পাবনায় যৌতুক মামলায় পুলিশের এসআই কারাগারে

  পাবনা প্রতিনিধি ১৪ জানুয়ারি ২০২০, ২২:৪৮:৪৭ | অনলাইন সংস্করণ

এসআই নাসির আহম্মেদ। ফাইল ছবি

নারী নির্যাতন ও যৌতুক মামলায় ঢাকার (ডিএমপি) যাত্রাবাড়ী থানায় কর্মরত পুলিশের এসআই নাসির আহম্মেদকে জেল হাজতে প্রেরণ করেছেন আদালত।

সোমবার দুপুরে পাবনার নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মদ ওলিউল ইসলাম এ আদেশ দেন।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, পাবনা সদর উপজেলার বলরামপুর গ্রামের সাইফুল ইসলাম বাদী হয়ে পাবনার নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনালে এসআই নাসির আহম্মেদ, মোস্তাক আহম্মেদ, সালমা আহম্মেদ ও লাকী খাতুনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন।

মামলায় বাদী অভিযোগ করেন, তার মেয়ে রুবিনা আক্তার রুনার সঙ্গে পাবনা শহরের কাচারী পাড়ার মোস্তাক আহম্মেদের ছেলে নাসির আহম্মেদের পুলিশে চাকরি পাওয়ার আগেই পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই ৫ লাখ টাকা যৌতুক দাবিতে স্বামী পুলিশের এসআই নাসির আহম্মেদ স্ত্রী রুবিনা খাতুনের উপর শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন চালায়। এক পর্যায়ে যৌতুক না পেয়ে অন্যদের যোগসাজশে নাসির আহম্মেদ স্ত্রী রুবিনা আক্তার রুনাকে মারপিট করে আহত করেন।

এছাড়াও আসামী নাসির আহম্মেদ পরকীয়ায় আসক্ত বলেও মামলায় অভিযোগ করা হয়েছে।

ওই মামলায় নাছির আহম্মেদ গং এর বিরুদ্ধে আদালত গ্রেফতারি পরওয়ানা জারি করেন। সোমবার দুপুরে মামলার ধার্য তারিখের আগেই ঢাকার যাত্রাবাড়ী থানায় কর্মরত এসআই নাসির আহম্মেদ আদালতে সশরীরে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন করেন। আদালত তার জামিন নামঞ্জুর করে তাকে জেল হাজতে প্রেরণের আদেশ দেন।

আদালতের আদেশের পরে পুলিশের এসআই নাসির আহম্মেদকে পাবনা জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত