পুলিশ পরিচয়ে পোস্ট অফিসের ড্রয়ার ভেঙে টাকা লুট!
jugantor
পুলিশ পরিচয়ে পোস্ট অফিসের ড্রয়ার ভেঙে টাকা লুট!

  বগুড়া ব্যুরো  

১১ মার্চ ২০১৮, ২১:৩৮:৫২  |  অনলাইন সংস্করণ

বগুড়ার শিবগঞ্জে সহকারী পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের সামনে রোববার দুপুরে পুলিশ পরিচয়ে পোস্ট অফিসে ভারপ্রাপ্ত মাস্টারের কক্ষে ঢুকে ড্রয়ার ভেঙে প্রায় চার লাখ টাকা লুটের ব্যর্থ চেষ্টা করেছে দুর্বৃত্তরা। এর আগে ওরা ওসি পরিচয়ে ফোন দিয়ে পোস্টমাস্টারকে থানায় ডেকে নিয়েছিল।

আশপাশের জনগণের সহযোগিতায় কর্মচারীরা টাকাসহ দুই দুর্বৃত্তকে আটক করেছেন। অন্যরা মাইক্রোবাসে পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়েছে। গণপিটুনির শিকার গুরুতর একজনকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আটককৃতরা হলো- ঢাকার ওয়ারির নারিন্দা এলাকার মৃত ফয়সাল আলীর ছেলে আবদুল হান্নান (৫৪) ও ঢাকার সূত্রাপুর এলাকার মৃত সাহাবুদ্দিনে ছেলে সাব্বির আহম্মেদ (৩৫)। মাইক্রোবাস নিয়ে পালিয়ে যাওয়া অপর একজন হলো- ঢাকার গেন্ডারিয়ার ইকবাল হোসেনের ছেলে মাসুদ রানা।

শিবগঞ্জ থানার এসআই মুকুল জানান, রোববার দুপুর দেড়টার দিকে ৪-৫ জনের একদল দুর্বৃত্ত মাইক্রোবাসে সহকারী পুলিশ সুপার শিবগঞ্জ সার্কেলের কার্যালয়ের কাছে পোস্ট অফিসে আসে। দুজন পোস্ট অফিসে ঢুকে নিজেদের পুলিশ পরিচয়ে ভারপ্রাপ্ত পোস্টমাস্টার (পোস্টাল অপারেটর) জাহানুর ইসলামের কক্ষে ঢোকে। তারা সঞ্চয়ী হিসাব খুলতে চায়। মাস্টার তাদের সোমবার আসতে বলেন। তখন তারা মাস্টারের কাছে মোবাইলফোন নম্বর নিয়ে বেরিয়ে যায়। কিছুক্ষণ পর মাস্টারের কাছে ফোন আসে।

অপরপ্রান্ত থেকে শিবগঞ্জ থানার ওসির পরিচয় দিয়ে বলা হয়, ‘‌‌‌এসপি সাহেব থানায় এসেছেন, আপনার সঙ্গে কথা বলতে চান।’ মাস্টার ফাইলপত্র গুছিয়ে কিছুক্ষণ পর থানায় যেতে চান।

প্রায় ১০ মিনিট পর পুনরায় ফোন আসে। অপরপ্রান্ত থেকে বলা হয়, ‘‌‌‌এসপি সাহেব চলে যাবেন তাড়াতাড়ি আসুন।’ তখন মাস্টার দ্রুত অফিস থেকে নিকটেই শিবগঞ্জ থানায় যান। অফিসের কর্মচারীরা লাঞ্চ ও যোহরের নামাজ নিয়ে ব্যস্ত থাকায় দুই দুর্বৃত্ত পোস্টমাস্টারের কক্ষে ঢুকে ড্রয়ার ভেঙে প্রায় চার লাখ টাকা বের করে ব্যাগে তোলে।

টাকা নিয়ে বেরিয়ে যাবার সময় অফিসের কর্মচারী মোকলেছার রহমান, বাদল চন্দ্র ও নয়ন চন্দ্র টের পেয়ে তাদের ধাওয়া ও চিৎকার করতে থাকেন। তখন আশপাশের লোকজন ছুটে এসে টাকাসহ হান্নান ও সাব্বিরকে হাতেনাতে আটক করেন। সুযোগ বুঝে মাসুদ রানাসহ অন্যরা মাইক্রোবাস নিয়ে পালিয়ে যায়। বিক্ষুব্ধ জনতা দুজনকে গণপিটুনী দেন। এদের মধ্যে গুরুতর সাব্বিরকে বগুড়া শজিমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

ভারপ্রাপ্ত পোস্টমাস্টার জাহানুর ইসলাম জানান, দুর্বৃত্তরা ওসি পরিচয়ে তাকে থানায় ফোনে ডেকে নিয়ে যায়। তারা তার অফিসের টেবিলের ড্রয়ার ভেঙে টাকা নিয়ে পালিয়ে যাচ্ছিল। কর্মচারী ও জনগণ তাদের দুজনকে আটক করে পুলিশে দিয়েছে।

শিবগঞ্জ থানার ওসি শাহিদ মাহমুদ খান এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

পুলিশ পরিচয়ে পোস্ট অফিসের ড্রয়ার ভেঙে টাকা লুট!

