কিশোরগঞ্জে মুক্তিযোদ্ধার সন্তানের জায়গা দখলের অভিযোগ

  কিশোরগঞ্জ ব্যুরো ০৯ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৬:১৮:০৭ | অনলাইন সংস্করণ

সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তোভোগী মাহমুদুর রহমান ভূঁইয়া ও তার স্ত্রী। ছবি- যুগান্তর

কিশোরগঞ্জে এক মুক্তিযোদ্ধা সন্তানের জায়গা দখল করে রাতারাতি দেয়াল তুলে তাদের স্বাভাবিক জীবনযাত্রা বাধাগ্রস্ত করার গুরুতর অভিযোগ উঠেছে এক প্রভাবশালী চক্রের বিরুদ্ধে।

থানা পুলিশকে লিখিতভাবে জানানোর পরও ওই চক্রটির হাত থেকে রেহাই পাচ্ছেন না মুক্তিযোদ্ধা মুজিবুর রহমান ভূঁইয়ার ছেলে মাহমুদুর রহমান ভূঁইয়ার ভুক্তভোগী সন্তানরা।

কিশোরগঞ্জ শহরের গাইটাল শাপলা মসজিদ এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে।

আজ সোমবার সকালে জেলা প্রেসক্লাবে মুক্তিযোদ্ধা মুজিবুর রহমানের ছেলে মাহমুদুর রহমান ভূঁইয়া সপরিবারে উপস্থিত হয়ে সংবাদ সম্মেলন করে ফের অভিযোগ এনেছেন ওই চক্রটির বিরুদ্ধে।

অভিযোগপত্রটি পড়ে শোনান মাহমুদুর রহমানের স্ত্রী ফাতেমা তাসনিম ঝরা।

তিনি বলেন, শহরের গাইটাল শ্রীধরখিলা এলাকায় ২০০৩ সালে আয়েশা বানু ও তারু সেখের কাছ থেকে ২ দশমিক ৪০ শতাংশ জায়গা কিনে বাড়ি তৈরি করি। আমাদের পেছনের জায়গার মালিক মুকসেদ মিয়ার দুই ছেলে মুকাদ্দেছ মিয়া ও শিশির মিয়া। তারা মাহমুদুর রহমানের জায়গায় দেয়াল তুলে আমাদের ঘরের দরজা ও জানালা খোলার সুযোগও বন্ধ করে দিয়েছেন।

ফাতেমা তাসনিমের আরও অভিযোগ, ওই চক্রটি মাহমুদুর রহমানকে তার বাসার সীমানাপ্রাচীর করতে দিচ্ছেন না। প্রাচীরের কাজ করতে গেলে অকথ্য ভাষায় গালাগাল করছেন। এমনকি আমাকে খুন করার হুমকিও দিয়েছেন তারা।

আর এসব ঘটনায় জেলা মোটরযান শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি এমএ কাইয়ুম এবং ক্ষমতাসীন দলের ওয়ার্ল্ড পর্যায়ের কতিপয় ব্যক্তির ইন্ধন রয়েছে বলেও অভিযোগ করেন ফাতেমা তাসনিম।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, এ বিষয়ে সদর থানায় লিখিত অভিযোগ দিলে পরিদর্শক (তদন্ত) মিজানুর রহমান পুলিশ পাঠিয়ে তাদের দেয়ালের কাজ বন্ধ রাখতে বললেও মুকসেদ মিয়ার ছেলেরা প্রভাব খাটিয়ে প্রকাশ্যে দেয়াল নির্মাণ করেছেন।

এ পরিস্থিতিতে মুক্তিযোদ্ধার সন্তানের পরিবার চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন বলে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়।

এ ব্যাপারে পরিদর্শক মিজানুর রহমানের কাছে জানতে চাইলে তিনি উভয়পক্ষকে থানায় ডেকে সার্ভেয়ার নিয়ে যার যার সীমানা ঠিক করে নেয়ার পরামর্শ দিয়েছেন বলে জানান।

অন্যদিকে শ্রমিক ইউনিয়ন নেতা কাইয়ুম মাহমুদুর রহমানের জায়গা দখলে ইন্ধনের অভিযোগ অস্বীকার করে দাবি করেন, মুকাদ্দেছ ও শিশির তাদের জায়গাতেই দেয়াল নির্মাণ করেছেন।

এ ব্যাপারে কিশোরগঞ্জ সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাসুদ আনোয়ার বলেন, বিষয়টি আমি শুনেছি। এ বিষয়ে আইনানুগ ও যথাযথ পদক্ষেপ নেয়া হবে।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত