দিনাজপুরে নৈশপ্রহরীকে কুপিয়ে হত্যা
jugantor
দিনাজপুরে নৈশপ্রহরীকে কুপিয়ে হত্যা

  দিনাজপুর প্রতিনিধি  

২৩ জানুয়ারি ২০২০, ১৯:২৪:৪২  |  অনলাইন সংস্করণ

দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে বাদশা মণ্ডল (৫০) নামে এক নৈশপ্রহরীকে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। বুধবার দিবাগত রাতে উপজেলার নন্দীগ্রাম স্কুলের পাশে মেসার্স তামিম এগ্রো কোম্পানির একটি পুকুরে এ ঘটনা ঘটে। 

নিহত বাদশা মণ্ডল ফুলবাড়ী উপজেলার বেতদীঘি ইউনিয়নের আরাজী সাহাপুর গ্রামের মৃত আব্দুস সামাদের ছেলে।

পুলিশের ফুলবাড়ী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মিঞা মো. আশিক বিন হাসান জানান, বাদশা মণ্ডল কোম্পানির একটি পুকুরে নৈশপ্রহরীর দায়িত্ব পালন করছিলেন। বৃহস্পতিবার সকালে পুকুর পাড়ের একটি ছোট্ট কুঁড়ে ঘরের সামনে তার রক্তমাখা লাশ পড়ে থাকতে দেখে এলাকাবাসী পুলিশকে খবর দেন। 

পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি শেষে ময়নাতদন্তের জন্য দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে। 

পুলিশ জানায়, বুধবার দিবাগত রাতে কে বা কারা তাকে কুপিয়ে হত্যা করে পালিয়ে যায়। তবে এটি একটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড বলে জানায় পুলিশ। 

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জানান, ঘটনার তদন্ত চলছে। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের দ্রুত আইনের আওতায় নিয়ে আসা হবে।

দিনাজপুরে নৈশপ্রহরীকে কুপিয়ে হত্যা

 দিনাজপুর প্রতিনিধি 
২৩ জানুয়ারি ২০২০, ০৭:২৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে বাদশা মণ্ডল (৫০) নামে এক নৈশপ্রহরীকে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। বুধবার দিবাগত রাতে উপজেলার নন্দীগ্রাম স্কুলের পাশে মেসার্স তামিম এগ্রো কোম্পানির একটি পুকুরে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত বাদশা মণ্ডল ফুলবাড়ী উপজেলার বেতদীঘি ইউনিয়নের আরাজী সাহাপুর গ্রামের মৃত আব্দুস সামাদের ছেলে।

পুলিশের ফুলবাড়ী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মিঞা মো. আশিক বিন হাসান জানান, বাদশা মণ্ডল কোম্পানির একটি পুকুরে নৈশপ্রহরীর দায়িত্ব পালন করছিলেন। বৃহস্পতিবার সকালে পুকুর পাড়ের একটি ছোট্ট কুঁড়ে ঘরের সামনে তার রক্তমাখা লাশ পড়ে থাকতে দেখে এলাকাবাসী পুলিশকে খবর দেন।

পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি শেষে ময়নাতদন্তের জন্য দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে।

পুলিশ জানায়, বুধবার দিবাগত রাতে কে বা কারা তাকে কুপিয়ে হত্যা করে পালিয়ে যায়। তবে এটি একটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড বলে জানায় পুলিশ।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জানান, ঘটনার তদন্ত চলছে। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের দ্রুত আইনের আওতায় নিয়ে আসা হবে।