোববার সকালে দুবাই থেকে বাংলাদেশ বিমানের একটি ফ্লাইট থেকে তাকে আটক করা হয়। উদ্ধার হওয়া স্বর্ণের পরিমাণ দুই কেজি ৩৪০ গ্রাম এবং বাজারমূল্য প্রায় এক কোটি টাকা বলে শুল্ক কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

আটক অহিদুল আলম চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলার স্থায়ী বাসিন্দা। তবে তিনি দুবাইয়ে থাকেন।

কাস্টমস গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদফতরের সহকারী পরিচালক তানভীর আহমেদ জানান, রোববার সকালে দুবাই থেকে বাংলাদেশ বিমানের একটি ফ্লাইটে নামেন অহিদুল আলম। সন্দেহ হলে ওই যাত্রীর দেহতল্লাশি করা হয়। এ সময় জ্যাকেটের ভেতর কৌশলে লুকিয়ে রাখা ২০টি স্বর্ণের বার জব্দ করা হয়।

জিঞ্জাসাবাদে জানা যায়, প্রতি তিন-চার মাস পর পর তিনি দেশে আসেন। বিমানটি দুবাই থেকে চট্টগ্রাম হয়ে ঢাকা যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু অহিদুল আলম চট্টগ্রামের বাসিন্দা হওয়া সত্ত্বেও স্বর্ণের বারগুলো পৌঁছে দিতে তিনি ওই বিমানে ঢাকায় যাচ্ছিলেন।

শাহ আমানতে যাত্রীর জ্যাকেটে ২০ স্বর্ণের বার

 চট্টগ্রাম ব্যুরো 
০৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ০১:৩৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
শাহ আমানতে যাত্রীর জ্যাকেটে ২০ স্বর্ণের বার
ফাইল ছবি

চট্টগ্রামের শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ২০ স্বর্ণের বারসহ দুবাইফেরত এক যাত্রীকে আটক করেছে কাস্টমস গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদফতর। তার নাম অহিদুল আলম (৩০)।

রোববার সকালে দুবাই থেকে বাংলাদেশ বিমানের একটি ফ্লাইট থেকে তাকে আটক করা হয়। উদ্ধার হওয়া স্বর্ণের পরিমাণ দুই কেজি ৩৪০ গ্রাম এবং বাজারমূল্য প্রায় এক কোটি টাকা বলে শুল্ক কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

আটক অহিদুল আলম চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলার স্থায়ী বাসিন্দা। তবে তিনি দুবাইয়ে থাকেন।

কাস্টমস গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদফতরের সহকারী পরিচালক তানভীর আহমেদ জানান, রোববার সকালে দুবাই থেকে বাংলাদেশ বিমানের একটি ফ্লাইটে নামেন অহিদুল আলম। সন্দেহ হলে ওই যাত্রীর দেহতল্লাশি করা হয়। এ সময় জ্যাকেটের ভেতর কৌশলে লুকিয়ে রাখা ২০টি স্বর্ণের বার জব্দ করা হয়।

জিঞ্জাসাবাদে জানা যায়, প্রতি তিন-চার মাস পর পর তিনি দেশে আসেন। বিমানটি দুবাই থেকে চট্টগ্রাম হয়ে ঢাকা যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু অহিদুল আলম চট্টগ্রামের বাসিন্দা হওয়া সত্ত্বেও স্বর্ণের বারগুলো পৌঁছে দিতে তিনি ওই বিমানে ঢাকায় যাচ্ছিলেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন