ফেসবুকে অছাত্র কমেন্ট করায় সাদ্দামকে খুন করে ছাত্রলীগ নেতারা!

  কিশোরগঞ্জ ব্যুরো ও কটিয়াদী প্রতিনিধি ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৩:১১:০২ | অনলাইন সংস্করণ

সাদ্দাম হোসেন আকন্দ শুভ। ফাইল ছবি

কিশোরগঞ্জের কটিয়াদীতে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি পদে প্রার্থিতা ঘোষণাকারীকে অছাত্র উল্লেখ করে কমেন্টস করেন সাদ্দাম হোসেন আকন্দ শুভ (৩০) নামে এক ব্যবসায়ী।

রোববার সকালে উপজেলার বনগ্রাম ইউনিয়নের ভিটিপাড়া গ্রাম সরেজমিন পরিদর্শনকালে সাদ্দামের বাড়িতে শোকের মাতমের অবর্ণনীয় ও হৃদয়বিদারক দৃশ্য চোখে পড়ে।

সাদ্দামের ছবি দেখিয়ে ৫ বছর বয়সী মেয়ে স্নিগ্ধা ও দুই বছর বয়সী ছেলে আরিয়ানাকে বুকে নিয়ে কাঁদতে কাঁদতে বার বার মূর্ছা যাচ্চ্ছিলেন তার স্ত্রী শিউলী বেগম (২৫)।

বাবা আজিম উদ্দিন আকন্দ একমাত্র উপার্জনক্ষম সন্তান হারিয়ে শোকে পাথর হয়ে গেছেন। মা রহিমা বেগম ঘরের দরজার কাছে কাঁচা মেঝেতে লুটিয়ে পড়ে বুক চাপড়ে প্রিয় সন্তানের জন্য আহাজারি করছিলেন। আর বলছিলেন, আমার সাদ্দামরে তোমরা ফিরাইয়া আইন্যা দেও।

রোববার ভোরে সাদ্দাম হোসেন শুভর লাশ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে বাড়ি আনার পর স্বজনদের বুকফাটা আহাজারিতে ভারি হয়ে ওঠে কটিয়াদী উপজেলার ভিটিপাড়া গ্রামের বাতাস। শোকের ছায়া নেমে আসে উপজেলাজুড়ে।

সাদ্দামের লাশ একনজর দেখতে বিভিন্ন বয়সের হাজার হাজার নারী-পুরুষের ভিড় জমে তাদের বাড়িতে।

এ সময় বনগ্রাম ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল কাইয়ুম আকন্দ, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও বনগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কামাল হোসেন মিলন এবং উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল ওয়াহাব আইনুদ্দিনের সঙ্গে কথা হয়।

তারা জানান, সাদ্দাম হোসেন শুভ খুবই ভালো ছেলে ছিলেন। ফেসবুকের স্ট্যাটাসে সমালোচনা করে কমেন্টস করার তুচ্ছ বিষয় নিয়ে এ রকম নির্মম-নিষ্ঠুর হত্যাকাণ্ডের কথা তারা কোনোদিন কল্পনাও করতে পারেননি।

এ সময় তারা দলীয় পরিচয়বহনকারী সন্ত্রাসী-ঘাতকদের দৃষ্টান্তমালক শাস্তি দাবি করেন। তারা জানান, কোনো ঘাতক সন্ত্রাসীদের আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগে ঠাঁই হবে না।

এ সময় পুলিশ, স্বজন ও এলাকাবাসীর সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, কয়েকদিন আগে উপজেলার বনগ্রাম ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি পদে প্রার্থী হতে চেয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেন ভিটিপাড়া গ্রামের মলাই ভূঁইয়ার ছেলে রাজিব ভূঁইয়া। ওই স্ট্যাটাসে রাজিব ছাত্র নন এবং সে অছাত্র বলে কমেন্টস করেন একই গ্রামের আজিম উদ্দিন আকন্দের ছেলে দুই শিশু সন্তানের জনক ব্যবসায়ী সাদ্দাম হোসেন আকন্দ শুভ। আর এ ঘটনায় ক্ষিপ্ত হয়ে রাজিব ভূঁইয়া প্রকাশ্যে সাদ্দাম হোসেনকে দুনিয়া থেকে সরিয়ে ফেলার হুমকি দেন।

শুক্রবার রাতে একটি ওয়াজ মাহফিলে অবস্থানকালে এ নিয়ে রাজিব ও সাদ্দামের মধ্যে উত্তপ্ত কথা কাটাকাটি ও ধাক্কাধাক্কির ঘটনাও ঘটে। তারপর রাত সাড়ে ১১টার দিকে ওয়াজ মাহফিল থেকে বাড়ি ফেরার পথে ভিটিপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে ছাত্রলীগ সভাপতি প্রত্যাশী রাজিব তার ক্যাডার বাহিনীর সশস্ত্র লোকজন নিয়ে সাদ্দামের ওপর হামলা চালায়।

এ সময় উপর্যুপরি ছুরিকাঘাতে সাদ্দামের হাত, পা ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে গভীর ক্ষত হয়। এ ছাড়া পেট থেকে ভূরি বের হয়ে পড়ে। এ হামলায় আহত হন রাকিব ও জাকির নামে সাদ্দামের দুই সঙ্গীও।

সাদ্দামকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে কিশোরগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ও বাজিতপুর জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে রাতেই তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার সকাল সাড় ১০টার দিকে মৃত্যু হয় তার।

রোববার ১০টায় অনুষ্ঠিত সাদ্দাম হোসেনের নামাজে জানাজায় হাজারো মানুষের ঢল নামে। জানাজা শেষে সাদ্দামকে পারিবারিক গোরস্থানে দাফন করা হয়।

এ সময় নিহতের স্বজন,এলাকাবাসী ও জন প্রতিনিধিরা খুনি ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের অবিলম্বে গ্রেফতার এবং তাদের ফাঁসির দাবি করেন।

কটিয়াদী মডেল থানার ওসি এম এ জলিল সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ঘটনার পর থেকেই জড়িতদের আটকের জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত