বিএনপি কর্মী ভেবে পুলিশকে পেটালেন ওসি
jugantor
বিএনপি কর্মী ভেবে পুলিশকে পেটালেন ওসি

  মৌলভীবাজার প্রতিনিধি  

১২ ডিসেম্বর ২০১৯, ২২:০০:৩৮  |  অনলাইন সংস্করণ

ডিএসবির কনস্টেবল আবুল বাশারকে পেটালেন মৌলভীবাজার মডেল থানার ওসি আলমগীর হোসেন
ডিএসবির কনস্টেবল আবুল বাশারকে পেটালেন মৌলভীবাজার মডেল থানার ওসি আলমগীর হোসেন

প্রকাশ্যে রাস্তায় ডিএসবির কনস্টেবল আবুল বাশারকে পেটালেন মৌলভীবাজার মডেল থানার ওসি আলমগীর হোসেন।

বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে মৌলভীবাজার চৌমূহনায় ঘটনাটি ঘটে।

জানা গেছে, বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন খারিজের প্রতিবাদে ও তার মুক্তির দাবিতে মৌলভীবাজার চৌমূহনা থেকে সকাল ১০টায় বিএনপির মিছিল হওয়ার কথা ছিল। সকাল সাড়ে ১০টার দিকে দায়িত্ব পালন করতে চৌমূহনা এলাকায় আসেন ডিএসবি সদস্য আবুল বাশার। এসময় মডেল থানার এসআই তাপসের নেতৃত্বে একদল পুলিশ চৌমূহনায় দায়িত্ব পালনরত ছিল।

বেলা ১১টার দিকে বিএনপির ১৫-২০ জন লোক জড়ো হয়েছিল রাস্তায়। এমন সময় আবুল বাশার দায়িত্ব পালন করছিলেন চৌমূহনায়। পুলিশের ড্রেস পরিহিত অবস্থায় মডেল থানার ওসি আলমঙ্গীর হোসেন ডিএসবি সদস্য আবুল বাশারকে পিছন দিক থেকে এসে পিটাতে থাকেন বিএনপি কর্মী বলে।

ডিএসবি সদস্য আবুল বাশার বলেন, সকালে আমি অফিসে আসার পর পুলিশ সুপার স্যারের নির্দেশে ডিআইও-১ আবু তাহের স্যারের সঙ্গে চৌমূহনা পয়েন্টে যাই গোয়েন্দা তথ্য সংগ্রহ ও ছবি তুলতে। ঘটনার সময় আমি যখন ছবি তুলতে যাই হঠাৎ করে পেছন দিক থেকে আমাকে ড্রেস পরিহিত অবস্থায় আক্রমণ করেন ওসি। তখন তাকে বলি যে আমি ডিএসবি সদস্য। এরপরও তিনি আমাকে মাথায় আঘাত করেন।

এ সময় মডেল থানার এসআই তাপস বলেন আমার উদ্দেশে বলেন, ‘পুলিশের লোক হলে কী হবে? ডিএসবির লোক কিছু করতে পারবে না। ডিএসবি অফিস একটি বাজে অফিস’।

অভিযোগের বিষয়ে অভিযুক্ত এসআই তাপস বলেন, ‘ওসি স্যারের সঙ্গে ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে ডিএসবি সদস্যের’। তবে তিনি মন্তব্যের বিষয়টি অস্বীকার করেন।

মৌলভীবাজার মডেল থানার ওসি আলমঙ্গীর হোসেন জানান, ছত্রভঙ্গ করতে অজান্তে ঘটনাটি ঘটেছিল। বিষয়টি নিয়ে কথা বলা লজ্জার।

এ বিষয়ে নিয়ে পুলিশ সুপার ফারুক আহমদ সাংবাদিকদের জানান, রাজনৈতিক একটা কর্মসূচি ছিল। সেটি ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ ব্যবস্থা নিতে গিয়েছিল। সেখানে নিজেদের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে।

বিএনপি কর্মী ভেবে পুলিশকে পেটালেন ওসি

 মৌলভীবাজার প্রতিনিধি 
১২ ডিসেম্বর ২০১৯, ১০:০০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ডিএসবির কনস্টেবল আবুল বাশারকে পেটালেন মৌলভীবাজার মডেল থানার ওসি আলমগীর হোসেন
ডিএসবির কনস্টেবল আবুল বাশারকে পেটালেন মৌলভীবাজার মডেল থানার ওসি আলমগীর হোসেন

প্রকাশ্যে রাস্তায় ডিএসবির কনস্টেবল আবুল বাশারকে পেটালেন মৌলভীবাজার মডেল থানার ওসি আলমগীর হোসেন।

বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে মৌলভীবাজার চৌমূহনায় ঘটনাটি ঘটে।

জানা গেছে, বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন খারিজের প্রতিবাদে ও তার মুক্তির দাবিতে মৌলভীবাজার চৌমূহনা থেকে সকাল ১০টায় বিএনপির মিছিল হওয়ার কথা ছিল। সকাল সাড়ে ১০টার দিকে দায়িত্ব পালন করতে চৌমূহনা এলাকায় আসেন ডিএসবি সদস্য আবুল বাশার। এসময় মডেল থানার এসআই তাপসের নেতৃত্বে একদল পুলিশ চৌমূহনায় দায়িত্ব পালনরত ছিল।

বেলা ১১টার দিকে বিএনপির ১৫-২০ জন লোক জড়ো হয়েছিল রাস্তায়। এমন সময় আবুল বাশার দায়িত্ব পালন করছিলেন চৌমূহনায়। পুলিশের ড্রেস পরিহিত অবস্থায় মডেল থানার ওসি আলমঙ্গীর হোসেন ডিএসবি সদস্য আবুল বাশারকে পিছন দিক থেকে এসে পিটাতে থাকেন বিএনপি কর্মী বলে।

ডিএসবি সদস্য আবুল বাশার বলেন, সকালে আমি অফিসে আসার পর পুলিশ সুপার স্যারের নির্দেশে ডিআইও-১ আবু তাহের স্যারের সঙ্গে চৌমূহনা পয়েন্টে যাই গোয়েন্দা তথ্য সংগ্রহ ও ছবি তুলতে। ঘটনার সময় আমি যখন ছবি তুলতে যাই হঠাৎ করে পেছন দিক থেকে আমাকে ড্রেস পরিহিত অবস্থায় আক্রমণ করেন ওসি। তখন তাকে বলি যে আমি ডিএসবি সদস্য। এরপরও তিনি আমাকে মাথায় আঘাত করেন।

এ সময় মডেল থানার এসআই তাপস বলেন আমার উদ্দেশে বলেন, ‘পুলিশের লোক হলে কী হবে? ডিএসবির লোক কিছু করতে পারবে না। ডিএসবি অফিস একটি বাজে অফিস’।

অভিযোগের বিষয়ে অভিযুক্ত এসআই তাপস বলেন, ‘ওসি স্যারের সঙ্গে ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে ডিএসবি সদস্যের’। তবে তিনি মন্তব্যের বিষয়টি অস্বীকার করেন।

মৌলভীবাজার মডেল থানার ওসি আলমঙ্গীর হোসেন জানান, ছত্রভঙ্গ করতে অজান্তে ঘটনাটি ঘটেছিল। বিষয়টি নিয়ে কথা বলা লজ্জার।

এ বিষয়ে নিয়ে পুলিশ সুপার ফারুক আহমদ সাংবাদিকদের জানান, রাজনৈতিক একটা কর্মসূচি ছিল। সেটি ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ ব্যবস্থা নিতে গিয়েছিল। সেখানে নিজেদের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে।