ফুটফুটে নবজাতককে হাসপাতালে রেখে পালালেন মা, দত্তক নিতে আগ্রহী অর্ধশত
jugantor
ফুটফুটে নবজাতককে হাসপাতালে রেখে পালালেন মা, দত্তক নিতে আগ্রহী অর্ধশত

  যুগান্তর রিপোর্ট  

০৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৫:৪২:১৪  |  অনলাইন সংস্করণ

ফুটফুটে নবজাতককে হাসপাতালে রেখে পালালেন মা, দত্তক নিতে আগ্রহী অর্ধশত
শিশু নীলা। ছবি: সংগৃহীত

চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে ১৪ দিনের এক নবজাতককে রেখে পালিয়ে গেছেন মা। বৃহস্পতিবার দুপুরে হাসপাতালের শিশু ওয়ার্ডে এ ঘটনা ঘটে। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে শিশুটিকে দত্তক নিতে অনেকেই ভিড় করেন হাসপাতালে। রোববার প্রায় অর্ধশত মানুষ দত্তক নিতে আগ্রহ দেখান। 

ঘটনার বর্ণনা দিয়ে চাঁদপুর জেনারেল হাসপাতালের নার্স মুক্তি রানী দাস বলেন, ১৪ দিন আগে শিশুটির জন্ম হয়। ফুটফুটে সুন্দর শিশুটির নাম রাখা হয় নীলা। হাসপাতালে চার দিন থাকার পর মা নবজাতককে নিয়ে হাসপাতাল থেকে চলে যান। কিন্তু ঠাণ্ডাজনিত সমস্যা নিয়ে পরে আবারও ভর্তি হন। তার পর শুক্রবার রাতে শিশুটিকে ফেলে রেখে চলে যান মা।

আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. সুজাউদ্দৌলা রুবেল বলেন, ওই নারী চাঁদপুর সদরের শহরতলি গ্রামের নাম, ঠিকানা ব্যবহার করে হাসপাতালে ভর্তি হলেও সেখানে ওই ঠিকানায় কাউকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। ফলে এই নিয়ে বেকায়দায় পড়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। পরে বিষয়টি থানায় জানানো হয়।

শিশুটির বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে হাসপাতালের শিশু বিশেষজ্ঞ ডা. আবদুল আজিজ জানান, নীলার চিকিৎসা চলছে। তার দেখভাল করছেন চাঁদপুর সদর থানায় কর্মরত বিল্লাল হোসেনের নিঃসন্তান স্ত্রী। বিল্লাল হোসেন শিশুটিকে দত্তক নিতে আগ্রহী। 

চাঁদপুর সমাজসেবা অধিদফতরের কর্মকর্তা মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘শিশুটির অভিভাবক খোঁজা হচ্ছে। তবে কোনো অভিভাবক খুঁজে পাওয়া যায়নি। শিশুটি অসুস্থ ছিল। তার চিকিৎসা চলছে। বিষয়টি জেলা শিশুকল্যাণ বোর্ডে উপস্থাপন করা হয়েছে। বোর্ড থেকে যে সিদ্ধান্ত দেয়া হবে সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে। রোববার পর্যন্ত প্রায় ৫০ জন শিশুটিকে দত্তক নিতে চেয়েছেন। কিন্তু এভাবে দত্তক দেয়ার নিয়ম নেই। দত্তক নিতে হয় আদালতের মাধ্যমে।

ফুটফুটে নবজাতককে হাসপাতালে রেখে পালালেন মা, দত্তক নিতে আগ্রহী অর্ধশত

 যুগান্তর রিপোর্ট 
০৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ০৩:৪২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ফুটফুটে নবজাতককে হাসপাতালে রেখে পালালেন মা, দত্তক নিতে আগ্রহী অর্ধশত
শিশু নীলা। ছবি: সংগৃহীত

চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে ১৪ দিনের এক নবজাতককে রেখে পালিয়ে গেছেন মা। বৃহস্পতিবার দুপুরে হাসপাতালের শিশু ওয়ার্ডে এ ঘটনা ঘটে। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে শিশুটিকে দত্তক নিতে অনেকেই ভিড় করেন হাসপাতালে। রোববার প্রায় অর্ধশত মানুষ দত্তক নিতে আগ্রহ দেখান।

ঘটনার বর্ণনা দিয়ে চাঁদপুর জেনারেল হাসপাতালের নার্স মুক্তি রানী দাস বলেন, ১৪ দিন আগে শিশুটির জন্ম হয়। ফুটফুটে সুন্দর শিশুটির নাম রাখা হয় নীলা। হাসপাতালে চার দিন থাকার পর মা নবজাতককে নিয়ে হাসপাতাল থেকে চলে যান। কিন্তু ঠাণ্ডাজনিত সমস্যা নিয়ে পরে আবারও ভর্তি হন। তার পর শুক্রবার রাতে শিশুটিকে ফেলে রেখে চলে যান মা।

আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. সুজাউদ্দৌলা রুবেল বলেন, ওই নারী চাঁদপুর সদরের শহরতলি গ্রামের নাম, ঠিকানা ব্যবহার করে হাসপাতালে ভর্তি হলেও সেখানে ওই ঠিকানায় কাউকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। ফলে এই নিয়ে বেকায়দায় পড়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। পরে বিষয়টি থানায় জানানো হয়।

শিশুটির বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে হাসপাতালের শিশু বিশেষজ্ঞ ডা. আবদুল আজিজ জানান, নীলার চিকিৎসা চলছে। তার দেখভাল করছেন চাঁদপুর সদর থানায় কর্মরত বিল্লাল হোসেনের নিঃসন্তান স্ত্রী। বিল্লাল হোসেন শিশুটিকে দত্তক নিতে আগ্রহী।

চাঁদপুর সমাজসেবা অধিদফতরের কর্মকর্তা মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘শিশুটির অভিভাবক খোঁজা হচ্ছে। তবে কোনো অভিভাবক খুঁজে পাওয়া যায়নি। শিশুটি অসুস্থ ছিল। তার চিকিৎসা চলছে। বিষয়টি জেলা শিশুকল্যাণ বোর্ডে উপস্থাপন করা হয়েছে। বোর্ড থেকে যে সিদ্ধান্ত দেয়া হবে সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে। রোববার পর্যন্ত প্রায় ৫০ জন শিশুটিকে দত্তক নিতে চেয়েছেন। কিন্তু এভাবে দত্তক দেয়ার নিয়ম নেই। দত্তক নিতে হয় আদালতের মাধ্যমে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন