নাগেশ্বরীতে এক বিদ্যালয় ভবনে ২২ মৌচাক!
jugantor
নাগেশ্বরীতে এক বিদ্যালয় ভবনে ২২ মৌচাক!

  নাগেশ্বরী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি  

০৯ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৯:১৭:৪৯  |  অনলাইন সংস্করণ

মৌমাছির আক্রমণ থেকে বাঁচতে দরজা জানালা বন্ধ করে নেয়া হচ্ছে বাৎসরিক পরীক্ষা।
মৌমাছির আক্রমণ থেকে বাঁচতে দরজা জানালা বন্ধ করে নেয়া হচ্ছে বাৎসরিক পরীক্ষা। ছবি: যুগান্তর

নাগেশ্বরীতে উত্তর কচাকাটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ২২টি মৌচাক বেঁধেছে মৌমাছিরা। মাঝে মাঝেই তারা মানুষের দিকে তেড়ে আসে, হুল ফোঁটায় মানুষের শরীরে। এ নিয়ে আতঙ্কে রয়েছে শিক্ষক-শিক্ষার্থী। মৌমাছির আক্রমণ থেকে বাঁচতে দরজা জানালা বন্ধ করে নেয়া হচ্ছে বাৎসরিক পরীক্ষা।

উপজেলার কচাকাটা ইউনিয়নের দুধকুমর তীরবর্তী চরাঞ্চলের উত্তর কচাকাটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পড়ালেখা করে ২৪০ জন কোমলমতি শিক্ষার্থী। এর চারদিকে দিগন্ত বিস্তৃত মাঠে সরিষা ক্ষেত। সেখানে নেচে নেচে মধু সংগ্রহ করে বিদ্যালয় ভবনের তিনদিকে কার্নিশে ও সিঁড়িতে ২২টি চাকে বসবাস করা এসব মৌমাছি। পাশ দিয়ে পাখি উড়ে গেলে অথবা হালকা বাতাসে তারা উড়তে থাকে। হুল ফোটায় শিক্ষক-শিক্ষার্থীর গায়ে। 

সহকারী শিক্ষিকা খুশি রানী সাহা জানান, ৭ ডিসেম্বর একটু বাতাসে বেশকিছু মৌমাছি উড়ে এসে তাকে ও আর একজন সহকারী শিক্ষক নজরুল ইসলামসহ কয়েকজন শিক্ষার্থীকে আক্রমণ করে। হুল ফোঁটায় তাদের মুখ ও শরীরে। এতে অসুস্থ হয়ে পড়ে কয়েকজন শিক্ষার্থী।

নাগেশ্বরীতে এক বিদ্যালয় ভবনে ২২ মৌচাক!

 নাগেশ্বরী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি 
০৯ ডিসেম্বর ২০১৯, ০৭:১৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
মৌমাছির আক্রমণ থেকে বাঁচতে দরজা জানালা বন্ধ করে নেয়া হচ্ছে বাৎসরিক পরীক্ষা।
মৌমাছির আক্রমণ থেকে বাঁচতে দরজা জানালা বন্ধ করে নেয়া হচ্ছে বাৎসরিক পরীক্ষা। ছবি: যুগান্তর

নাগেশ্বরীতে উত্তর কচাকাটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ২২টি মৌচাক বেঁধেছে মৌমাছিরা। মাঝে মাঝেই তারা মানুষের দিকে তেড়ে আসে, হুল ফোঁটায় মানুষের শরীরে। এ নিয়ে আতঙ্কে রয়েছে শিক্ষক-শিক্ষার্থী। মৌমাছির আক্রমণ থেকে বাঁচতে দরজা জানালা বন্ধ করে নেয়া হচ্ছে বাৎসরিক পরীক্ষা।

উপজেলার কচাকাটা ইউনিয়নের দুধকুমর তীরবর্তী চরাঞ্চলের উত্তর কচাকাটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পড়ালেখা করে ২৪০ জন কোমলমতি শিক্ষার্থী। এর চারদিকে দিগন্ত বিস্তৃত মাঠে সরিষা ক্ষেত। সেখানে নেচে নেচে মধু সংগ্রহ করে বিদ্যালয় ভবনের তিনদিকে কার্নিশে ও সিঁড়িতে ২২টি চাকে বসবাস করা এসব মৌমাছি। পাশ দিয়ে পাখি উড়ে গেলে অথবা হালকা বাতাসে তারা উড়তে থাকে। হুল ফোটায় শিক্ষক-শিক্ষার্থীর গায়ে।

সহকারী শিক্ষিকা খুশি রানী সাহা জানান, ৭ ডিসেম্বর একটু বাতাসে বেশকিছু মৌমাছি উড়ে এসে তাকে ও আর একজন সহকারী শিক্ষক নজরুল ইসলামসহ কয়েকজন শিক্ষার্থীকে আক্রমণ করে। হুল ফোঁটায় তাদের মুখ ও শরীরে। এতে অসুস্থ হয়ে পড়ে কয়েকজন শিক্ষার্থী।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন