মুজিববর্ষকে পুঁজি করে বাণিজ্য মেলা, এমপি লিপির কড়া হুঁশিয়ারি

  কিশোরগঞ্জ ব্যুরো ১৭ জানুয়ারি ২০২০, ২০:২৮ | অনলাইন সংস্করণ

হোসেনপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ  সম্পাদককে এমপি লিপির চিঠি
হোসেনপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে এমপি লিপির চিঠি

কিশোরগঞ্জ-১ (সদর-হোসেনপুর) আসনের এমপি স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সদস্য ডা. সৈয়দা জাকিয়া নূর লিপির সঙ্গে যোগাযোগ না করে হোসেনপুর উপজেলায় শুরু হয়েছে মাসব্যাপী আনন্দ মেলা।

মুজিববর্ষকে পুঁজি করে হোসেনপুর উপজেলা আওয়ামী লীগ এ মেলার আয়োজন করে।

এ ঘটনায় ক্ষিপ্ত হয়ে ডা. সৈয়দা জাকিয়া নূর লিপি হোসেনপুর উপজেলা আওয়ামী লীগকে কড়া সতর্ক বার্তা ও হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে চিঠি পাঠিয়েছেন।

এ মেলায় সার্কাস, পুতুল নাচের পাশাপাশি ঠাঁই পেয়েছে অসংখ্য বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের স্টল।

বৃহস্পতিবার থেকে এ মেলার আনুষ্ঠানিক যাত্রাও শুরু হয়। আর ওইদিন সন্ধ্যায় এ মেলার উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী কৃষিবিদ মশিউর রহমান হুমায়ুন।

মুজিববর্ষকে পুঁজি করে মেলার নামে এক ধরনের বাণিজ্য করার উদ্দেশ্য হোসেনপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের এ ধরনের উদ্যোগে ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেছেন মুক্তিযুদ্ধকালীন প্রবাসী মুজিব নগর সরকারের অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলামের কন্যা এবং প্রয়াত জনপ্রশাসন মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের ছোট বোন ডা. সৈয়দা জাকিয়া নূর লিপি এমপি।

তিনি এ ঘটনায় হোসেনপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদককে চিঠি দিয়ে কড়া সতর্কবার্তা এবং হুঁশিয়ারি জানিয়েছেন।

মঙ্গলবার ১৬ জানুয়ারি এমপি ডা. সৈয়দা জাকিয়া নূর লিপির নিজস্ব প্যাডে স্বাক্ষরিত ওই চিঠি হোসেনপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের কাছে এসে পৌঁছে।

এ চিঠিতে এমপি লিপি লিখেছেন, ‘প্রিয় সভাপতি, আমার শুভেচ্ছা নিবেন, আমি জেনে অত্যন্ত আনন্দিত হয়েছি যে মুজিববর্ষ উপলক্ষে হোসেনপুরে মাসব্যাপী মেলার আয়োজন করেছেন। কিন্তু অত্যন্ত পরিতাপের বিষয় এই যে, আমি এ আসনের নির্বাচিত সংসদ সদস্য হওয়ার পরও আমাকে এ বিষয় আপনারা অবহিত করেন নাই। এমনকি আমার উপস্থিতির ব্যাপারেও কোনো নিমন্ত্রণ না দেয়াটা বড়ই অশোভনীয় কাজ।’

‘এই আসনের একজন নির্বাচিত সংসদ সদস্য হিসেবে এমন পরিস্থিতি আমার জন্য বিব্রতকর, ভবিষ্যতে এ পরিস্থিতি যেন সৃষ্টি না হয় সে ব্যাপারে আপনারা সতর্ক ও সচেতন থাকিবেন। এর একটি অনুলিপি জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বরাবর পাঠানো হয়েছে।‘

এ ব্যাপারে হোসেনপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জহিরুল ইসলাম নূরুর সঙ্গে মোবাইল ফোনে কথা হলে তিনি বলেন, স্থানীয় এমপিকে না জানানো, অনুমতি না নেয়া এবং তাকে দাওয়াত না দেয়াটা আমাদের ভুল হয়ে গেছে। আমরা তার কাছে গিয়ে এ ঘটনায় মাফ চাইব।

এ সময় তিনি আরও দাবি করেন, প্রকৃতপক্ষে তাঁতীলীগ ও অন্যান্য অঙ্গ সংগঠন এ মেলার আয়োজন করে। এ মেলায় সার্কাস, পুতুল নাচ এবং বিভিন্ন ধরনের বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানও স্টল দিয়েছে।

তবে এ মেলা থেকে উপার্জিত বিপুল পরিমাণ অর্থ কে নেবে কিংবা এ অর্থ কী কাজে ব্যয় করা হবে এ প্রসঙ্গ এড়িয়ে যান হোসেনপুর আওয়ামী লীগ সভাপতি নূরু মিয়া।

এদিকে কিশোরগঞ্জ -১ (সদর-হোসেনপুর) আসনের এমপি ডা. সৈয়দা জাকিয়া নূর লিপির সঙ্গে মোবাইল ফোনে শুক্রবার বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে যোগাযোগ করা হয়। তিনি এ ঘটনায় হোসেনপুর উপজেলা আওয়ামী লীগকে চিঠি দেয়ার বিষয় নিশ্চিত করেন।

এমপি ডা. সৈয়দা জাকিয়া নূর লিপি যুগান্তরকে বলেন, আমরা জনকল্যাণে রাজনীতি করি। জনগণের ভালো মন্দ দেখার পাশাপাশি আমাদের দলের ভালো মন্দেরও খোঁজ রাখতে হয়।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

 
×