 বগুড়া ব্যুরো 
১১ মার্চ ২০১৮, ০৯:৩৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বগুড়ার শিবগঞ্জে সহকারী পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের সামনে রোববার দুপুরে পুলিশ পরিচয়ে পোস্ট অফিসে ভারপ্রাপ্ত মাস্টারের কক্ষে ঢুকে ড্রয়ার ভেঙে প্রায় চার লাখ টাকা লুটের ব্যর্থ চেষ্টা করেছে দুর্বৃত্তরা। এর আগে ওরা ওসি পরিচয়ে ফোন দিয়ে পোস্টমাস্টারকে থানায় ডেকে নিয়েছিল।

আশপাশের জনগণের সহযোগিতায় কর্মচারীরা টাকাসহ দুই দুর্বৃত্তকে আটক করেছেন। অন্যরা মাইক্রোবাসে পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়েছে। গণপিটুনির শিকার গুরুতর একজনকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আটককৃতরা হলো- ঢাকার ওয়ারির নারিন্দা এলাকার মৃত ফয়সাল আলীর ছেলে আবদুল হান্নান (৫৪) ও ঢাকার সূত্রাপুর এলাকার মৃত সাহাবুদ্দিনে ছেলে সাব্বির আহম্মেদ (৩৫)। মাইক্রোবাস নিয়ে পালিয়ে যাওয়া অপর একজন হলো- ঢাকার গেন্ডারিয়ার ইকবাল হোসেনের ছেলে মাসুদ রানা।

শিবগঞ্জ থানার এসআই মুকুল জানান, রোববার দুপুর দেড়টার দিকে ৪-৫ জনের একদল দুর্বৃত্ত মাইক্রোবাসে সহকারী পুলিশ সুপার শিবগঞ্জ সার্কেলের কার্যালয়ের কাছে পোস্ট অফিসে আসে। দুজন পোস্ট অফিসে ঢুকে নিজেদের পুলিশ পরিচয়ে ভারপ্রাপ্ত পোস্টমাস্টার (পোস্টাল অপারেটর) জাহানুর ইসলামের কক্ষে ঢোকে। তারা সঞ্চয়ী হিসাব খুলতে চায়। মাস্টার তাদের সোমবার আসতে বলেন। তখন তারা মাস্টারের কাছে মোবাইলফোন নম্বর নিয়ে বেরিয়ে যায়। কিছুক্ষণ পর মাস্টারের কাছে ফোন আসে। 

অপরপ্রান্ত থেকে শিবগঞ্জ থানার ওসির পরিচয় দিয়ে বলা হয়, ‘‌‌‌এসপি সাহেব থানায় এসেছেন, আপনার সঙ্গে কথা বলতে চান।’ মাস্টার ফাইলপত্র গুছিয়ে কিছুক্ষণ পর থানায় যেতে চান।

প্রায় ১০ মিনিট পর পুনরায় ফোন আসে। অপরপ্রান্ত থেকে বলা হয়, ‘‌‌‌এসপি সাহেব চলে যাবেন তাড়াতাড়ি আসুন।’ তখন মাস্টার দ্রুত অফিস থেকে নিকটেই শিবগঞ্জ থানায় যান। অফিসের কর্মচারীরা লাঞ্চ ও যোহরের নামাজ নিয়ে ব্যস্ত থাকায় দুই দুর্বৃত্ত পোস্টমাস্টারের কক্ষে ঢুকে ড্রয়ার ভেঙে প্রায় চার লাখ টাকা বের করে ব্যাগে তোলে।

টাকা নিয়ে বেরিয়ে যাবার সময় অফিসের কর্মচারী মোকলেছার রহমান, বাদল চন্দ্র ও নয়ন চন্দ্র টের পেয়ে তাদের ধাওয়া ও চিৎকার করতে থাকেন। তখন আশপাশের লোকজন ছুটে এসে টাকাসহ হান্নান ও সাব্বিরকে হাতেনাতে আটক করেন। সুযোগ বুঝে মাসুদ রানাসহ অন্যরা মাইক্রোবাস নিয়ে পালিয়ে যায়। বিক্ষুব্ধ জনতা দুজনকে গণপিটুনী দেন। এদের মধ্যে গুরুতর সাব্বিরকে বগুড়া শজিমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

ভারপ্রাপ্ত পোস্টমাস্টার জাহানুর ইসলাম জানান, দুর্বৃত্তরা ওসি পরিচয়ে তাকে থানায় ফোনে ডেকে নিয়ে যায়। তারা তার অফিসের টেবিলের ড্রয়ার ভেঙে টাকা নিয়ে পালিয়ে যাচ্ছিল। কর্মচারী ও জনগণ তাদের দুজনকে আটক করে পুলিশে দিয়েছে।

শিবগঞ্জ থানার ওসি শাহিদ মাহমুদ খান এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন