বেতন ছাড়াই ২০ বছর পাঠদান শিক্ষকদের!
jugantor
বেতন ছাড়াই ২০ বছর পাঠদান শিক্ষকদের!

  পাঁচবিবি (জয়পুরহাট) প্রতিনিধি  

১২ ডিসেম্বর ২০১৯, ২০:৪৯:৫৮  |  অনলাইন সংস্করণ

কড়িয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়
কড়িয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়

জয়পুরহাটের পাঁচবিবি সীমান্তের পাড়ে অবস্থিত কড়িয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক-কর্মচারীরা প্রায় ২০ বছর বেতন ছাড়াই শিক্ষার্থীদের মাঝে পাঠদান করে যাচ্ছেন।

যে প্রতিষ্ঠানে পড়ালেখা করে শিক্ষার্থীরাই অন্য প্রতিষ্ঠানে চাকরি করে বেতন পেলেও তাদের শিক্ষকরা আজও পেল না বেতন।

প্রতিষ্ঠার পর থেকেই বিদ্যালয়ে শিক্ষক/কর্মচারীসহ মোট ১৬ জন অফিস স্টাফ মানবেতর জীবনযাপন করছে। কবে পাব বেতন সেই আশায় চালিয়ে যাচ্ছে শিক্ষার্থীদের মাঝে পাঠদান।

২০০২ সালে স্থানীয় শিক্ষানুরাগী মরহুম আবুল খায়ের মাস্টারের দানকৃত জমিতে বিদ্যালয়টি নির্মাণ করে ২০ বছর বেতন বিহীন আজকের ওই ১৬ জন শিক্ষক/কর্মচারীগণ।

বিদ্যালয়টিতে ৯টি পাকা টিনশেড শ্রেণি কক্ষ ও প্রায় ২৫০ জন শিক্ষার্থী নিয়মিত অধ্যয়ন করছে। 

প্রধান শিক্ষক আ. কাইয়ুম বলেন, সরকারের ঘোষণা অনুযায়ী বেতনের আশায় শতভাগ শর্তপূরণ করেও এমপিওভুক্ত হয়নি। স্কুল তদন্ত করে যদি নিয়মের মধ্যে পরে তাহলে আগামীতে প্রতিষ্ঠানটিকে এমপিও ঘোষণা দেয়ার আহ্বান জানান তিনি।

বেতন ছাড়াই ২০ বছর পাঠদান শিক্ষকদের!

 পাঁচবিবি (জয়পুরহাট) প্রতিনিধি 
১২ ডিসেম্বর ২০১৯, ০৮:৪৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
কড়িয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়
কড়িয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়

জয়পুরহাটের পাঁচবিবি সীমান্তের পাড়ে অবস্থিত কড়িয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক-কর্মচারীরা প্রায় ২০ বছর বেতন ছাড়াই শিক্ষার্থীদের মাঝে পাঠদান করে যাচ্ছেন।

যে প্রতিষ্ঠানে পড়ালেখা করে শিক্ষার্থীরাই অন্য প্রতিষ্ঠানে চাকরি করে বেতন পেলেও তাদের শিক্ষকরা আজও পেল না বেতন।

প্রতিষ্ঠার পর থেকেই বিদ্যালয়ে শিক্ষক/কর্মচারীসহ মোট ১৬ জন অফিস স্টাফ মানবেতর জীবনযাপন করছে। কবে পাব বেতন সেই আশায় চালিয়ে যাচ্ছে শিক্ষার্থীদের মাঝে পাঠদান।

২০০২ সালে স্থানীয় শিক্ষানুরাগী মরহুম আবুল খায়ের মাস্টারের দানকৃত জমিতে বিদ্যালয়টি নির্মাণ করে ২০ বছর বেতন বিহীন আজকের ওই ১৬ জন শিক্ষক/কর্মচারীগণ।

বিদ্যালয়টিতে ৯টি পাকা টিনশেড শ্রেণি কক্ষ ও প্রায় ২৫০ জন শিক্ষার্থী নিয়মিত অধ্যয়ন করছে।

প্রধান শিক্ষক আ. কাইয়ুম বলেন, সরকারের ঘোষণা অনুযায়ী বেতনের আশায় শতভাগ শর্তপূরণ করেও এমপিওভুক্ত হয়নি। স্কুল তদন্ত করে যদি নিয়মের মধ্যে পরে তাহলে আগামীতে প্রতিষ্ঠানটিকে এমপিও ঘোষণা দেয়ার আহ্বান জানান তিনি।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন